• 0
  • 0
Abdul majid
Posted at 12/01/2021 07:54:am

একসঙ্গে কমপক্ষে ১০০ জনের সঙ্গে কথা বলা যায়

একসঙ্গে কমপক্ষে ১০০ জনের সঙ্গে কথা বলা যায়
করোনা মহামারিতে যে প্রযুক্তি বর্তমান হট কেক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে তার নাম জুম অ্যাপ।

এই মুহূর্তে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে জনপ্রিয় কথা বলার মাধ্যম হচ্ছে জুম অ্যাপ। এই অ্যাপের প্রধান বিশেষ সুবিধা একসঙ্গে কমপক্ষে ১০০ জনের সঙ্গে কথা বলা যায়। লকডাউনের মধ্যে এটাকেই অনেকে বেছে নিয়েছে।

ওয়ার্ক ফ্রম হোম এর জন্য এই মাধ্যমকে বেছে নেয়া হচ্ছে। ছাত্রদের মধ্যেও এই অ্যাপের জনপ্রিয়তা বেশি। এ কারণে ১০ মিলিয়ন থেকে ৩০০ মিলিয়নে পৌঁছে গেছে এর ব্যবহারকারী।

প্রশ্ন উঠেছে এই অ্যাপ কতটা নিরাপদ?   বিশ্বব্যাপী নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই অ্যাপের সাহায্যে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চুরি হয়ে যাচ্ছে। নিয়ে যাচ্ছে অন্যপক্ষ। তাদেরকে বলা হয় হ্যাকার। তারাই ইমেইল ও পাসওয়ার্ড জেনে যাচ্ছে নিমিষে।

অনেক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞের মতে জুম এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য নিতে ওৎ পেতে বসে থাকে একটি গ্রুপ। তাদের কাজই হচ্ছে চুরি করা। জুম কর্তৃপক্ষ এদেরকে নিবৃত্ত করতে পারেনি। অসংখ্য অভিযোগ যাচ্ছে জুম কর্তৃপক্ষের কাছে। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে এখন এ নিয়ে হাজারও প্রশ্ন।  

ভারত সরকার ইতিমধ্যেই এই অ্যাপটি সরকারি কোন কাজে ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অতি সম্প্রতি বলেছে, জুম অ্যাপ মোটেও নিরাপদ নয়। তাই সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।  

স্মরণ করা যায় যে, মার্কিন মুলুকেও এ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। বলা হচ্ছে এর সুরক্ষা ও গোপনীয়তা রক্ষার মত নিশ্চয়তা নেই। একারণেই নিউইয়র্কের শিক্ষা দপ্তর স্কুলগুলোতে এর ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দিয়েছে।  

উল্লেখ্য যে, জুম কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যেই কিছু গোয়েন্দা ফার্মকে বেশ কিছু অভিযোগ খতিয়ে দেখতে নিয়োগ দিয়েছে। চীনা বংশদ্ভুত একজন মার্কিন ব্যবসায়ী এর মালিক। চীনেই তৈরি হয়েছে ভিডিও ভিত্তিক এই অ্যাপটি। একারণেই সন্দেহ জমাট হচ্ছে দিনদিন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ