About Us
Rakib Monasib
প্রকাশ ০৮/০৬/২০২১ ০৩:২৩পি এম

ভ্রমণের জন্য দুয়ার উন্মুক্ত করে দিল স্পেন

ভ্রমণের জন্য দুয়ার উন্মুক্ত করে দিল স্পেন Ad Banner

বিশ্বের সব দেশের টিকা গ্রহণকারী পর্যটকদের জন্য দুয়ার খুলে দিয়েছে স্পেন। কভিড-১৯ মহামারীর কারণে দেশটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন খাত যে পরিমাণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা পুষিয়ে নেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে ইউরোপীয় দেশটি। গতকাল সীমান্ত উন্মুক্ত করার পর পর্যটকদের নতুন প্রবাহের মাধ্যমে দেশটির পর্যটন খাত ঘুরে দাঁড়াবে বলেও প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। খবর এএফপি।

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্যারোলিনা ডারিয়াস বলেন, স্পেন এখন নিরাপদ গন্তব্য। পর্যটন শিল্পে স্পেনের যে বৈশ্বিক নেতৃত্ব ছিল, তা আবার পুনরুদ্ধারের প্রক্রিয়ায় আছি আমরা।

তবে স্পেনে প্রবেশের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম বেঁধে দেয়া হয়েছে। পর্যটককে অবশ্যই কভিড-১৯ প্রতিরোধী টিকা গ্রহণ করতে হবে। তবে ইউরোপের নাগরিক যারা এখনো টিকা পাননি, তারা স্পেনে প্রবেশের ৭২ ঘণ্টা আগে পিসিআর পরীক্ষা বা অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করিয়ে নিতে পারেন। পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এলে স্পেনে প্রবেশে আর বাধা নেই তাদের।

এদিকে স্পেন পর্যটকদের জন্য সীমান্ত উন্মুক্ত করলেও যুক্তরাজ্য স্পেনকে এখনো ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা থেকে বাদ দেয়নি। তাই কোনো ব্রিটিশ পর্যটক স্পেন ভ্রমণে গেলে নিজের দেশে ফিরে তাকে নির্দিষ্ট সময় কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। পাশাপাশি নিজের খরচে কভিড পরীক্ষাও করাতে হবে। অথচ প্রতি বছর যুক্তরাজ্য থেকেই সবচেয়ে বেশি পর্যটক স্পেনে ভ্রমণ করেন।

ফলে ব্রিটিশ পর্যটক থেকে বঞ্চিত হবে দেশটি। এর পরেও দেশটি আসন্ন গ্রীষ্মে বিপুল পরিমাণ পর্যটকের প্রত্যাশা করছে। স্পেনের ট্রাভেল এজেন্ট ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট জোস লুইস প্রিয়েতো বলেন, এ শিল্পে দারুণ পুনরুদ্ধার আশা করা হচ্ছে। কয়েক সপ্তাহ ধরেই ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির ট্যুর অপারেটররা স্পেনের ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর স্পেনের সব এলাকার হোটেল-রেস্তোরাঁগুলো খুলে দেয়া হয়েছে। মহামারীর কারণে বন্ধ থাকা পথেও যাত্রা শুরু করেছে উড়োজাহাজ পরিচালনা সংস্থাগুলো। বার্লিন, ফ্রাংকফুর্ট, লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন শহর থেকে ফ্লাইট যাচ্ছে স্পেনের বিমানবন্দরগুলোয়। বন্দরগুলো থেকে গতকাল বিলাসবহুল প্রমোদতরীগুলোর ভ্রমণও শুরু হয়েছে।

এদিকে স্পেনের বিষয়ে ব্রিটেনের সিদ্ধান্তকে হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছেন স্পেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তবে ব্রিটিশ পর্যটকদের আগ্রহ জাগাতে নানা রকম সুবিধা দিচ্ছে স্পেন। যেমন গত মাস থেকে পিসিআর পরীক্ষা ছাড়াই তাদের প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে।

স্পেনের পর্যটনবিষয়ক মন্ত্রী ব্রিটেনের সিদ্ধান্তে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন। ক্যানারি দ্বীপের মতো স্থান, যেখানে কভিড সংক্রমণের মাত্রা খুবই কম, সেটিকেও কেন ব্রিটেন তাদের সবুজ তালিকায় রাখতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে, তা নিয়েও বিস্মিত তিনি। অবশ্য লন্ডন জানিয়েছে, আগামী তিন সপ্তাহ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার কোনো পরিকল্পনা নেই।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ