EyeNewsBD

খুলনা

খুলনার কয়রায় ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামত করবে সেনাবাহিনী

খুলনার কয়রায় ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামত করবে সেনাবাহিনী
May 22
02:08pm 2020

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে খুলনার উপকূলীয় কয়রায় ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামত কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী। আজ শুক্রবার দুপুর থেকে সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার্স কোরের সদস্যরা কয়রার দক্ষিণ বেদকাশির গোলখালি, সদর ইউনিয়নে হরিণখোলা ও উত্তর বেদকাশির রতনাঘেরি কাটকাটা এলাকায় বাঁধে মাটি, বালু ভরাট কাজ শুরু করে। এতে দুর্ভোগে পড়া সাধারণ মানুষের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে। বাঁধ সংস্কারে যুক্ত সেনাবাহিনীর অধিকাংশ সদস্য রোজা রেখেই কাজ করছেন। 

জানা যায়, গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে কয়রার জোড়শিং বাজার, গোলখালী, গাজীপাড়া, ঘাটাখালিসহ ১১টি পয়েন্টে বাঁধ ভেঙ্গে বিস্তির্ন ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি প্লাবিত হয়। এতে স্থানীয়দের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। অভিযোগ রয়েছে, প্রতিবছর বাঁধ সংস্কারের নামে অর্থ লুটপাট হয়। কিন্তু টেকসই বাঁধ নির্মান না হওয়ায় দুর্ভোগ এলেই ভোগান্তিতে পড়ে এখানকার মানুষ। 

খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে কয়েকটি পয়েন্টে বেড়িবাঁধ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে অর্থ বরাদ্দ না থাকায় এখনই বাঁধে মেরামত কাজ করতে পারছে না পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। এ কারণে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে কয়রায় তিনটি পয়েন্টে বাঁধ মেরামত কাজ করবে সেনাবাহিনী।

 

খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. আকতারুজ্জামান বাবু বলেন, নদীতে জোয়ারের সময় লবন পানি থেকে জমির ফসল রক্ষায় স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁধ সংস্কার কাজ এরই মধ্যে শুরু করেছে স্থানীয় সাধারণ মানুষ। তবে সেনাবাহিনী বাঁধ নির্মান কাজ শুরু করায় মানুষের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, সেনবাহিনীকে একই সাথে উত্তর বেতকাশির গাজিপাড়া ও মহারাজপুর দশালিয়া এলাকার বাঁধ মেরামতের জন্য বলা হয়েছে। ঘূর্নিঝড়ের আঘাতে এখানে প্রায় ৩০ ফুট গভীরতার খালের মতো তৈরি হয়েছে। 

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সিএনজিতেই কাজ সারে অনেক খদ্দের

সিএনজিতেই কাজ সারে অনেক খদ্দের

আম্পান: পশ্চিমবঙ্গে নিহত বেড়ে ৮০

আম্পান: পশ্চিমবঙ্গে নিহত বেড়ে ৮০

১২০০ কি.মি সাইকেল চালিয়ে অসুস্থ বাবাকে নিয়ে বাড়ি ফিরলো মেয়ে

১২০০ কি.মি সাইকেল চালিয়ে অসুস্থ বাবাকে নিয়ে বাড়ি ফিরলো মেয়ে

আড়াইশ কিলোমিটার গতি নিয়ে ধেয়ে আসছে ‘আম্পান’

আড়াইশ কিলোমিটার গতি নিয়ে ধেয়ে আসছে ‘আম্পান’

যে ওষুধে ‘করোনায় সুস্থের হার বাড়ছে’ বাংলাদেশে

যে ওষুধে ‘করোনায় সুস্থের হার বাড়ছে’ বাংলাদেশে

পাকিস্তানে ১০০ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত

পাকিস্তানে ১০০ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত

তছনছ করে গেল আম্ফান, এবার আসছে মহাপ্রলয় 'নিসর্গ'

তছনছ করে গেল আম্ফান, এবার আসছে মহাপ্রলয় 'নিসর্গ'

ভারতে ক্ষুধার জ্বালায় মরা কুকুরের মাংস খাচ্ছে মানুষ! (ভিডিও)

ভারতে ক্ষুধার জ্বালায় মরা কুকুরের মাংস খাচ্ছে মানুষ! (ভিডিও)

রাতে ঘুম আসে না ? ৫ মিনিটে ঘুমিয়ে পড়ার ১০ টি উপায়

রাতে ঘুম আসে না ? ৫ মিনিটে ঘুমিয়ে পড়ার ১০ টি উপায়

৭০ লাখ পরিবহন শ্রমিকের কষ্টের দিনে পাশে দাঁড়ায়নি কেউ

৭০ লাখ পরিবহন শ্রমিকের কষ্টের দিনে পাশে দাঁড়ায়নি কেউ

ভিক্ষুকের কোলের বাচ্চাটি সবসময় ঘুমিয়ে থাকার বীভৎস র’হস্য

ভিক্ষুকের কোলের বাচ্চাটি সবসময় ঘুমিয়ে থাকার বীভৎস র’হস্য

লকডাউন পিরিয়ডে প্রবেশ সূর্যের, ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা

লকডাউন পিরিয়ডে প্রবেশ সূর্যের, ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা

রাখে আল্লাহ মারে কে! বিমান দুর্ঘটনায় প্রায় অক্ষত ব্যাংক কর্মকর্তা

রাখে আল্লাহ মারে কে! বিমান দুর্ঘটনায় প্রায় অক্ষত ব্যাংক কর্মকর্তা

ভাবছি ‘সেই ৮০ সিম’ নিলামে তুলব: নাসির

ভাবছি ‘সেই ৮০ সিম’ নিলামে তুলব: নাসির

হঠাৎ করে তুলে নেওয়া হয়েছে রাজধানীর প্রবেশ পথের চেকপোষ্ট

হঠাৎ করে তুলে নেওয়া হয়েছে রাজধানীর প্রবেশ পথের চেকপোষ্ট

সর্বশেষ

ভর্তি হতে না পেরে হাসপাতালের গেটেই সন্তান প্রসব

ভর্তি হতে না পেরে হাসপাতালের গেটেই সন্তান প্রসব

‘গানটি এত প্রশংসিত হবে ভাবিনি’

‘গানটি এত প্রশংসিত হবে ভাবিনি’

ঈদের নামাজের পর টাকা তোলা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০, শতাধিক বাড়ি ভাংচুর

ঈদের নামাজের পর টাকা তোলা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০, শতাধিক বাড়ি ভাংচুর

মণিপুরে ভূমিকম্প, কেঁপে উঠলো ঢাকা-চট্টগ্রাম

মণিপুরে ভূমিকম্প, কেঁপে উঠলো ঢাকা-চট্টগ্রাম

আতংঙ্কিত না হয়ে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান খালেদা জিয়ার

আতংঙ্কিত না হয়ে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান খালেদা জিয়ার

হাফেজ্জী হুজুর রহঃ-এর জামাতা মাওলানা আব্দুল লতিফের ইন্তেকাল

হাফেজ্জী হুজুর রহঃ-এর জামাতা মাওলানা আব্দুল লতিফের ইন্তেকাল

মাছ ধরেই কাটল ক্রিকেটার মোস্তাফিজের ঈদ

মাছ ধরেই কাটল ক্রিকেটার মোস্তাফিজের ঈদ

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বের শীর্ষ দশে ভারত

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বের শীর্ষ দশে ভারত

ঈদে বাবার বাড়ি যেতে না দেয়ায় স্বামীর সঙ্গে অভিমানে আত্মহত্যা

ঈদে বাবার বাড়ি যেতে না দেয়ায় স্বামীর সঙ্গে অভিমানে আত্মহত্যা

ছেলে-মেয়ের সঙ্গে ঈদ করা হলো না শাহিদার

ছেলে-মেয়ের সঙ্গে ঈদ করা হলো না শাহিদার

মাংস কিনতে গিয়ে এনজিও কর্মী নিখোঁজ মরদেহ মিলল বাগানে

মাংস কিনতে গিয়ে এনজিও কর্মী নিখোঁজ মরদেহ মিলল বাগানে

ঈদে ঘুরতে বেরিয়ে প্রাণ গেল কিশোরের

ঈদে ঘুরতে বেরিয়ে প্রাণ গেল কিশোরের

প্রথম রাকাতের দ্বিতীয় সেজদায় গিয়ে ইমামের মৃত্যু!

প্রথম রাকাতের দ্বিতীয় সেজদায় গিয়ে ইমামের মৃত্যু!

পাবনা থেকে পালিয়ে না.গঞ্জে গেলেন করোনা শনাক্ত ব্যক্তি!

পাবনা থেকে পালিয়ে না.গঞ্জে গেলেন করোনা শনাক্ত ব্যক্তি!

টানা ৬ দিন করোনা শনাক্তের রেকর্ড

টানা ৬ দিন করোনা শনাক্তের রেকর্ড