• 0
  • 0
কাওসার জামিল
Posted at 11/01/2021 08:21:am

বিয়ের সম্পর্ক-যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের সাথে নয়

বিয়ের সম্পর্ক-যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের সাথে নয়

বিয়ের সম্পর্ক যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের সাথে নয় বলেছেন, বাংলাদেশের জনপ্রিয় ইসলামিক বক্তা মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী ।

গতকাল(১০ জানুয়ারি) রোববার ‘টাইমলি ম্যারেজ’ নামে দেয়া এক ফেসবুক স্টাটাসে একথা বলেন তিনি। এক দীর্ঘ স্টাটাসে মাওলানা আজহারী লিখেন, সময়ের কাজ সময়ে করতে হয়। বিয়ের সম্পর্ক-যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের সাথে নয়। ক্যারিয়ার গড়ার জন্য পড়ে রয়েছে সারা জীবন। যৌবন আল্লাহর দেয়া এমন এক অমূল্য নেয়ামত, যেটা নবায়নযোগ্য নয়। তাই, যৌবনের শুরুতেই বিয়ে করুন এবং হালাল পন্থায় যৌবনকে উপভোগ করুন।’

তিনি লিখেন, ‘অন্ন, বস্ত্র এবং বাসস্থানের মতোই বিয়েও একটি বেইসিক নিড বা মৌলিক অধিকার। এটি একটি সহজাত বিষয় যেটাকে ইগনোর করার কোন সুযোগ নেই। বাংলাদেশের আবহাওয়া ও পরিবেশে একটি ছেলে অথবা মেয়ে গড়ে পনেরো-ষোল বছর বয়সেই পরিপূর্ণ অ্যাবিলিটি লাভ করে। কিন্তু তারা বিয়ে করে আরো দশ-পনেরো বছর পর। কারণ বিয়ের প্রশ্ন উঠলেই আসে সামাজিক যতো নিয়ম কানুনের দোহাই।’

সন্তানের বিয়ের ক্ষেত্রে অভিভাবকরা উদাসীন মন্তব্য করে মাওলানা আজহারী লিখেন, সন্তানের খাদ্য, শিক্ষা কিংবা চিকিৎসা ইত্যাদি চাহিদা মেটাতে, অভিবাবকগণ যতোটা সজাগ ও সিরিয়াস। প্রাপ্তবয়স্ক সন্তানদের বৈধভাবে যৌন চাহিদা মেটানোর বন্দোবস্ত করাতে তারা ঠিক ততোটাই উদাসীন। নানান অজুহাত, বাহানা আর সামাজিকতার দোহাই দিয়ে, বিয়েকে দিনকে দিন জটিল থেকে আরো জটিলতর করা হচ্ছে।

তিনি লিখেন, একটি মুসলিম সমাজে এটা অপ্রত্যাশিত, অমানবিক এবং সুস্পস্ট মানবাধিকার লঙ্ঘন। সমাজে বিয়েকে অনেক কঠিন করে দেয়ায় অবৈধ সম্পর্ক বাড়ছে উল্লেখ করে মাওলানা আজহারী লিখেন, মৌলিক এই চাহিদা মেটানোর বৈধ উপায় যেহেতু রুদ্ধ, তাই অবৈধ উপায়গুলো সেই স্থান দখল করে নিবে, এটাই তো স্বাভাবিক। ফলে হারাম রিলেশনশিপ, পর্ণগ্রাফি উপভোগ এবং ধর্ষনের মত জঘন্য ঘটনাও আজ দেশের রুটিন নিউজে পরিণত হয়েছে।

এসব থেকে সন্তানদের বাঁচাতে অভিভাবকদের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে মাওলানা আজহারী লিখেন, নতুন প্রজন্মকে এই ধ্বংস আর অবক্ষয় থেকে রক্ষা করতে, অভিবাবকদের আরো দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে। তাই আসুন, আমরা অভিবাবকগণও আরো একটু মানবিকতার চর্চা করি। বৈধভাবে যৌন চাহিদা মেটানোর সুযোগকে, প্রাপ্তবয়স্ক সন্তানদের জন্য আরো সহজলভ্য করে তুলি।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ