About Us
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Rk osman Ali (Dinajpur-6) - (Dinajpur)
প্রকাশ ০৫/০৫/২০২১ ০৩:০২পি এম

দিনাজপুরে পত্রিকা বিক্রি করেই সংসার চলে উজ্জ্বলের

দিনাজপুরে পত্রিকা বিক্রি করেই সংসার চলে উজ্জ্বলের Ad Banner

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার সংবাদপত্র বিক্রেতা মোঃ উজ্জ্বল  (৩৫) পত্রিকা বিক্রি করে এখন স্বাবলম্বী। উজ্জলের ফুলবাড়ি বাড়ি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের । জীবিকার তাগিদে ২০০১ সালে প্রথম শুরু করে পত্রিকা বিক্রির কাজ।

অভাব-অনটনের সংসারে যখন তিনি জর্জরিত তখনই বিরামপুর সংবাদপত্র এজেন্ট আবু হোসেনের সহযোগিতায় বেছে নেন সংবাদপত্র বিক্রির কাজ। প্রথমে মাত্র ২০ টাকায় (সারাদিন চুক্তি) হিসাবে এ কাজ শুরু করে। দীর্ঘদিন এভাবে পত্রিকা বিক্রি করে আসেন তিনি।পরে কমিশন ভিত্তিতে পত্রিকা বিক্রির টাকা পেতে থাকেন।বর্তমানে সারাদিন সে ৩০০/৩৫০ কপি পত্রিকা বিক্রি করে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা উপার্জন করে। বর্তমানে নির্বাচনী আমেজে পত্রিকা বিক্রিও বেড়েছে। পরিশ্রমী উজ্জ্বল  প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন স্থানে যথাসময়ে পাঠকের কাছে পত্রিকা পৌঁছে দেন সবার আগে।বিরামপুর সংবাদপত্র এজেন্ট মোঃ আবু হোসেন, উজ্জ্বল সৎ ও পরিশ্রমী ছেলে বলে তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

উজ্জ্বল জানান, প্রথম দিকে পত্রিকা বিক্রিতে নিজেকে খুব ছোট মনে হত।ধীরে ধীরে সকল শ্রেণীর গ্রাহকদের সাথে পরিচয় হওয়ায় এখন বেশ সাচ্ছন্দবোধ করি।প্রতিদিন পত্রিকা পৌছে দেয়ার সুবাদে পরিচিতি লাভ করেছি দিনাজপুর-৬ আসনের সাংসদ মোঃ শিবলী সাদিক সহ উপজেলার সকল প্রকার সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে।ফলে এ পেশা তার কাছে এখন লজ্জা নয় এ পেশাতে সে বেশ সম্মানবোধ করছে। ১৮ বছরের বেশী সময় ধরে সংবাদপত্র বিক্রি করছেন তিনি। সবার মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিয়ে উজ্জ্বল যে মহৎ কাজটি করছেন তা শুধু নিজের জন্যই নয় সমাজ ও দেশের জন্য কল্যাণকরও। আরও জানা সে দেশের ৬৪ জেলার নাম সহ ৬৪ জেলার সকল থানার ও পৃথিবীর সকল দেশের নাম বলতে পারে। 

প্রতিদিন সংবাদপত্র বিক্রি করে যা উপার্জন হয় তা দিয়ে তার ভালোই চলে। একজন বেকার যুবক ইচ্ছে করলেই তার মতো পরিশ্রম করে কর্মসংস্থান তৈরী করতে পারে। ফিরিয়ে আনতে পারে সংসারের সচ্ছলতা । এই কাজটি করে উজ্জল তার সংসারের দরিদ্রতা মোচন করে কিছু টাকা সঞ্জয়ও করেছেন। তৈরী করেছেন নতুন বাড়ি। 

উজ্জ্বলের  এখন সংবাদপত্র বিক্রির কাজটি বেশ ভালো লাগে। মানুষের কাছে খবর পৌচ্ছে দেওয়া তার পেশার থেকে নেশা হয়ে গেছে বলে সে জানায়। সমাজের কোনো বিত্তশালী মানুষ বা প্রতিষ্ঠান তাকে আর্থিক সহায়তা করলে তিনি নিজেই সংবাদপত্রের এজেন্সি নিয়ে এলাকার বেকার যুবকদের এ পেশায় নিয়োজিত করবেন বলে স্বপ্ন দেখেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ