Tuesday -
  • 0
  • 0
Benin Snigdha
Posted at 10/01/2021 01:28:pm

সৌন্দর্য বর্ধক : প্রাকৃতিক উপাদান

সৌন্দর্য বর্ধক : প্রাকৃতিক উপাদান

নিজেকে সুন্দর রাখতে কে না চায়! কিন্তু অনেকেই মনে করেন, সৌন্দর্য মেইনটেইন করতে হলে বিউটি পার্লার বা রূপচর্চা কেন্দ্রে গিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় এবং প্রচুর অর্থ ব‍্যয় করতে হয়; যা একেবারেই ভুল ধারণা। আমাদের আশেপাশের পরিবেশ অর্থাৎ প্রতিদিনকার খাদ্য এবং ব‍্যবহার্য উপাদানগুলো দিয়েই এটা করা সম্ভব। তাহলে কি উপায়? চলুন দেখে নিই, একেবারে  ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে কম সময় ও অর্থ ব‍্যয় করে কি করে নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপন করা যায় -

নারকেলের ব্যবহার দৈনন্দিন খাদ্যতালিকা এবং রূপচর্চার উপাদান হিসেবে প্রচুর পরিমাণে নারকেল এর ব্যবহার করতে পারেন।  নিয়মিত নারকেলের পানি পান ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। নারকেলে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যতন্তু, ভিটামিন, পুষ্টি উপাদান এবং খনিজ পদার্থ থাকে যা স্বাস্থ্যের পাশাপাশি সুন্দর ত্বক গঠনে বিশেষ সহায়ক। রান্না করার তেল হিসেবে নারকেলের তেল ব্যবহার করলে সেটি আরও স্বাস্থ্যকর। নারকেল খাদ্য হিসেবে আপনার পছন্দ না হলে, স্বাস্থ্য গঠন এবং সুন্দর ত্বকের জন্য ফল হিসেবে আপনি নারকেল গ্রহণ করতে পারেন।

যোগব্যায়াম যোগব্যায়াম এমনি এক শক্তিশালী শরীরচর্চার মাধ্যম যা মনকে শান্ত করে এবং স্নায়ুগুলোকে শীতল করে তোলে। এ কারণে যোগব্যায়ামের মাধ্যমে সুন্দর উজ্জ্বল ত্বক, শান্ত মানসিকতা এবং সুঠাম স্বাস্থ্য গড়ে তোলা সম্ভব। যোগব্যায়াম হজমশক্তি বাড়ায়, বার্ধক্যজনিত সকল সমস্যা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করে, মুখে ব্রণ হতে বাঁধা দেয় এবং বিভিন্ন শারীরিক এবং মানসিক সমস্যা দূর করে।

আয়ুর্বেদ আয়ুর্বেদিক প্রসাধনী সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক হওয়ায় সমগ্র ভারতসহ সারা বিশ্বেই এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আয়ুর্বেদিক প্রসাধনী নানা উপকারী দিকের জন্য বিখ্যাত। আয়ুর্বেদিক প্রসাধনী মূলত সুস্থ, উজ্জ্বল এবং প্রাণবন্ত ত্বক গঠনে সাহায্য করে ত্বকের কোনোরকম ক্ষতি ছাড়াই।

ম্যাসাজ ম্যাসাজ থেরাপি সারা বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত। ম্যাসাজ প্রচুর স্বাস্থ্যগুণ সমৃদ্ধ এবং এগুলো শুধুমাত্র আপনার ত্বক এবং চুল নয় বরং সমস্ত শরীরকেই পরিশুদ্ধ করে তোলে। আপনি বাড়িতেই নিজের মতো বিভিন্ন ম্যাসাজ প্রয়োগ করতে পারেন। যেমন রাতে ঘুমানোর আগে আলতো করে সারা দেহে নারকেল তেল ম্যাসাজ করে ঘুমিয়ে পড়ুন। এর ফলে আপনার শরীরে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং আপনার ত্বক হবে নরম, প্রাণবন্ত এবং উজ্জ্বল।

চোখের সৌন্দর্য চর্চা  চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে চোখকে প্রয়োজনীয় বিশ্রাম দিন। অর্থাৎ প্রতিদিন কমপক্ষে নিয়ম করে ৮ ঘন্টা ঘুমান। সকালে ঘুম থেকে উঠে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চোখ পরিষ্কার করুন। এবং দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ছোট মাছ ও রঙিন শাকসবজি, দেশীয় ফলমূল রাখুন। এছাড়া উজ্জ্বল সুন্দর চোখের জন্য চোখের নিচের পাতায় তিলের তেল ব্যবহার করতে পারেন।

অ্যারোমা থেরাপি ফেসিয়াল যেকোনো অ্যারোমা তেল বা সুগন্ধি তেল ত্বকের মৃতকোষ দূর করা, ত্বক পরিষ্কার, হাইড্রেট এবং ত্বক প্রশান্ত রাখে। এসব ঘরোয়া ফেসিয়াল শুধু বাহ্যিক সৌন্দর্যই বাড়ায় না বরং স্নায়ুবিক সুস্থতা বাড়ায় এবং ত্বকের নানা সমস্যা ভেতর থেকে দূর করে। যার ফলে ত্বক থেকে ময়লা দুর হয়, ত্বকের দৃঢ়তা বৃদ্ধি পায়, ত্বকের ঝুলে পড়া রোধ করে এবং উজ্জ্বল প্রাণবন্ত ত্বক গঠনে সাহায্য করে।

নিয়মানুবর্তী জীবনযাপন ভালো স্বাস্থ্যের মূল ভিত্তি হচ্ছে সুশৃঙ্খল জীবনযাপন। নিয়মিত ৬-৮ ঘণ্টা ঘুম, সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠা, পুষ্টিকর এবং স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যগ্রহণ, মূলত এগুলোই হল স্বাস্থ্যবান এবং সুন্দর চেহারার গোপন রহস্য। এই নিয়মানুবর্তিতা শুধু যে বাহ্যিক সৌন্দর্যই বৃদ্ধি করে তা নয় বরং অভ্যন্তরীণ সৌন্দর্যও বাড়ায়।

চুলের যত্ন আপনি যদি আপনার চুলের স্বাস্থ্য ধরে রাখতে চান তাহলে আপনাকে একটি রুটিনের আওতায় আসতে হবে এবং তা যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে। যেমন -

▪চুলের ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধির জন্য নিয়মিত চুলে নারকেল তেল ব্যবহার করুন।

▪প্রতিদিন পানি দিয়ে চুল ধুয়ে পরিষ্কার রাখুন এবং সপ্তাহে কেবল দুইদিন শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।

▪ব্রাহ্মী এবং আমলকীর নির্যাসসমৃদ্ধ প্রাকৃতিক উপাদানের মৃদু প্রকৃতির শ্যাম্পু ব্যবহার করুন এবং কেমিক্যালসমৃদ্ধ শ্যাম্পু এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

চুলের সমস্যা সমাধানে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই তাদের অনুজ্জ্বল চুল নিয়ে হীনমন্যতায় ভোগেন। আপনি আপনার রান্নাঘরের দিকে তাকালেই এই সমস্যার একাধিক সমাধান পাবেন। অর্থাৎ এমন কিছু উপাদানের সন্ধান পাবেন যা আপনাকে দেবে সুন্দর, ঝকঝকে এক রাশ ঘন কালো চুল। খুবই সহজ কিছু উপায় হল-

▪কিছু পরিমাণ দই নিয়ে আপনার চুলে লাগান এবং কয়েক মিনিটের জন্য রেখে দিন ওভাবেই। এর ফলে আপনার চুল হবে ঘন এবং উজ্জ্বল।

▪লেবুর রস দিয়ে চুলের ত্বকে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। এর ফলে চুলের ত্বকের ময়লা পরিষ্কার হবে এবং খুশকি দূর হবে।

প্রচুর পানি পান আপনার সুস্থ দেহ, সুন্দর চেহারা ধরে রাখার জন্য পর্যাপ্ত পানি পানের কোনো বিকল্প নেই। প্রতিদিন কমপক্ষে ৮ গ্লাস বিশুদ্ধ পানি পান করুন। আপনার দেহের পরিশুদ্ধতা, দেহ থেকে বর্জ্য পদার্থের পরিপূর্ণ নিষ্কাশন, উজ্জ্বল এবং প্রাণবন্ত ত্বকের জন্য বিশুদ্ধ পানি পান অত্যন্ত জরুরি। তাছাড়া চুলের সৌন্দর্য ধরে রাখতেও বিশুদ্ধ পানির বিকল্প নেই।

এগুলো মূলত প্রাকৃতিক উপায়ে সুন্দর চোখ, উজ্জ্বল ত্বক এবং ঝকঝকে ঘন কালো চুল পাওয়ার রহস্য। আর সুন্দর চোখ, চুল ও ত্বক হলো বাহ‍্যিক সৌন্দর্যের প্রধান তিনটি অনুষঙ্গ। এ তিনটি অনুষঙ্গকে সুন্দর এবং সুস্থ রাখুন, তাহলে ভেতর থেকেই সৌন্দর্য প্রকাশ পাবে। 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ