Feedback

জেলার খবর, জাতীয়, আরও...

যেতে চেয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে, পুলিশ পাঠিয়ে দিলো পরপারে

যেতে চেয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে, পুলিশ পাঠিয়ে দিলো পরপারে
October 18
12:13pm
2020
Younus Ali
Trishal, Mymensingh:
Eye News BD App PlayStore

রায়হানের মা বলেন, ছেলে-মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্ট করেছি। আমার সব স্বপ্ন ভেঙে দিয়েছে এসআই আকবর ও তার সহযোগীরা  যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদ (৩৪)। চাচা ময়নুল ইসলাম কুদ্দুছের স্পন্সরশিপে ইমিগ্র্যান্ট ভিসায় তার পরিবারের ২৩ সদস্যের একসঙ্গে দেশটিতে যাওয়ার কথা ছিল। এ সংক্রান্ত সব প্রস্তুতিও প্রায় শেষ হয়ে গেলেও চলমান করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সেই প্রক্রিয়া কিছুটা পিছিয়ে যায়। আগামী নভেম্বরে মার্কিন দূতাবাসে তার কাগজপত্র জমা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, পুলিশের এসআই আকবর হোসেন ভুইয়া ও তার সহযোগীরা রায়হান ও তার পরিবারের এ স্বপ্ন ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে।   

এমন আক্ষেপ করে রায়হানের মা সালমা বেগম বলেন, ছেলে-মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্ট করেছি। আমার সব স্বপ্ন ভেঙে দিয়েছে এসআই আকবর ও তার সহযোগীরা। এমন পরিণতির কথা জীবনেও ভাবিনি। 

তিনি জানান, ২০১৭ সালে দিকে রায়হান বিয়ে করেন। ছোটখাটো চাকরি করলেও তাদের সংসার ছিল সুখের। তার আয়ের ওপরেই সংসার চলত। অনটনের সংসারে একটু ভালো থাকার আশার পাশাপাশি রায়হানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ছেলেকে আমেরিকায় পাঠানোর ব্যবস্থা করি তার এক চাচার মাধ্যমে।   

তিনি আরও বলেন, “ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র প্রস্তুত করে রাখা হয়েছিল। সারাজীবন কষ্ট করে মানুষ করা ছেলেটাকে অকারণে হারাতে হয়েছে আমার। পুলিশের কাছে কান্নাকাটি করে পায়ে ধরলেও তাকে বাঁচতে দেওয়া হয়নি। এভাবে যেন আর কোনও মায়ের বুক খালি না হয় সেজন্য হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই আমি।”  সালমা বেগমের দাবি, “আমার ছেলে ছিনতাইকারী নয়। তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে হত্যা করেছে। দশ হাজার টাকার জন্য তারা আমার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। রায়হানের দুই মাসের একটি শিশু রয়েছে। আমি মা হয়ে কীভাবে এসব সহ্য করবো?” 

নিহত রায়হানের চাচা হাবিবুল্লাহ বলেন, তার বিরুদ্ধে যে থানায় মামলার কথা বলা হচ্ছে, সে তথ্যও সঠিক নয়। রায়হানের বিরুদ্ধে বিচারাধীন মাদক মামলাটিও পরিকল্পিত ছিলো।   

স্বজনরা জানান, রায়হানের বাবা রফিকুল্লাহ ছিলেন বিজিবি’র হাবিলদার। কয়েক বছর আগে মারা তিনি যান। তারা দুই ভাই দুই, বোনের মধ্যে রায়হান ছিলেন সবার বড়।  জানা গেছে, রায়হানের বাবা রফিকুল্লাহ ছিলেন বিজিবির সৈনিক। রায়হান যখন মায়ের গর্ভে ছিলেন তখন তার বাবা মারা যান। এরপর থেকে শুরু হয় রায়হানদের পরিবারের সংগ্রাম। বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, দুই মাস বয়সী মেয়ে আলফাকে কোলে নিয়ে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন রায়হানের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি।   

তান্নি বলেন, “অভাব-অনটন থাকলেও আমাদের সংসার ছিল সুখের। সেই সুখ নষ্ট করে দিয়েছে পুলিশ। আমাদের মেয়ের কাছ থেকেও তার বাবাকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তারা পুলিশের পোশাক পরে অমানুষের কাজ করেছে।” 

প্রসঙ্গত, নিহত রায়হানের আখালিয়া নেহারীপাড়ার বাসিন্দা ছিলেন। সিলেট নগরীর স্টেডিয়াম মার্কেট এলাকায় একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে  চাকরি করতেন তিনি। ঘটনার দিনও (শনিবার) যথারীতি কাজে যান। রাতে বাড়িতে না ফেরায় স্বজনরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। নিহতের চাচা মো. হাবিবুল্লাহ বলেন, “রাত চারটার দিকে রায়হান একজন পুলিশ সদস্যের মুঠোফোন দিয়ে তার মাকে কল করে বলেন,  ‘আমারে বাঁচাও, ১০ হাজার টাকা লইয়া তাড়াতাড়ি ফাঁড়িতে আও।’ এরপর পরিবারের সদস্যরা নিশ্চিত হন রায়হানকে বন্দরবাজার ফাঁড়িতে আটকে রাখা হয়েছে। খবর পেয়ে নগরীর কুদরত উল্লাহ জামে মসজিদে ফজরের নামাজ পড়ে পাশে ফাঁড়িতে রায়হানের সন্ধানে গেলে ডিউটিরত কনস্টেবল বলেন- ‘সবাই ঘুমে। সকালে আসেন।” 

তিনি আরও অভিযোগ করেন, রায়হানের পায়ের তলা ও হাঁটুর নিচসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার হাতের নখ উপড়ে ফেলা হয়েছে। ফাঁড়ির ভেতর পুলিশের নির্যাতনেই তার মৃত্যু হয়েছে।  রায়হানের মৃত্যুর ঘটনায় রবিবার (১২ অক্টোবর) দিবাগত রাত আড়াইটায় সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করন তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি। এর আগে ছিনতাইয়ের সময় গণপিটুনিতে রায়হানের মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ দাবি করলেও নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর ঘটনাটি তদন্তের আশ্বাস দেন বাহিনীটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। 

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

শিক্ষক সংকট করোনা পরবর্তি সময়ে হাবিপ্রবিতে তীব্র সেশনজটের আশঙ্কা

শিক্ষক সংকট করোনা পরবর্তি সময়ে হাবিপ্রবিতে তীব্র সেশনজটের আশঙ্কা

বীমা শিল্পে নারী জাগরণের পথিকৃৎ রাবেয়া বেগম রুনা

বীমা শিল্পে নারী জাগরণের পথিকৃৎ রাবেয়া বেগম রুনা

হাজী সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইরফান সেলিমের এক বছরের কারাদণ্ড

হাজী সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইরফান সেলিমের এক বছরের কারাদণ্ড

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড

ঠাকুরগাঁওয়ে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে ৩৩ দিন ধরে কলেজ ছাত্রীর অনশন

ঠাকুরগাঁওয়ে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে ৩৩ দিন ধরে কলেজ ছাত্রীর অনশন

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে  আজ জানা যাবে

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে আজ জানা যাবে

১লা নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শ্রেণির সিলেবাস বাস্তবায়ন কার্যক্রম

১লা নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শ্রেণির সিলেবাস বাস্তবায়ন কার্যক্রম

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

এসএসসি পরীক্ষার হবে না হবে জানুন

এসএসসি পরীক্ষার হবে না হবে জানুন

কাঠালিয়ায় নদীর পাড় থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার

কাঠালিয়ায় নদীর পাড় থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার

সঙ্গীত অঙ্গনে বিস্ময়কর বালক "ভাবের মামুন"

সঙ্গীত অঙ্গনে বিস্ময়কর বালক "ভাবের মামুন"

স্কুল-কলেজেও সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে!

স্কুল-কলেজেও সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে!

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

সর্বশেষ

শিশুর বিকাশ বাড়বে সুষম খাদ্য আর খেলাধুলাতেই

শিশুর বিকাশ বাড়বে সুষম খাদ্য আর খেলাধুলাতেই

বরগুনায় প্রতিমা বানাতে ব্যবহার করা হয়েছে পবিত্র কালিমা খচিত বইয়ের পৃষ্ঠা

বরগুনায় প্রতিমা বানাতে ব্যবহার করা হয়েছে পবিত্র কালিমা খচিত বইয়ের পৃষ্ঠা

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তি: জবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তি: জবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

বানারীপাড়ায় দলিল উদ্দিন মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ আনোয়ারের ইন্তেকাল

বানারীপাড়ায় দলিল উদ্দিন মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ আনোয়ারের ইন্তেকাল

হলোনা বাংলাদেশ-ভারতের মিলনমেলা, ইছামতিতে অশ্রুসিক্ত নয়নে দেবী দূর্গাকে বিসর্জন দিল সনাতন ধর্মাবলম্বীরা

হলোনা বাংলাদেশ-ভারতের মিলনমেলা, ইছামতিতে অশ্রুসিক্ত নয়নে দেবী দূর্গাকে বিসর্জন দিল সনাতন ধর্মাবলম্বীরা

রংপুরে ৩০ সেকেন্ডে উধাও সাড়ে ১২ লাখ টাকা, গ্রেফতার

রংপুরে ৩০ সেকেন্ডে উধাও সাড়ে ১২ লাখ টাকা, গ্রেফতার

বাঘারপাড়ায় কৃতি শিক্ষার্থীদর সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট বিতরণ

বাঘারপাড়ায় কৃতি শিক্ষার্থীদর সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট বিতরণ

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় আশাশুনির অতিদরিদ্র ১৭’শ পরিবারের মাঝে অর্থ সহায়তা

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় আশাশুনির অতিদরিদ্র ১৭’শ পরিবারের মাঝে অর্থ সহায়তা

আশাশুনিতে চেয়ারম্যান ডালিমের বিরুদ্ধে মামলা, মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন

আশাশুনিতে চেয়ারম্যান ডালিমের বিরুদ্ধে মামলা, মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন

গৌরনদীতে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু

গৌরনদীতে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

কাপড়ের মাস্ক ব্যবহারে যেসব নিয়ম মানা জরুরি

কাপড়ের মাস্ক ব্যবহারে যেসব নিয়ম মানা জরুরি

ভ্রমণ করার সময় বমি ও মাথা ঘোরা দূর করতে যা করবেন

ভ্রমণ করার সময় বমি ও মাথা ঘোরা দূর করতে যা করবেন

ফুটবল টুর্নামেন্ট: হাজিরহাট চ্যাম্পিয়ন

ফুটবল টুর্নামেন্ট: হাজিরহাট চ্যাম্পিয়ন

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড