About Us
কে এ এম সাকিব - (Rajshahi)
প্রকাশ ১৯/০৬/২০২১ ১২:২৯পি এম

রাবিতে শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবিনার

রাবিতে শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবিনার Ad Banner
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) অনুষ্ঠিত হল 'শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন মানসিক স্বাস্থ্য: সংকট ও উত্তরণ' শীর্ষক ওয়েবিনার।স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেইভ রাবি চ্যাপ্টারের আয়োজনে শুক্রবার (১৮ জুন) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে এই ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) প্রফেসর ড. আনন্দ কুমার সাহা। সেইভ রাবি চ্যাপ্টারের মডারেটর গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা সহকারী অধ্যাপক মামুন আবদুল কাইয়্যুমের সঞ্চালনায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর মুর্শিদা ফেরদৌস বিনতে হাবিব, সেইভ এর ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর আইনুল ইসলাম এবং ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট অধ্যাপক তানজীর আহমেদ তুষার।

এই সময় শিক্ষার্থীরা তাদের পড়াশুনা নিয়ে হতাশা ও দুশ্চিন্তাসহ মানসিক সমস্যার বিষয়সমূহ তুলে ধরেন। পরবর্তীতে আলোচকরা শিক্ষার্থীদের মানসিক সমস্যার বিষয়গুলো আলোচনা করে তা থেকে উত্তরণে বিভিন্ন বিষয় আলোকপাত করেন। এই সময় শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের যত্নের গুরুত্বারোপ সহ মানসিকভাবে দৃঢ় থাকতে উৎসাহিত করেন।

চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানী ও রাবি মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. তানজীর আহমেদ তুষার বলেন, সব পরিস্থিতিতে খাপ খাইয়ে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। বর্তমানে বাঁচতে হবে, তাই পড়াশোনাটা চালু রাখা উচিত। পাশাপাশি ক্যারিয়ারের জন্য কাজ করে গেলে ব্যস্ত রাখা যাবে নিজেকে। এক্ষেত্রে আটটি বিষয়ে ফোকাস করার পরামর্শ দেন তিনি, এসব হলো ব্যাক্তিগত, পারিবারিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক, পেশাগত, আত্মীয়তা, বুদ্ধিবৃত্তিক, আধ্যাত্মিক, মনোযোগ সহকারে কাজ করার ও চিন্তামুক্ত হওয়ার চর্চা।

মনো বিজ্ঞানী অধ্যাপক মুর্শিদা ফেরদৌস বিনতে হাবিব বলেন, মানসিক স্বাস্থ্য একটি অবস্থা যা ঠিক থাকলে সকল কাজ ও কর্তব্য সুষ্ঠুভাবে পালনের পাশাপাশি নিজেদের মধ্যে গুড ফিল পাওয়া যায়। আমাদের এখন সাইকোলজিকাল ইমিউনিটিও জরুরি হয়ে উঠেছে। ডোপামিন,সেরেটোনিন,এন্ডোরফিন নামক ইতিবাচক হরমোন মানসিক সুস্থতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অতীত নিয়ে ভাবলে হতাশা এবং ভবিষ্যত নিয়ে ভাবলে উদ্বিগ্নতা দেখা দেয়। উচিত হবে খাওয়াদাওয়া এবং পড়াশোনার দিকে মনোযোগ দেয়া। জীবন একটাই,জীবনকে ভালোবাসা, নিজের ভালো থাকা দিয়ে অন্যকে ভালো রাখার জন্য কাজ করতে হবে।

সেইভ এর ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর ড. আইনুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারী পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলার প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে আমাদেরকে। প্রায়োগিক বিষয়গুলোর দিকে গুরুত্ব দেওয়া, যেমন মনের যত্ন নেওয়া। নিজের দক্ষতা বাড়ানোর জায়গাগুলোতে গুরুত্ব দিতে হবে। কোনো পরিস্থিতি থেকে পালিয়ে যাওয়া যাবে না।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন দায়িত্বে থাকা উপাচার্য ড. আনন্দ কুমার সাহা, পরীক্ষা বিষয়ক সিদ্ধান্ত হলেও হল খুলে দিতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করেন। তবে খুুব দ্রুত ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ