About Us
MD Yousuf Ali Bilas
প্রকাশ ০২/০৫/২০২১ ১২:২৩পি এম

কাবা ঘর সম্পর্কে অবাক করা তথ্যঃ কেনো কাবা এক চুল পরিমানও নড়েনি ?

কাবা ঘর সম্পর্কে অবাক করা তথ্যঃ কেনো কাবা এক চুল পরিমানও নড়েনি ? Ad Banner

কাবাঘর পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন  নিদর্শন গুলোর মধ্যে অন্যতম ।যে কাবা ঘরের দিকে  হয়ে সমগ্র পৃথিবীর মানুষ পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় করে। 

চলুন জেনে নেওয়া যাক  অলৌকিক, ঐতিহাসিক ও পবিত্র কাবাঘর সম্পর্কে  কিছু  অবাক করা তথ্য!

 

 কাবা শব্দের অর্থ কি?

 

  কাবা শব্দের অর্থ হলো ফুলে ওঠা.  পৃথিবী সৃষ্টির পরবর্তী সময় যখন সমগ্র পৃথিবী জলের তলায় ডুবে ছিল. তখন  সর্বপ্রথম  যে স্থানে পৃথিবীর চর জেগে ওঠে  ঠিক সেই জায়গাতে কাবা ঘর নির্মাণ করা হয়। সে কারণে কাবাঘরকে "middle of earth" বলা হয়ে থাকে।

 

 কাবা ঘর ধ্বংস এবং পূর্ণ নির্মাণ করা হয়েছে

 

  কাবা ঘর কে কেন্দ্র করে  সমগ্র বিশ্বে মানব সভ্যতা গড়ে উঠেছিল। এবং সে কারণে বিভিন্ন জাতি বিভিন্ন সময়ে কাবাঘরকে তাদের নিজস্ব সংস্কৃতির আওতাধীন করে ব্যবহার করেছে। এবং যার ফলে একেক সময় একেক ধরনের বিবাদে জড়িয়েছে তারা। সেকারণে কালের বিবর্তনে কাবাঘর মোট বারবার ধ্বংস এবং বারবার পুনর্নির্মাণ করা হয়।

 

 হযরত ইব্রাহিম আলাই সালাম এর সময় কালে কাবাঘর একদম নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল। হযরত ইব্রাহিম আলাইহি ওয়াসাল্লাম  যখন নবুয়ত প্রাপ্ত হন তখন  আল্লাহ তাকে কাবাঘর পুনঃনির্মাণের দায়িত্ব আরোপ করেন। নিশ্চিহ্ন কাবাঘর ঠিক কোথায় স্থাপিত হয়েছিল সে সম্পর্কে কোন ধারণা ছিল না ।ইব্রাহিম আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর পরবর্তীতে আল্লাহতালা ফেরেশতাদের মাধ্যমে ইব্রাহিমকে নির্দেশনা দিয়ে কাবাঘরের স্থানটি দেখিয়ে দেন। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো সৃষ্টির সময় কাল থেকে কাবা ঘর ঠিক যে  বিন্দু বিন্দুতে অবস্থান করে এখনো সেই বিন্দু থেকে একচুল নড়েনি।

 

পৃথীবির প্রথম ঘর কাবা

 

কাবা ঘরকে সৃষ্টির প্রথম ঘর বলা হয়ে থাকে। এবং সমগ্র মানবজাতি কাবাঘর দেখেই  বাসস্থান নির্মাণের ধারণায নেয়  বলে ধারণা করা হয় 

 

কাবার বয়স

কেও কাবার বয়স কয়েক বছর ভেবে থাকলে ভুল করছেন । কেননা কাবার বয়স প্রায় ৪ বিলিয়ন বছর । কেননা পৃথীবি সৃষ্টির সময়কালেই ফেরেশতারা কাবা নির্মান করেছিলেন ।

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ

KAZ
প্রকাশ ০৯/০৫/২০২১ ১১:৫৪পি এম