সারাবিশ্ব

একসঙ্গে ২৫ স্কুলের শিক্ষক তিনি, বছরে আয় কোটি টাকা!

একসঙ্গে ২৫ স্কুলের শিক্ষক তিনি, বছরে আয় কোটি টাকা!
June 05
12:14pm 2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক

আই নিউজ বিডি ডেস্কপেশায় তিনি স্কুল শিক্ষক। একসঙ্গে ২৫টি স্কুলে শিক্ষকতা করেন তিনি। বছরে আয় এক কোটি টাকার ওপরে। প্রশাসনের নাকের ডগায় একসঙ্গে দুই ডজনের বেশি স্কুলে শিক্ষকতা করে কোটি কোটি টাকা বেতন নিলেও দীর্ঘদিন ছিলেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। সম্প্রতি এই স্কুল শিক্ষকের এমন নাটকীয় উপার্জনের গল্প সামনে আসতে নড়েচড়ে বসে স্থানীয় প্রশাসন।

এমন কাণ্ড করে আলোচনায় এসেছেন ভারতের উত্তরপ্রদেশের কস্তুরবা গান্ধী বালিকা বিদ্যালয়ের নারী শিক্ষক অনামিকা শুক্লা। দেশটির সংবাদমাধ্যম বলছে, রাজ্যের সাধারণ শিক্ষা দফতরের অধীনে তিনি একসঙ্গে ২৫টি স্কুলে শিক্ষকতা করেন। শিক্ষক হিসাবে তিনি গত এক বছরে প্রায় এক কোটি টাকা বেতন পেয়েছেন। 

পশ্চিমবঙ্গের বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার বলছে, উত্তরপ্রদেশের শিক্ষকদের জন্য ডিজিটাল ডেটাবেস তৈরির সময় প্রকাশ্যে আসে এ ঘটনা। তারপর ওই নারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে রাজ্যের শিক্ষা দফতর। পূর্ণ সময়ের শিক্ষক হিসাবে কস্তুরবা গান্ধী বালিকা বিদ্যালয়ে কাজ করলেও, তিনি আরও ২৫টি স্কুলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। আমেথি, আম্বেদকরনগর, রায়েবরেলী, প্রয়াগরাজ, আলিগড়সহ আরও কয়েকটি জেলার স্কুলে শিক্ষক হিসাবে নিযুক্ত রয়েছেন তিনি।

এসব স্কুলের শিক্ষক হিসাবে ১৩ মাসে প্রায় এক কোটি টাকা বেতন তুলেছেন। সম্প্রতি সেখানকার শিক্ষা দফতর শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ডিজিট্যাল ডেটাবেস তৈরি করে। এটি করতে গিয়ে দেখা যায়, অনামিকা শুক্লা নামের ওই শিক্ষিকা ২৫টি ভিন্ন বিদ্যালয়ে কর্মরত।

পরে ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেয় প্রদেশের শিক্ষা দফতর। বিভিন্ন স্কুলে তার সম্পর্কে জানানো হয়। রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের নথিপত্রে দেখা যায়, অনামিকার বাড়ি মৈনপুরীতে। ফেব্রুয়ারিতে তাকে শেষবারের মতো দেখা যায় রায়েবরেলীর একটি স্কুলে।তেবে এমন কুকীর্তির কথা সামনে আসার পর থেকে আত্মগোপন করেছেন অনামিকা।

উত্তরপ্রদেশের স্কুল শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক বিজয় কিরণ আনন্দ বলেন, লাপাত্তা ওই শিক্ষিকার ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে তদন্ত শুরু হয়েছে। প্রেরণা নামের অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে হাজিরা নিশ্চিত করতে হয় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের। প্রযুক্তি এড়িয়ে কীভাবে এতগুলো স্কুলে অনামিকা হাজিরা দিতেন সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

উত্তরপ্রদেশের শিক্ষামন্ত্রী সতীশ দ্বিবেদী বলেছেন, ‘এ ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে শক্ষিা দফতর। অভিযোগ সত্যি হলে, ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

লোহাগাড়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী অপহৃত নাকি নিখোঁজ? থানায় অভিযোগ

লোহাগাড়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী অপহৃত নাকি নিখোঁজ? থানায় অভিযোগ

বিক্রয় প্রতিনিধিরাও বাঁচতে চায়। ৮দফা দাবি নিয়ে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন

বিক্রয় প্রতিনিধিরাও বাঁচতে চায়। ৮দফা দাবি নিয়ে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন

হাজতে সাবরিনার রাত কাটে যেভাবে

হাজতে সাবরিনার রাত কাটে যেভাবে

কেন্দুয়া পুকুর থেকে বৃদ্ধের মারাদেহ উদ্ধার

কেন্দুয়া পুকুর থেকে বৃদ্ধের মারাদেহ উদ্ধার

আরিফের চতুর্থ স্ত্রী সাবরিনা, রূপকথার মতো তাদের দাম্পত্য জীবন

আরিফের চতুর্থ স্ত্রী সাবরিনা, রূপকথার মতো তাদের দাম্পত্য জীবন

ডা. সাবরিনাকে রিমান্ডে নেবে পুলিশ

ডা. সাবরিনাকে রিমান্ডে নেবে পুলিশ

চৌগাছার মুকুন্দপুর গ্রামের আলী সরদার আর নেই,  গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন চৌগাছা শাখা

চৌগাছার মুকুন্দপুর গ্রামের আলী সরদার আর নেই, গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন চৌগাছা শাখা

প্রতারক সাহেদের সিলেট কানেকশন

প্রতারক সাহেদের সিলেট কানেকশন

মাষ্টার্স শেষ করে মাল্টা চাষে রবিউল সফল

মাষ্টার্স শেষ করে মাল্টা চাষে রবিউল সফল

করোনা টেস্ট নিয়ে প্রতারণা: ডা. সাবরিনা গ্রেফতার

করোনা টেস্ট নিয়ে প্রতারণা: ডা. সাবরিনা গ্রেফতার

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান আর নেই।

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান আর নেই।

তিস্তার পানিপ্রবাহ সর্বকালের রেকড ভেঙ্গে বিপদসীমার ৫২ সে.মি. ওপরে

তিস্তার পানিপ্রবাহ সর্বকালের রেকড ভেঙ্গে বিপদসীমার ৫২ সে.মি. ওপরে

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে ফরম জমা দিলেন ফরহাদ

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে ফরম জমা দিলেন ফরহাদ

পূনঃনির্মানের ৪ দিনেই ভেসে গেলো বৃষ্টির পানিতে ভেসে যাওয়া এডিবির ড্রেন

পূনঃনির্মানের ৪ দিনেই ভেসে গেলো বৃষ্টির পানিতে ভেসে যাওয়া এডিবির ড্রেন

তৃতীয় দফায় করোনা পরীক্ষা করালেন মাশরাফী

তৃতীয় দফায় করোনা পরীক্ষা করালেন মাশরাফী

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় এলজিএসপি-৩ এর আওতায় ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবগণের পরিবেশ ও সামাজিক সুরক্ষা বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ

কুষ্টিয়ায় এলজিএসপি-৩ এর আওতায় ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবগণের পরিবেশ ও সামাজিক সুরক্ষা বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ

আগামীকাল বগুড়া ও যশোরে উপনির্বাচন হতে যাচ্ছে।

আগামীকাল বগুড়া ও যশোরে উপনির্বাচন হতে যাচ্ছে।

নীতি কে না বলুন

নীতি কে না বলুন

সরকারি কাজ পাওয়ার পেছনে রাজনৈতিক প্রভাব কতটা

সরকারি কাজ পাওয়ার পেছনে রাজনৈতিক প্রভাব কতটা

কুুড়িগ্রামে শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং নির্যাতনের ঘটনায় উৎকন্ঠা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর এনসিটিএফ’র স্মারকলিপি প্রদান

কুুড়িগ্রামে শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং নির্যাতনের ঘটনায় উৎকন্ঠা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর এনসিটিএফ’র স্মারকলিপি প্রদান

শিক্ষার প্রসারে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন

শিক্ষার প্রসারে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন

বাংলাদেশ অর্থনীতি অঞ্চলের গভর্নিং বোর্ডের সদস্য  হলেন  মৌলভীবাজারের মোঃ কামাল হোসেন

বাংলাদেশ অর্থনীতি অঞ্চলের গভর্নিং বোর্ডের সদস্য হলেন মৌলভীবাজারের মোঃ কামাল হোসেন

চৌগাছার অসহায় বৃদ্ধা ফুলবানু ও তার দুই বছরের নাতি ছেলের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে ছাত্র নেতা সবুজ

চৌগাছার অসহায় বৃদ্ধা ফুলবানু ও তার দুই বছরের নাতি ছেলের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে ছাত্র নেতা সবুজ

বেনাপোল কাস্টমের ৩ কর্মকর্তা বরখাস্ত দুই সি অ্যান্ড এফ’র লাইসেন্স বাতিল

বেনাপোল কাস্টমের ৩ কর্মকর্তা বরখাস্ত দুই সি অ্যান্ড এফ’র লাইসেন্স বাতিল

একজন সফল উদ্যোক্তা, ৪৬ বছরে ৪১ প্রতিষ্ঠান

একজন সফল উদ্যোক্তা, ৪৬ বছরে ৪১ প্রতিষ্ঠান

নুরুল ইসলামের অবদান মানুষ কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ রাখবে: বিএনপি

নুরুল ইসলামের অবদান মানুষ কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ রাখবে: বিএনপি

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক

সৌদি যুবরাজই খাশোগি হত্যার প্রধান সন্দেহভাজন: জাতিসংঘ

সৌদি যুবরাজই খাশোগি হত্যার প্রধান সন্দেহভাজন: জাতিসংঘ

জেকেজি ও সাহেদের দুর্নীতি সরকারই উদ্ঘাটন করে ব্যবস্থা নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

জেকেজি ও সাহেদের দুর্নীতি সরকারই উদ্ঘাটন করে ব্যবস্থা নিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

সমতা কল্যাণ সংস্থার বৃক্ষের চারা বিতরণ

সমতা কল্যাণ সংস্থার বৃক্ষের চারা বিতরণ