Azizur Rahman babu - (Shariatpur)
প্রকাশ ০৯/০৯/২০২২ ০৪:০৭পি এম

মূল সমস্যা - বেকারত্বে

মূল সমস্যা - বেকারত্বে
ad image
সমাজের উঠন্ত বয়সের সন্তানেরা লেখাপড়া শিখে চাকুরী না পেলে, বেকারত্বের জ্বালায় আত্মসমালোচনা করতে থাকে। ভাবনায় কোন রেজাল্ট না পেলে, তখন সে হতাশ হয়ে পড়ে । ফেসবুকের মুখাপেক্ষী হয়। নয়তো কোন অপকর্মের সাথে পরোক্ষ অথবা প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িয়ে পড়ে।

আবার বিশেষ শ্রেণীর সন্তানদের মাথায় ইবলিশ কারখানা খুলে বসে। এই কারখানা থেকে পরিস্থিতি বুঝে একেক সময় একেকটা শয়তানি কর্মকাণ্ড উত্পাদিত হয়।

এঁরা বেকার বসে বসে করবেটা কী ? এদের এই কর্মশক্তিটা কখনো রাজনৈতিক সংগঠনের সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করে। নিজের খেয়ে বনের মহিষ তাড়ানোর মত অবস্হা আর কি !

কিছু কিছু অভিভাবক আছেন সন্তানেরা বিএ,এমএ পাশ করার পর গর্বে বুক ভরে যাওয়ার মত অবস্হা ঘটে। নিজের আয় থেকে সন্তানকে পকেট মানি দিয়ে সন্তানকে উত্সাহিত করেন। সন্তানেরা কোথায় যাচ্ছে কাদের সাথে মিশছে সে খবরও রাখেন না।

বেশীরভাগ প্রবাসীদের সন্তানেরা কোনমতে এসএসসি পাশ করার পর কলেজে ভর্তি হলেও লেখাপড়া করার তেমন কোন স্পৃহা নেই । এঁরা এমন এমন সব যুক্তি মায়েদের দেখাবে - তাঁরা নিরুপায় হয়ে সন্তানদের সাথে মতানৈক্য পৌছাবেন " নিজের শিক্ষিত্ ছেলে বলে কথা "।

একসময় সেই সব সোনার ছেলেরা বখে গিয়ে নানারকমের অপরাধের সাথে জড়িয়ে, সৃষ্টি হয় চাঁদাবাজি, কিশোর গ্যাং,সাইবার অপরাধের মত নির্মম কর্মকাণ্ড। এসব থেকে বের হওয়ার কী কোন উপায় নেই ?.... আছে ।

সরকারকেই এই গুরুদায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকারি ও বেসরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৩ মাস- ৬ মাস - ১২ মাসের কোর্স চালু করতে হবে। কারিগরী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আসন সংখ্যা বাড়াতে হবে । উপজেলা, জেলা সদরে প্রশিক্ষণ ইনিস্টিউটে বিভিন্নরকমের বুনিয়াদি কোর্স অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

বেকারত্বের কারণে সৃষ্ট জটিলতা সরকারের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারকেরা সমন্বয় করে কর্মসংস্থান তৈরি করার উদ্যোগ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ কাজ বলে মনে করেন - দেশের বুদ্ধিজীবি মহল। নয়তো একদিন এই দেশ রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের পাঠানো টাকায় চলবে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ