Feedback

খোলা কলাম

ফেসবুক ভেঙ্গে দিয়েছে সকল প্রাচীর,কিন্তু এর বিপদও কম নয়!

ফেসবুক ভেঙ্গে দিয়েছে সকল প্রাচীর,কিন্তু এর বিপদও কম নয়!
November 18
04:24pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore

ফেসবুক সকল প্রাচীর ভেঙ্গে দিয়েছে, এর বিপদও কম নয়!  মানুষ যাই আবিস্কার করেছে তার ইতিবাচক ও নেতিবাচক --দুটো দিকই লক্ষ্য করা যায়।  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো মানব সভ্যতার যোগাযোগকে অনেক বেশি সহজতর করেছে,  ভেঙ্গে দিয়েছে মনুষ্যসৃষ্ট ভৌগলিক ও রাজনৈতিক দেয়াল, তবে এর ক্ষতিকর দিকও কম নয়।

বর্তমান  যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে আমাদের জাতীয় জীবনে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যমগুলো একে অপরের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে যথেষ্ট পজিটিভ ভুমিকার রাখছে- এটি  যেমন সত্য তেমনি কিছু ক্ষেত্রে ফেসবুক সামাজিক সম্পর্ক, সমাজ জীবন ও মননশীলতার ওপর  বিরূপ প্রভাব ফেলছে। গোটা পৃথিবীতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ৭০শতাংশ মানুষ সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যমে সংযুক্ত রয়েছে। তরুণদের মধ্যে এ হার আরও বেশি, প্রায় ৯০শতাংশ।  বাংলাদেশে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাদের মধ্যে ৮০শতাংশ মানুষের রয়েছে ফেসবুক  অ্যাকাউন্ট।১৩ থেকে ১৭ বছরের ছেলেমেয়েদের মধ্যে ৬০ শতাংশের বেশি অন্তত একটি সামাজিক  যোগাযোগ প্রোফাইল রয়েছে। তারা দিনে দুঘন্টার বেশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ব্যয় করে। ছাত্র-শিক্ষক, চিকিৎক, প্রকৌশলী, শিশু-কিশোর, গৃহিনী, পেশাজীবী--এদের  বেশিরভাগেরই এখন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট রয়েছে।।২০১৭সালের এপ্রিল মাসের জরিপ অনুযায়ী  ঢাকা ও আশপাশের অঞ্চল মিলিয়ে প্রায় ২ কোটি ২০ লাখ মানুষ সক্রিয়ভাবে ফেসবুক ব্যবহার  করছে ( বণিক বার্তা ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭)বিশ^ব্যাপী ইউটিউব ব্যবহারকারী মানুষের সংখ্যা  ১৫০কোটি, হোয়াটসঅ্যাপ ১২০ কোটি ফেসবুক মেসেঞ্জার ১২০ কোটি ও উইচ্যাট  ব্যবহারকারী ৯৩ কোটি ৮০ লাখ ( আগস্ট ২০১৭ সূত্র ইন্টারনেট) 

আমরা জানি, মার্ক জাকারবার্গ নামের এক যুবক ২০০৪ সালের ফেব্রæয়ারি মাসে ফেসবুকের  যাত্রা শুরু করান। তিনি হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ কক্ষে এটি চালু করেছিলেন এবং তখন এটি কেবল ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্যই সীমিত ছিল। ইন্টারনেটভিত্তিক এই  সামাজিক চ্যানেল এত দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে যে, চালু হওযার মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যেই  হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ধেকেরও বেশি শিক্ষার্থী এর সদস্য হয়। আরো কিছু দিনের মধ্যে  কয়েক মিলিয়ন মানুষ ফেসবুকের গ্রাহক তালিকায় যুক্ত হন।এভাবে এ চ্যানেল পারস্পরিক যোগাযোগের এক শক্তিশালী মাধ্যমে পরিণত হয়। বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৮০০মিলিয়ন  মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছে। এর ৫০ শতাংশ প্রতিদিন এ সাইটটি ব্যবহার করছে। গড়ে একজন  ফেসবুক ব্যবহারকারীর ১৩০ জন বন্ধ রয়েছে। ।২১৩টি ফেসবুক ব্যবহারী দেশের মধ্যে বাংলাদেশের  অবস্থান ৫৬। ব্যবহারকারীর সংখ্যার দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইন্দোনেশিয়ার পরে ভারতের অবস্থান।  

আমরা ফেসবুবক ব্যবহার করছি কেন? এর উত্তর খুব সহজ কিংবা বহুবিধ উত্তর রয়েছে। অলস দেহে  সোফায় বসে কিংবা বিছানায় গা এলিয়ে দিয়ে , শীতের রাতে কাঁথা কম্বলের মধ্যে লুকিয়ে  ফেসবুকে চাপ দিয়ে দেখতে পাচিছ কানাডা কিংবা অষ্ট্রেলিয়ার কোন বন্ধু কি করছেন,  সেখানকার আবহাওয়া, রাজনৈতিক পরিস্থিতি, আমেরিকায় রাস্তায় কি হচেছ ইত্যাদি থেকে  শুরু করে দেশের কোন জেলায় কি হচেছ, রাজধানীর কোন এলাকায় কি হচেছ, কোন সন্ত্রাসী ধরা  পড়েছে কেন পড়েছে , কিভাবে পড়েছে , কোন আত্মীয় বা বন্ধু-বান্ধবের কি কি সুসংবাদ  হলো, কি কি দু:সংবাদ হলো সবই এই হাতের মুঠোয় দেখতে পাচিছ। এমন আর কোন মাধ্যমে  আছে যে এসব দেশ-বিদেশের সব ভাল-খারাপ, রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক, সামাজিক, ব্যক্তিগত  সংবাদ আমাদের আঙ্গুলের চাপের অপেক্ষায় থাকে আমাদের স্মুখে উপস্থিত হওযার জন্য? টিভিতে  তো এতসহজে এতকিছু জানা যায়না। এছাড়াও তো বিনোদেনর বিভিন্ন ব্যবস্থা আছে,  গান, নাটক, সিনেমার অংশবিশেষ, সাহিত্য, রস, ছবি, সবই পাওয়া যায় ফেসবুকে।ফেসবুকের  মাধ্যমে অনেক দিন আগের কোন বন্ধু বা আত্মীয়কে খুঁজে পাওয়া কিংবা নতুন কারো সঙ্গে  যোগাযোগ স্থাপন করা আমাদের অনেকের ক্ষেত্রে ঘটেছে।ফেসবুকের মাধ্যমে তথ্যের আদানপ্রদান।

খবর পাওয়া ইত্যাদি কিংবা অনেকে ফেসবুেেকর মাধ্যমে বাণিজ্য প্রসার করেছেন।বর্তমানের  কভিড-কালে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো সব বন্ধ। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া, শিক্ষক ও সহপাঠী ও বন্ধু-  বান্ধবদের সাথে যোগাযোগ নেই কিন্তু ফেসবুক সেই শুন্যস্থানগুলো পূরন করছে। দেশের বহু  শিক্ষক এটিকে এখন পাঠশালা বানিয়েছেন। আমরা নিশ্চয়ই লক্ষ্য করছি ঢাাক সিটি থেকে শুরু  করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষক-শিক্ষিকাগন কিভাবে তাদের পাঠ নিয়ে শিক্ষার্থীদের সামনে  উপস্থিত হচেছন, ফেসবুককে শ্রেণিকক্ষ বানিয়ে ফেলছে। চমৎকার উদ্ভাবন বটে!  অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীদের দেখেছি নিয়মিত নিজের মতামত, পছন্দ , অপছন্দ নিয়ে গল্প,  প্রবন্ধ ও কবিতা লেখেন। পত্রিকার বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করছেন ফেসবুক পেইজ। এটিও এক  ধরনের সৃজনশীলতা! অনেকেই আবার এগুলোতে কমেন্ট করছেন, পাল্টা লেখা লিখছেন। যেন এক  সাহিত্যের আসর! অনেকে এটিকে প্রচার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছেন, কেউ কেই সমাজের  কানায় কানায়, অলিত গলিতে লুকিয়ে থাকা , ঘটে যাওযা অসঙ্গতি ছবিসহ তুলে এনে  কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। সমাজের নিষ্ঠুরতার ছবি, যৌন হয়রানির ছবি ও  সংবাদ,প্রভাবশালীদের দৌরাত্ম যেগুলোা সাধারণভাবে জনসমক্ষে নিয়ে আসা সম্ভব ছিলনা  সেগুলোর সচিত্র প্রতিবেদন দেখা যায় ফেসবুকে। এগুলো কেউ কেউ কোন উদ্দেশ্যে নিয়ে, উদ্দেশ্য  ছাড়া, নিজ ইচছায়, অভ্যাসবশত কিংবা শখের বসবর্তী হয়ে এগুলো করে থাকেন। যে যেভাবেই  করুন না কেন এতে সমাজ, দেশ ও মানবতা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে উপকৃত হয় এবং হচ্ছে। আমরা  দেখেছি আট বছরের শিশু জাহিদ কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের মাথা মালিশ আর  নানারকম গান শুনিয়ে দিন চালাতো। তারই একটি গান ’মধু হই হই------বিষ হাওয়াইলা’  পর্যটকদের দৃষ্টি কাড়ার পর ইমরান হোসেন ও তার পাঁচ বন্ধুর করা ভিডিওর কল্যাণে সে পৌঁছে  গেল লাখো মানুষের কাছে। এখন সে একটা হোটেলে চাকরি করে, গান শোনায় ও স্কুলে যায়। তার  জীবনে বইছে পরিবর্তনের হাওয়া । বগুড়ার হিরো আলম জাতীয়ভাবে পরিচিত, কারণ এই  ফেসবুক। অর্থাৎ সমাজ ও দেশের অপরিচিত কোন ব্যক্তি বা ঘটনাকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক  পর্যায়ে নিয়ে আসে ফেসবুক। 

ফেসবুকের অস্যংখ্য ধরনের ব্যবহার ফেসবুককে অনেকটা নিয়ন্ত্রণহীন অবস্থায় নিয়ে এসেছে।  আর তাই এর যথেচছ ও যাচ্ছেতাই ব্যবহার অনেক ক্ষেত্রে ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্রের বিপদও ডেকে  আনছে।একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীর রয়েছে কযেক হাজার বন্ধু-বান্ধব, বান্ধবী। তাদের সাথে  বায়বীয় যোগাযোগ বেড়েছে কিন্তু বিপদে পড়লে তাদের কাউকেই পাওযা যায়না অনন্য  দু’একটি নাটকীয় ঘটনা ছাড়া। কেউ কেউ শুধু একটি লাইক দিয়ে, দু:খ প্রকাশ করে বন্ধুত্বের পাওনা মিটিয়ে দেন। এটি হয়েছে এক ধরনের ফ্যাশন, মানুষ প্রকৃত বন্ধুত্ব যাদের সাথে ঘন্টার  পর ঘন্টা আড্ডা চলে, গলপ করা হয়, চা পান করা, খুটিনাটি বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়  আবার এক টেবিলে বসে খাওয়া হয়। কারুর কোন বিপদ এলে সবাই ঝাপ দিয়ে পড়ে, বন্ধুর পাশে  দাঁড়ায়, বন্ধুকে বিপদ থেকে উদ্ধার করে। এগুলো তো আর ফেসবুক বন্ধুর মাধ্যমে সম্ভব নয়, এজন্য  আমসরা ফেসবুককে দায়ী করতেও পারছিনা। আমরা এটিকে যেভাবে ব্যবহার করি। এভাবে ব্যবহার  করে করে অনেকেই এক সময় ফেসবুক অ্যাডিকটেড হয়ে পড়েন। নিজের দৈনন্দিন জীবন ও নিজের  ওপর নিয়ন্ত্রণও কেউ কেউ হারিয়ে ফেলেন।পারিবারিক সময় দেয়া থেকে শুরু করে অনেক গুরুত্বপূর্ন  কাজেও ফাঁকি দিয়ে থাকেন যারা ফেসবুক অ্যাডিকটেব হয়েছেন। এসব ব্যক্তিগন সমাজ ও  পরিবার থেকে এক ধরনের বিচিছন্ন জীবন যাপন করেন।তাদের দাম্পত্য জীবনও থাকে ভাঙ্গা। সন্দেহ  প্রবণতা কাজ করে তাদের মধ্যে।এছাড়াও নিজেরা নানাধরনের শারীরিক সমস্যয় ভুগে থাকেন  যেমন ওজন বেড়ে যাওয়া, ঘুম না হওয়া, মেরুদন্ড ও পিঠে ব্যাথা ও চোখের ক্ষতি। দেহ ও পেশির  পর্যাপ্ত সঞ্চালন না থাকার ফলে এই সমস্যগুলোতে তারা ভুগে থাকেন। এজন্য কি আমরা  ফেসবুককে দায়ী করব, ফেসুবক আবিষ্কারককে দায়ী করবো না যারা ব্যবহার করছি তারাই দায়ী? 

এসব কারণে বিভিন্ন মহল থেকে দাবী উঠেছে ফেসবুক নিয়ন্ত্রণের। ফেসবুক নিয়ন্ত্রণ মানে  অন্যের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ। সোশ্যাল মিডিয়া অবদমন বা সেন্সরশিপের ক্ষেত্রে চীনই    চ্যম্পিয়ন।তারা চায় তারা ভেতের যাই করুক বিশ্ব যেন সেগুলো না জানে। গোটা পৃথিবীর  শাসক শ্রেণি তা সে ধনতান্ত্রিক, সমাজতান্ত্রিক, গনতান্ত্রিক বা অন্য যে কোন তান্ত্রিকই  হোক না কেন সবার একটিই কাজ সেটি হচেছ জনগনকে, ভিন্নমতকে কঠোরহস্তে  নিষ্ঠুরভাবে দমন করা। আমরা যা চাই তাই হতে হবে, আমরা যা ভাবি এর বাইরে কোন ভাবনা নেই।  আর আমরা এগুলো যেভাবে ম্যনেজ করি, নিয়ন্ত্রণ করি সেগুলো যেন আর কেউ জানতে না পারে,  দেশের বাইরে জানতে না পারে। তাই তারা আবার বিভিন্ধসঢ়; ধরনের আইন তৈরি করেন। সমাজতন্ত্র রক্ষার  নামে ১৯৮৯ সালে চীনের তিয়েনানমেন স্কোয়ারে বিক্ষোভে অংশ নেয়া গনতন্ত্রকামীদের ওপর ২০০৯  সালের ৪ঠা মে চীন সরকার কি নিষ্ঠুর অপারেশন চালিয়ে ছিল তা পৃথিবী ভুলে যায়নি! বিক্ষোভে  অংশ নেয়া নিষিদ্ধ ঔপন্যাসিক মা জিয়ান ২০০৯সালে, বেইজিং কোমা’ বইয়ে লিখেছেন, বিশ  বছর আগে তিয়ানানমেন হত্যাকান্ড বেইজংকে ছারখার করে দিয়েছিল। হাজার হাজর নিরস্ত্র  নাগিরক খুন হয়েছিল। লাখ লাখ মানুষে জীবনধারা উল্টে গিয়েছিল। তিয়ানানমেন বসন্তের ২০  বছর পুর্তির ঠিক দুদিন আগে চীন টুইটার পুরোপুরি বন্ধ করে দেয় কারন তারা মনে করেছিল  তিয়ানানমেন কান্ড নিয়ে সমালোচনা দমন করা কঠিন হবে। তারা সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যম ঠিকই বন্ধ করে দিয়েছিল, এখনও সেখানকার জনগন সহজে সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যম ব্যবহার করতে পারেনা কিন্তু তাদের নিষ্ঠুরতা কি পৃথিবীর অজানা থেকে গেছে?  তাই পাল্টা প্রশ্ন জাগে ফেসবুকের ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হলেই কি এসব বন্ধ হবে?  আমরা সিনেমায় দেখি সমাজপতিদের বিরুদ্ধে কেউ টু শব্দটি করতে পারেনা, সব মানুষ তাদের  অত্যাচারে অতিষ্ঠ, সকলের প্রান ওষ্ঠাগত। সবশেষে দেখা যায় তাদের চরম পরিণতি যেটি বাস্তব  জীবনে খুব একটা হয়না কিন্তু মানুষ ঐসব দৃশ্য দেখে ক্ষনিকের জন্য হলেও এক ধরনের তৃপ্তি পায়।  ফেসবুকেও দেখছি সে রকম একটি ভূমিকা আছে। দুর্নীতিতে হাবুডুবু খাওযা সমাজে  সাধারন মানুষ কোন কথা বলতে পারেনা, কিন্তু ফেসবুকের আশ্রয়ে তারা অনেকে অনেক কথাই  বলে ফেলেন। যেটি বিভিন্নকালের সাহিত্য করেছে।

তবে, এই বলাটার মধ্যে সহনশীলতা,  মাত্রাবোধ, শালীনতা থাকতে হয়। সেটি অনেকেই রক্ষা করেন না। কারন এটি যে, একেবারে  সাধারনের কাছে চলে গেছে। এটিও একটি বাস্তবতা। এটি নিয়ন্ত্রণ করার অর্থাৎ সবাই এটি  ব্যবহার করবে তা নিয়ন্ত্রণ করার কোন পথ বোধ হয় নেই। আবার এটিও তো সত্য যে, মোবাইল  ট্রাকিং করে বড় বড় অপরাধী ও সন্ত্রাসীদের ধরা হয়, যা সাধারনভাবে সম্ভব ছিলনা। কাজেই এটি  নীরবে এক ধরনের আর্শীবাদও বটে সন্ত্রাস দমনের ক্ষেত্রে। তাই মোটাদাগে বলা যায়না যে,  মোবাইল নিষিদ্ধ করা বা এর ওপর কঠোরতা আরোপ করা হলে সমাজ অনেক উন্নত হবে,  সমাজ মানবিক হবে।


মাছুম বিল্লাহ

(শিক্ষা বিশেষজ্ঞ ও গবেষক)

ব্র্যাক শিক্ষা কর্মসূচিতে কর্মরত প্রেসিডেন্ট: ইংলিশ

টিচার্স এসোসিয়েশেন অফ বাংলাদেশ ( ইট্যাব) এবং সাবেক

ক্যাডেট কলেজ,রাজউক কলেজ ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যিালয় শিক্ষক ,

মোবাইল:০১৭১৪-০৯১৪৩১

ইমেইল: masumbillah65@gmail.com

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

করোনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মেস ভাড়া মওকুফ চায় হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

করোনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মেস ভাড়া মওকুফ চায় হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

ভাস্কর্য নির্মাণ সম্পর্কে যা বললেন আজহারী

ভাস্কর্য নির্মাণ সম্পর্কে যা বললেন আজহারী

"গৌরির নাম বদলে আয়েশা, পরতে হবে বোরখা"-স্ত্রীকে বললেন শাহরুখ

"গৌরির নাম বদলে আয়েশা, পরতে হবে বোরখা"-স্ত্রীকে বললেন শাহরুখ

২৫ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

২৫ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

মসজিদের কক্ষে প্রেমিকার সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে ধরা ইমাম

মসজিদের কক্ষে প্রেমিকার সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে ধরা ইমাম

১৪৪ তলা বিল্ডিং গুলিয়ে ফেলা হলো মুহূর্তের মধ্যে

১৪৪ তলা বিল্ডিং গুলিয়ে ফেলা হলো মুহূর্তের মধ্যে

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জের আলোচিত শিশু সানজিদা হত্যার দায় স্বীকার করলো গর্ভধারিনী মা

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জের আলোচিত শিশু সানজিদা হত্যার দায় স্বীকার করলো গর্ভধারিনী মা

এবার 'বাবু খাইছো' গান গেয়ে আলোচনায় হিরো আলম

এবার 'বাবু খাইছো' গান গেয়ে আলোচনায় হিরো আলম

চেতনার ভিসুভিয়াস ! তানিয়া সুলতানা হ্যাপি

চেতনার ভিসুভিয়াস ! তানিয়া সুলতানা হ্যাপি

মৃত্যুকে ভয় না করে সেনাদের যুদ্ধ জয়ের প্রস্তুতি নিতে বললেন শি

মৃত্যুকে ভয় না করে সেনাদের যুদ্ধ জয়ের প্রস্তুতি নিতে বললেন শি

ইরানের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী আততায়ীর হাতে নিহত

ইরানের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী আততায়ীর হাতে নিহত

জয়পুরহাট জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে সভাপতি আ’লীগের, সম্পাদক বিএনপির

জয়পুরহাট জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে সভাপতি আ’লীগের, সম্পাদক বিএনপির

সন্তান রেখে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানি

সন্তান রেখে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানি

৭১ টিভি চ্যানেলে ৫৬ টি বিদ্যালয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে বরগুনায় শিক্ষকদের মানববন্ধন

৭১ টিভি চ্যানেলে ৫৬ টি বিদ্যালয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে বরগুনায় শিক্ষকদের মানববন্ধন

শীতের সকালেও উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন মধুমিতা

শীতের সকালেও উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন মধুমিতা

সর্বশেষ

ভারতের চিন্তা সেই স্মিথই, ‘গ্রিপ’ পাল্টাতেই সফল

ভারতের চিন্তা সেই স্মিথই, ‘গ্রিপ’ পাল্টাতেই সফল

শুধু ওষুধি গাছ দিয়ে ৫০০ রোগ সারাতে পারেন এই নারী

শুধু ওষুধি গাছ দিয়ে ৫০০ রোগ সারাতে পারেন এই নারী

সামাজিক উৎসব নিষিদ্ধ হতে পারে ব্রিটেনে, আগামী ৫ মাস

সামাজিক উৎসব নিষিদ্ধ হতে পারে ব্রিটেনে, আগামী ৫ মাস

বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী

সংক্রমণের সব রেকর্ড ভাঙল আমেরিকা, ২৪ ঘণ্টায় ২ লক্ষ ছাড়াল আক্রান্ত

সংক্রমণের সব রেকর্ড ভাঙল আমেরিকা, ২৪ ঘণ্টায় ২ লক্ষ ছাড়াল আক্রান্ত

সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচনের আগে ভাগেই প্রচারণার আমেজ

সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচনের আগে ভাগেই প্রচারণার আমেজ

পানিতে সারা-বরুণের ঠোঁটঠাসা চুমু, "কুলি নম্বর ১"এর ট্রেলার নিয়ে হইচই

পানিতে সারা-বরুণের ঠোঁটঠাসা চুমু, "কুলি নম্বর ১"এর ট্রেলার নিয়ে হইচই

২০২০ সালে বিচ্ছেদ হলো যাদের

২০২০ সালে বিচ্ছেদ হলো যাদের

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন

ভাস্কর্য বিতর্কে কঠোর অবস্থানে সরকার

ভাস্কর্য বিতর্কে কঠোর অবস্থানে সরকার

দেশের সবচেয়ে বড় রেলসেতু নির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে আজ থেকে

দেশের সবচেয়ে বড় রেলসেতু নির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে আজ থেকে

চাটখিল উপজেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদকের করোনা

চাটখিল উপজেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদকের করোনা

দেশে বিশ্ববিদ্যালয় নাকি কারিগরি শিক্ষার প্রসার প্রয়োজন বেশি?

দেশে বিশ্ববিদ্যালয় নাকি কারিগরি শিক্ষার প্রসার প্রয়োজন বেশি?

ধর্ষিত বউ- ১০ম পর্ব

ধর্ষিত বউ- ১০ম পর্ব

রোহিঙ্গা গণহত্যা, মামলা লড়তে ৫ লাখ ডলার দিল বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা গণহত্যা, মামলা লড়তে ৫ লাখ ডলার দিল বাংলাদেশ