MD.KHALED MOSHARRAF SHOHEL
প্রকাশ ১৮/০২/২০২২ ০২:১৬এ এম

বরগুনার বেতাগীতে নির্মাণের পরেই ভেঙে পড়ল প্রধাণমন্ত্রীর উপহার বীরনিবাস

বরগুনার বেতাগীতে নির্মাণের পরেই ভেঙে পড়ল প্রধাণমন্ত্রীর উপহার  বীরনিবাস
ad image
বরগুনার বেতাগীতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দেওয়া প্রধাণমন্ত্রীর উপহার বীর নিবাস প্রকল্পের ঘর বানাতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে। এক বীর মুক্তিযোদ্ধার ঘর বানাতে ব্যবহৃত ইট এবং সিমেন্ট নিম্নমানের হওয়ায় তৈরিকৃত দেয়াল নির্মাণের পরপরই ভেঙ্গে পড়ছে। এমন ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়েছে। এতে বরাদ্দকৃত ঘর নির্মাণ নিয়ে ভুক্তভোগী ওই মুক্তিযোদ্ধা দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

জানা গেছে, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে সারাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের ঘর উপহার দেন প্রধাণমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যার নামকরণ হয় বীর নিবাস। এ উপজেলায় প্রথমধাপে ৯টি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এতে প্রতিটি ঘরে নির্মাণব্যয় বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ১৪ লাখ ১০ হাজার ৩৮২ টাকা। দরপত্রের প্রাক্কলন অনুযায়ী গত ৪ নভেম্বর নির্মাণকাজের উদ্ধোধন করে উপজেলা প্রশাসন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রধাণমন্ত্রীর দেওয়া এই উপহার পেয়ে যতটা খুশি হয়েছিলেন মুক্তিযোদ্ধারা, তাদের ততটাই দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়েছে ঠিকাদারের নিম্নমানের সামগ্রীর ব্যবহার। বেতাগী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম ফারুক শিকদারের বরাদ্দকৃত ঘর নির্মাণে নিম্নমানের ইট, বালু, খোয়া, সিমেন্ট ও লোহার রড ব্যবহার করা হচ্ছে। এতে তিনি দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ঘর নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার হচ্ছে। শেষ বয়সে এসে প্রধাণমন্ত্রীর দেওয়া উপহার ভোগ করতে পারব কিনা সন্দেহ।

বরাদ্দকৃত বীর নিবাস প্রকল্পের কাজ পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার নাসির আহমেদ পেলে তার কাছ থেকে ওই দরপত্রের প্রাক্কলনটি কিনে নেন বেতাগী উপজেলার নাসির এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত¡ধিকারী তরিকুল ইসলাম নাসির। সরেজমিনে দেখা যায়, বীর নিবাসের ওই ঘর নির্মাণে ব্যবহৃত ইট এবং সিমেন্ট নিম্নমানের হওয়ায় তৈরিকৃত দেয়াল নির্মাণের পরপরই ভেঙ্গে পড়ছে। ভেঙ্গে পড়ার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়েছে।

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধার ছেলে সুজন শিকদার জানান, নির্মাণকাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করতে দেখে ঠিকাদার নাসির ভাইকে এগুলো পরিবর্তন করে দিতে বলি। কিন্তু ঠিকাদার এগুলোই ব্যবহার করেন। এই বিষয়ে নাসির এন্টারপ্রাইজের স্বত্ত¡াধিকারী ঠিকাদার তরিকুল ইসলাম নাসির মুঠোফোনে বলেন, আমার কাজ শেষ পর্যায়ে এবং দরপত্রের প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ করা হচ্ছে। যে অভিযোগ উঠেছে তা ভিত্তিহীন।

নির্মাণকাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রহমান জানান, মুজিব শতবর্ষে প্রধাণমন্ত্রীর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের উপহারের ঘর নির্মাণে কোনো অনিয়ম হলে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুহৃদ সালেহীন বলেন, আমি ইতোমধ্যে অভিযোগ পেয়েছি। ঠিকাদারকে তলব করা হয়েছে এবং অভিযোগের সত্যতা প্রমাণে সঠিকভাবে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ