বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Verified আই নিউজ বিডি ডেস্ক
প্রকাশ ১৩/০২/২০২১ ০১:৫০পি এম

বিক্ষোভে লাঠিচার্জে আহত বিএনপি'র কয়েকজন

বিক্ষোভে লাঠিচার্জে আহত বিএনপি'র কয়েকজন Ad Banner

বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব বাতিলের উদ্যোগের প্রতিবাদে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দলটির নেতাকর্মীদের বিক্ষোভে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এতে আহত হয়েছেন কয়েকজন। 

শনিবার বিক্ষোভে সোয়া ১২টার দিকে প্রধান অতিথি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খোন্দকার মোশারফ হোসেনের বক্তব্য চলাকালে বিএনপি নেতাকর্মীর ওপর চড়াও হয় পুলিশ।  শুরুতে হাতাহাতি হলেও এক পর্যায়ে লাঠিচার্জ করে সমাবেশ ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা চালায় পুলিশ। এ সময় কয়েক জনকে রক্তাক্ত দেখা গেছে। 

সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবেই চলছিল এই বিক্ষোভ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রেস ক্লাবের সামনে জড়ো হতে শুরু করে বিএনপি ও দলটির সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।  তাদের হাতে ছিল জিয়ার খেতাব বাতিল চেষ্টার প্রতিবাদে বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত ব্যানার ও ফেস্টুন। তাদের স্লোগানে স্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠে প্রেসক্লাব চত্বর। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতেও স্লোগান দিতে থাকেন তারা। শুরু থেকেই সমাবেশস্থলে সতর্ক অবস্থানে দেখা যায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের।   

এমন অবস্থান নেয়ার বিষয়ে প্রেসক্লাব এলাকায় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ কর্মকর্তা হাসনাত তালুকদার বলেন, ‘আমরা নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছি। কমেন্ট দেয়ার রাইট নেই।  মঙ্গলবার জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের কথা জানায়। 

জামুকার ৭২তম সভায় বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি শরিফুল হক ডালিম, নূর চৌধুরী, রাশেদ চৌধুরী ও মোসলেহ উদ্দিনের রাষ্ট্রীয় খেতাবও বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়।  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও জামুকা সদস্য শাজাহান খান নিউজবাংলাকে বলেছিলেন, ‘জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর খুনের মদতদাতা। সেই হিসেবে এই পাঁচ জনের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়েছে।’  জামুকার এই প্রস্তাব মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।  এই সিদ্ধান্তের প্রতি ক্ষোভ জানিয়ে আসছে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। এর অংশ হিসেবেই ঢাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ করল তারা। 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ