About Us
Tanvir - (Dhaka)
প্রকাশ ০১/০৪/২০২১ ০৮:৪৪পি এম

১২ ঘণ্টা পর পুকুরে নিখোঁজ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার

১২ ঘণ্টা পর পুকুরে নিখোঁজ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার Ad Banner

ঢাকার সাভারে তুরাগ নদের পানি পাড় ভেঙে প্রবল বেগে একটি পুকুরে প্রবেশ করায় নিখোঁজের১২ ঘণ্টা পর এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিস। 

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আশুলিয়ার দক্ষিণপাড়া শুটিংবাড়ি এলাকার একটি পুকুর থেকে ওই ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই ব্যক্তি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা ঘটে।  নিহত কালাম হোসেন আশুলিয়ার দক্ষিণপাড়া এলাকার বাসিন্দা। 

টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার লিডার কামরুল হাসান বলেন, ‘তুরাগ নদীর সঙ্গেই প্রায় আড়াই বিঘা জায়গাজুড়ে ৫০-৬০ ফুট গভীর ওই পুকুর। এটিতে মাছ ধরার জন্য তারা বেশ কয়েক দিন ধরে শ্যালো মেশিন দিয়ে সেচছিলেন। কামালও শ্যালো দিয়ে পানি সেচার কাজ করতেন। কিন্তু হঠাৎই পুকুরের পাড় নদীর পানির চাপে ভেঙে যায়। এরপরই প্রবল বেগে পানি পুকুরে ঢোকে। আর পানির তোড়ে কামাল ভেসে যান। কিছুটা দূরে থাকা কয়েকজন মেশিন ও পানির অস্বাভাবিক আওয়াজ শুনে দৌড়ে আসেন। তখন তারা অনেক ডাকাডাকি করেও কামালকে পাননি।’ 

তিনি জানান, সকালে আমাদের পাঁচ সদস্যের ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে পৌঁছে তল্লাশি শুরু করে। এলাকার ২০-২৫ জন লোকও খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। প্রায় দুই ঘণ্টা পর সাড়ে ১০টার দিকে কচুরিপানা সরাতে গিয়ে ওই ব্যক্তির মরদেহ পাওয়া যায়। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়। 

আশুলিয়া থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) পবিত্র কুমার জানান, ময়নাতদন্ত না করার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কামালের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।  ঢাকার সাভারে তুরাগ নদের পানি পাড় ভেঙে প্রবল বেগে একটি পুকুরে প্রবেশ করায় নিখোঁজের ১২ ঘণ্টা পর এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিস। 

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আশুলিয়ার দক্ষিণপাড়া শুটিংবাড়ি এলাকার একটি পুকুর থেকে ওই ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা হয়।  বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই ব্যক্তি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা ঘটে।  নিহত কালাম হোসেন আশুলিয়ার দক্ষিণপাড়া এলাকার বাসিন্দা। 

টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার লিডার কামরুল হাসান  বলেন, ‘তুরাগ নদীর সঙ্গেই প্রায় আড়াই বিঘা জায়গাজুড়ে ৫০-৬০ ফুট গভীর ওই পুকুর। এটিতে মাছ ধরার জন্য তারা বেশ কয়েক দিন ধরে শ্যালো মেশিন দিয়ে সেচছিলেন। কামালও শ্যালো দিয়ে পানি সেচার কাজ করতেন। কিন্তু হঠাৎই পুকুরের পাড় নদীর পানির চাপে ভেঙে যায়। এরপরই প্রবল বেগে পানি পুকুরে ঢোকে। আর পানির তোড়ে কামাল ভেসে যান। কিছুটা দূরে থাকা কয়েকজন মেশিন ও পানির অস্বাভাবিক আওয়াজ শুনে দৌড়ে আসেন। তখন তারা অনেক ডাকাডাকি করেও কামালকে পাননি।’ 

তিনি জানান, সকালে আমাদের পাঁচ সদস্যের ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে পৌঁছে তল্লাশি শুরু করে। এলাকার ২০-২৫ জন লোকও খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। প্রায় দুই ঘণ্টা পর সাড়ে ১০টার দিকে কচুরিপানা সরাতে গিয়ে ওই ব্যক্তির মরদেহ পাওয়া যায়। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়। 

আশুলিয়া থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) পবিত্র কুমার জানান, ময়নাতদন্ত না করার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কামালের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ