About Us
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Abu Sadek Muhammad Nayeem - (Chattogram)
প্রকাশ ২০/০৬/২০২১ ১২:২৭এ এম

ইরানের ৮ম রাষ্ট্রপতি হলেন রাইসি

ইরানের ৮ম রাষ্ট্রপতি হলেন রাইসি Ad Banner

রক্ষণশীল বিচার বিভাগীয় প্রধান ইব্রাহিম রাইসি ইরানের অষ্টম রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।শনিবার (১৯ জুন) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়টি নিশ্চিত করে।

মন্ত্রণালয় জানায়, শুক্রবারের নির্বাচনে ৬১.৯৫ শতাংশ ভোটের মধ্যে রাইসি ৪৮.৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে। ৫ কোটি ৯০ লাখ ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৩ কোটি ৬০ লাখ ৮৬ হাজার ৭৯৩জন।

১৯৭৯ সালের বিপ্লবের পর থেকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য এটি সর্বনিম্ন ভোট।এতে রাইসি পেয়েছেন ২ কোটি ৮৯ লাখ ৩৩ হাজার ৪ ভোট। প্রাক্তন রেভোলিউশনারি গার্ড কমান্ডার মহসেন রেজাই ৩৪ লাখ ১২ হাজার ৭১২ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন।

মডারেট প্রার্থী আবদলনসওয়ার হেমমতী ২৪ লাখ ২৭ হাজার ২০১ ভোট এবং, রক্ষণশীল আমির হোসেন গাজিজাদেহ হাশেমি ৯ লাখ ৯৯ হাজার ৭১২ ভোট পেয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল রেজা রহমানী ফজলি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন,"আমাদের এমন কোন নিয়ম লঙ্ঘন হয়নি যা নির্বাচনের ফলাফলের উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলতে পারে"।

শনিবার এই ঘোষণার আগে রেজাই, হেমমতী ও হাশেমী রাষ্ট্রপতি হিসাবে রাইসিকে সম্মতি দিয়েছেন।রাইসি আগস্টের শুরুতে এই পদ গ্রহণ করবেন। সংস্থার দ্বারা টানা তৃতীয় মেয়াদে নির্বাচনের অনুমতি না পাওয়ায় মধ্যস্থ রাষ্ট্রপতি হাসান রুহানীর স্থলাভিষিক্ত হবেন।

শনিবার রুহানি বলেছিলেন, "আমি জনগণকে তাদের পছন্দের জন্য অভিনন্দন জানাই"। রাইসির নির্বাচিত বিষয়টি রক্ষণশীল এবং কট্টরপন্থী শিবির দ্বারা ক্ষমতার একীকরণের চিহ্ন হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে।

যা ইতিমধ্যে সংসদ নিয়ন্ত্রণ করে এবং সম্ভবত বিচার বিভাগেরও প্রতিস্থাপন হতে পারে। রাইসি কালো রঙের পাগড়ী পরিধানের মাধ্যমে জনগণকে বোঝাতে চেয়েছেন যে তিনি ইসলামের নবী মুহাম্মদের বংশধর। ফলে সে দেশের পরবর্তী শীর্ষস্থানীয় নেতা হিসাবেও দেখা যায়।

১৯৮৮ সালে রাজনৈতিক বন্দীদের গণ-মৃত্যুদণ্ডে তাঁর ভূমিকার জন্য আমেরিকা তাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছিল।এক তদন্তে ২০০৯ সালে সবুজ আন্দোলনের জড়িত থাকাদের মৃত্যুদন্ড কার্যকরের জন্য তার প্রভাব ছিল। যাদের অধিকাংশই কিশোর ছিল।




শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ