জাতীয়, ধর্ম ও শিক্ষা, জেলার খবর

বাবা সিকিউরিটি গার্ড, মা কাজের বুয়া ছে'লে এখন জজ

বাবা সিকিউরিটি গার্ড, মা কাজের বুয়া ছে'লে এখন জজ
February 03
02:33pm 2020

সংসার চালাতে কিছুদিন আগেও রাজধানীর উত্তরায় একটি বাড়িতে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরি করছিলেন মোশারফ হোসেন। আর তার স্ত্রী' মাহফুজা খাতুন এলাকার অনেকের বাড়িতে করেছেন বুয়ার কাজ। বাবা-মায়ের ক'ষ্টে উপার্জিত সেই টাকায় পড়ালেখা করে তাদের বড় সন্তান গো'লাম রসুল সুইট এখন সহকারী জজ।১২তম বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসে ৬৭তম হয়েছেন তিনি। ১৯ জানুয়ারি ঘোষিত গেজেটে তালিকা প্রকাশ করা হয়।আগামী মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সহকারী জজ হিসেবে পিরোজপুর জে'লায় যোগদান করবেন তিনি।সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজে'লার পারুলিয়া ইউনিয়নের কোম'রপুর গ্রামের বাবা মোশারফ হোসেন ও মা মাহফুজা খাতুনের বড় ছে'লে গো'লাম রসুল সুইট। ছোটবেলা থেকেই মেধাবী সুইট। পরিবারের অভাবও দমাতে পারেনি তাকে। ঠিকমতো খেতে না পারা সেই গো'লাম রসুল সুইট এখন জজ। তিনি বলেন, শাখরা কোম'রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে ভোম'রা ইউনিয়ন দাখিল মাদরাসা থেকে দাখিল পাস করেছি। এরপর দেবহাটা উপজে'লার সখিপুর খানবাহাদুর আহসানউল্লাহ্ কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হই। আমাদের পরিবারে তখন খুব অভাব। বাবাও ছিলেন উদাসিন। কোনো রকমে খেয়ে না খেয়ে দিন চলতো আমাদের। সুইট আরও বলেন, কলেজ শেষ করার পর লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম। এমন সময় সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমীতে একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করি। সেখান থেকে এক ভাই আমাকে পরাম'র্শ দেয় ঢাকায় গিয়ে কোচিং করার। কিন্তু পরিবারের সেই অবস্থা ছিল না। মায়ের একটি গরু ছিল। সেই গরুটি ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে ২০১০ সালের ১৭ মে ঢাকা যাই। এরপর একটি কোচিং সেন্টারে ভর্তি হই।তিনি বলেন, কিছুদিন পর মায়ের গরু বিক্রি করা সেই টাকাও ফুরিয়ে যায়। বাড়িতেও টাকা চাওয়া বা পরিবারের দেয়ার মতো কোনো অবস্থা ছিল না। কা'ন্নাকাটি করেছিলাম কোচিং পরিচালকের সামনে। এরপর তিনি আমাকে সেখানে বিনামূল্যে কোচিং ও থাকার ব্যবস্থা করেন। এরই মধ্যে সঙ্গে থাকা সহপাঠীদের বন্ধু হয়ে যাই আমি। বন্ধুরাও আমা'র পারিবারিক অবস্থা জানার পর আমাকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করতে থাকে। বন্ধুদের সহযোগিতার কথাগুলো ভুলে যাওয়ার নয়। মা ও বাবা মাঝে মধ্যে এক হাজার বা দুই হাজার করে টাকা দিত। গত এক মাস আগে বাবাকে বাড়িতে নিয়ে এসেছি। সিকিউরিটি গার্ডের চাকরিটা ছেড়ে দিয়েছে। মাকেও এক বছর আগে অন্যের বাড়িতে কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছি। ২০১০-১১ শিক্ষা বর্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার গল্প জানিয়ে গো'লাম রসুল সুইট বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য পরীক্ষা দেই। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তির সুযোগ হয়। বন্ধু ও শুভাকঙ্খীদের পরাম'র্শে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়েই ভর্তি হই। ভর্তির পর টিউশুনির পোস্টার ছাপিয়ে অবিভাবকদের কাছে বিতরণ শুরু করি। এভাবে ৫টি টিউশুনি জোগাড় হয়ে যায়। এভাবেই চলেছে আমা'র শিক্ষাজীবন। আত্মীয়-স্বজনরা কখনও খোঁজ নেয়নি তবে আমা'র বন্ধুরা আমা'র পাশে থেকেছে সব সময়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্সের ফলাফলে বি-ইউনিটে মেধা তালিকায় হয়েছি ১১তম। ১২তম বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসে হয়েছি ৬৭তম। ১০০ জন উত্তীর্ণ হয়েছিল। এর মধ্যে নিয়োগ হয়েছে ৯৭ জনের। তিনজন পু'লিশ ভেরিফিকেশনে বাদ পড়েছেন। আগামী মঙ্গলবার পিরোজপুর জে'লার সহকারী জজ হিসেবে যোগদান করবো জানিয়ে তিনি বলেন, আমা'র বড় লোক হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই। সব সময় ন্যায়ের পথে থেকে মানুষদের জন্য কাজ করে যাব। কখনও অনিয়ম বা দু'র্নীতির সঙ্গে জ'ড়িত হবো না। যখন চাকরিজীবন শেষ করবো তখন যেন অ'বৈধ উপায়ে উপার্জনের একটি টাকাও আমা'র ব্যাংক একাউন্টে না থাকে। আমা'র কাছে সকল মানুষ ন্যায় বিচার পাবে। অসহায় মানুষরা কখনই ন্যায় বিচার পাওয়া থেকে বঞ্চিত হবে না। দুস্থ পরিবারের সমস্যাগুলো আমি বুঝি, জানিয়ে গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে গো'লাম রসুল সুইট বলেন, টাকা পয়সা লেখাপড়ার পথে কোনো বাধা নয়। ইচ্ছাশক্তি থাকলে সে এগিয়ে যাবেই, পথ বেরিয়ে যাবেই।সুইটের বাবা মোশারফ হোসেন জানান, রাজধানীর উত্তরার ৯ নম্বর সেক্টরে ৮ বছর সিকিউরিটি গার্ডের কাজ করেছি। আম'রা স্বামী-স্ত্রী' দুইজনই থাকতাম। স্ত্রী' অন্যের বাড়িতে কাজ করতো। এক মাস আগে ছে'লে চাকরিটা ছেড়ে দিতে বলেছে। তাই চাকরি ছেড়ে বাড়িতে চলে এসেছি। ছে'লে বলেছে, আমি এখন চাকরি পেয়েছি আপনার কাজ করতে হবে না। ভাবছি, এলাকায় ছোট একটি দোকান দিয়ে ব্যবসা করবো। অন্যের বাড়িতে কাজের বুয়া থাকাকালীন সময়ে সেসব কথা মনে করে কেঁদে উঠেন মা মাহফুজা খাতুন। আবেগাপ্লুত হয়ে তিনি বলেন, মানুষের বাড়িতে কাজ করতাম। স্বামী আর আমা'র টাকা দিয়েই চলতো সংসার আর দুই ছে'লের খরচ। আম'রা যেটুকু পেরেছি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি ছে'লের লেখাপড়া করানোর জন্য। দোয়া করেছি। আল্লাহ্ আমাদের ডাক শুনেছেন। দোয়া কবুল করেছেন। আমি অনেক খুশি। এখন সকল মানুষের কাছে আমা'র ছে'লের জন্য দোয়া চাই।গো'লাম রসুল সুইটের বাল্যবন্ধু জাবিরুল ইস'লাম বলেন, ছোটবেলা থেকেই শান্ত ও মেধাবী ছিল রসুল। আম'রা এক সঙ্গেই লেখাপড়া করতাম। কখনও কারও সঙ্গে সে জো'র গলায় কথা বলেছে, আমাদের জানা নেই।দেবহাটার পারুলিয়ার ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল আলীম বলেন, খুব অভাবি ছিল তাদের পরিবার। জমি জায়গা কিছুই নেই। মা-বাবা খুব ক'ষ্ট করে ছে'লেটাকে লেখাপড়া শিখিয়েছে। ছে'লেটাও খুব ভালো। জজের চাকরি পেয়েছে। এতে এলাকার সকল মানুষ খুশি হয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

বাঘায় বিশ্রাম নিতে গিয়ে মারা গেলেন ব্যবসায়ী

বাঘায় বিশ্রাম নিতে গিয়ে মারা গেলেন ব্যবসায়ী

‘ডিআইজি নয়, আমি আইজিপিকেও পরোয়া করি না’

‘ডিআইজি নয়, আমি আইজিপিকেও পরোয়া করি না’

ভালুকায় ৫ বছরের ভাগনিকে হত্যার পর ঘরে তালা মামার

ভালুকায় ৫ বছরের ভাগনিকে হত্যার পর ঘরে তালা মামার

করোনায় দেশে ফেরা ২ লাখ অভিবাসী শ্রমিকের জীবন অনিশ্চয়তায়

করোনায় দেশে ফেরা ২ লাখ অভিবাসী শ্রমিকের জীবন অনিশ্চয়তায়

এন্ড্রু কিশোরের যত জনপ্রিয় গান

এন্ড্রু কিশোরের যত জনপ্রিয় গান

লাদাখে সংঘাতের জেরে চীনকে মোকাবেলায় ভারতের অক্ষমতা

লাদাখে সংঘাতের জেরে চীনকে মোকাবেলায় ভারতের অক্ষমতা

রাজশাহীর মাটির মায়া কাটাতে পারেননি এন্ড্রু কিশোর

রাজশাহীর মাটির মায়া কাটাতে পারেননি এন্ড্রু কিশোর

জয়াকে বাদ দিয়ে পরীমনিকে নিলেন সৃজিত

জয়াকে বাদ দিয়ে পরীমনিকে নিলেন সৃজিত

প্রবাসীদের তিন মাস ভিসার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি সরকার

প্রবাসীদের তিন মাস ভিসার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি সরকার

লন্ডন ব্যতীত সব আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট বাতিল বিমানের

লন্ডন ব্যতীত সব আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট বাতিল বিমানের

বিপুল পরিমাণ ইয়াবা সহ চেয়ারম্যানের ভাগ্নে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আমজাদ গ্রেফতার

বিপুল পরিমাণ ইয়াবা সহ চেয়ারম্যানের ভাগ্নে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আমজাদ গ্রেফতার

কানাডায় বাংলাদেশি শিক্ষার্থী নয়নের রহস্যজনক মৃত্যু

কানাডায় বাংলাদেশি শিক্ষার্থী নয়নের রহস্যজনক মৃত্যু

এন্ড্রু কিশোরের শেষ ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে

এন্ড্রু কিশোরের শেষ ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে

করোনায় একদিনে আরও ৪৪ মৃত্যু, আক্রান্ত ৩২০১

করোনায় একদিনে আরও ৪৪ মৃত্যু, আক্রান্ত ৩২০১

ইংল্যান্ড সফরে অন্য এক সমস্যায় পড়ল পাকিস্তান

ইংল্যান্ড সফরে অন্য এক সমস্যায় পড়ল পাকিস্তান

সর্বশেষ

‘ডিআইজি নয়, আমি আইজিপিকেও পরোয়া করি না’

‘ডিআইজি নয়, আমি আইজিপিকেও পরোয়া করি না’

রামেক হাসপাতালের হিমঘরে এন্ড্রু কিশোরের মরদেহ

রামেক হাসপাতালের হিমঘরে এন্ড্রু কিশোরের মরদেহ

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল পরিবারসহ করোনায় আক্রান্ত

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল পরিবারসহ করোনায় আক্রান্ত

রাজশাহীর মাটির মায়া কাটাতে পারেননি এন্ড্রু কিশোর

রাজশাহীর মাটির মায়া কাটাতে পারেননি এন্ড্রু কিশোর

`আমাকে ডিভোর্স দিয়ে সাগরের সঙ্গে সংসার- বলেই সায়মাকে ছুরিকাঘাত

`আমাকে ডিভোর্স দিয়ে সাগরের সঙ্গে সংসার- বলেই সায়মাকে ছুরিকাঘাত

জাতিসংঘের প্রস্তাব অনুসারে ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনায় ফিলিস্তিন

জাতিসংঘের প্রস্তাব অনুসারে ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনায় ফিলিস্তিন

আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা

আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা

কাল থেকে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে দুবাই

কাল থেকে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে দুবাই

জুনের ভাড়া দিতে পারছে না নিউইয়র্কের ৮০ শতাংশ রেস্টুরেন্ট

জুনের ভাড়া দিতে পারছে না নিউইয়র্কের ৮০ শতাংশ রেস্টুরেন্ট

লাদাখে সংঘাতের জেরে চীনকে মোকাবেলায় ভারতের অক্ষমতা

লাদাখে সংঘাতের জেরে চীনকে মোকাবেলায় ভারতের অক্ষমতা

কলারোয়ায় পঙ্গু এক বৃদ্ধের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কলারোয়ায় পঙ্গু এক বৃদ্ধের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

সাতক্ষীরায় নতুন করে আরো ২৩ জনসহ মোট ২১৫ জন করোনা আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় নতুন করে আরো ২৩ জনসহ মোট ২১৫ জন করোনা আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় জব্দকৃত গম আবারো আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিতরণের নির্দেশ আদালতের

সাতক্ষীরায় জব্দকৃত গম আবারো আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিতরণের নির্দেশ আদালতের

আশাশুনিতে পুকুরের পানিতে ডুবে এক যুবকের মৃত্যু

আশাশুনিতে পুকুরের পানিতে ডুবে এক যুবকের মৃত্যু

এন্ড্রু কিশোরের শেষ ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে

এন্ড্রু কিশোরের শেষ ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে