About Us
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১
সত্যজিৎ দাস - (Habiganj)
প্রকাশ ৩০/০৪/২০২১ ০৩:১৯পি এম

সাংবাদিকতার শেষকৃত্য

সাংবাদিকতার শেষকৃত্য Ad Banner

সাংবাদিকতা? তার শেষকৃত্য তো বহু আগেই সম্পন্ন হয়েছে। এখন তার ভুত দেখে অগ্রদানী বামনকে আচ্ছা করে বকে দিয়ে লাভ কি!! রাষ্ট্র-কর্পোরেশন আর পেশার পদস্থগণ যখন সাংবাদিকতাকে হত্যা করেছে তখন একে মুক্ত করার কোন রাজনৈতিক-সামাজিক তৎপরতা আদতে কোন তরফেই ছিল না। মত প্রকাশের সবচেয়ে বড় কাঠামোগত অংশীদারকে অরক্ষিত রেখে রাজনীতি কি সম্ভব? এই প্রশ্নটি একবারও উত্থাপিত হয়নি। লড়াইয়ের প্রশ্ন তো দূর!! 


বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের চাকরি গেলে এই ঘোর নিশ্চুপিকরণের কালেও কিছু সামাজিক প্রতিবাদ  হয়। ন্যুনতম বুদ্ধিজীবীদের বিবৃতি তো চোখে পড়ে। রিটও হয়।সাংবাদিকতায় গণছাঁটাইয়ের সুনামি হয়েছে করোনাকালে। সমাজের অপরাপর অংশর কোথাও কোন টু শব্দ হয়নি। 


সাংবাদিকতা এখন বাকস্বাধীনতা, সেন্সরশিপ এসব নিয়ে ভাবে না। সাংবাদিক মানেই আসলে গণছাঁটাই আতঙ্কে ধুঁকতে থাকা একটি নাম। মাস শেষে মজুরীটা মিলবে তো? ন্যুনতম গ্রাসটা তিনি তার সন্তানকে তুলে দিতে পারবেন তো? 

পদস্থ- প্রিভিলেজড ও হলুদগণ আমার উদাহরণ নয়। আমি ৯০ শতাংশের কথাই বলছি, যাদের জীবন ও জীবিকা রাষ্ট্র-কর্পোরেশনের তরফে এরা শোষণ করেন। কেউ সাংবাদিকতাকে দালালির টুলস মনে করেন। কেউ শুধু চাকরি। 


ফলে সাংবাদিকতার শেষকৃত্য তো হয়েই গেছে। কিন্তু  সমাজ-সম্প্রদায়ের মূক-বোধিরীকরণ কি গাল দিয়ে থামবে?    লেখকঃ ✍️ আরিফ রেজা মাহমুদ ✍️


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ