About Us
Md. Rasel - (Chandpur)
প্রকাশ ০২/০৮/২০২১ ০৬:৪৮এ এম

কচুয়ায় রাস্তার মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি

কচুয়ায় রাস্তার মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি Ad Banner
প্রতিদিন সারাদেশে কোননা কোন স্থানে দূর্ঘটনা ঘটেই চলেছে। এতে কেউ মারা যাচ্ছেন আবার কেউ গুরুতর আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। এসব দূর্ঘটনা এড়াতে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষ নিচ্ছেন নানা পদক্ষেপ। এরই মধ্যে কচুয়া উপজেলা কাদলা ইউনিয়নের বাতাবাড়িয়া, কোয়াচাঁদপুর, কাপিলাবাড়ি ও কাদলা মুখী চৌরাস্তার মাঝে বিদ্যুতের খুঁটির কারণে রাস্তায় চলাচলকারি যানবাহন ও পথচারি সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুধু খুঁটি নয়, খুঁটির উপর ট্রান্সফর্মা থাকায় ঝুঁকির মাত্রা ও বেড়ে গেছে। বিশেষ করে রাতের অন্ধকারে অজানা পথচারীরা প্রায়ই দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হচ্ছে। রাতের আঁধারে হঠাৎ করে আসা যানবাহন এ খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে যে কোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশংখ্যা করছেন এলাকাবাসী। তাই পল্লীবিদ্যুতের খুঁটিটি দ্রুত অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার জন্য দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, এ রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত শত শত যানবাহন চলাচল করলেও এ সমস্যা সমাধানে নেই কারো কোন উদ্যোগ। নেই কারো মাথা ব্যাথা। পল্লীবিদ্যুৎ অফিসে একাধিকবার অভিযোগ করেও এর সুরাহ হয়নি। পল্লীবিদ্যুতের উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে জনসাধারণের চলাচলের জন্য এবং জীবন রক্ষার্থে অতিদ্রুত এ খুটিটি রাস্তার মাঝখান থেকে অপসারণ করে রাস্তার পাশে সরিয়ে নেওয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন।

বাতাবাড়িয়া গ্রামের হাসান, কাপিলা বাড়ি গ্রামের সাইফুল, কোয়াচাঁদপুর গ্রামের ইব্রাহীম, ওবায়েদ, মফিজুল ইসলাম ও আমান উল্লাহ জানান, রাতের বেলা খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে অনেকের হাত-পা ভেঙ্গে আহত হয়েছে। তাছাড়া খুঁটিতে সড়ক বাতি না থাকায় রাতের বেলায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার ঝুকির সম্ভাবনা রয়েছে।

মনপুরা স্কুলে এ্যসাইনমেন্ট নিতে আসা ওই এলাকার স্কুল শিক্ষার্থী শাহারীন ও সুনিয়া আক্তার জানান, এই খুটির কারণে আমাদের স্কুলে যাতায়াতে খুবই সমস্যা হয়। চলাচলে যানবাহন খুটির সাথে ধাক্কা লেগে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকলেও সেটি আমলে নিচ্ছেনা কতৃপক্ষ।

খুঁটির পাশের বাড়ির মফিজুল ইসলাম জানান, চৌরাস্তার মাঝে দাঁড়িয়ে আছে পল্লীবিদ্যুতের এই খুঁটিটি। এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিনিয়ত ট্রাক্টর, সিএনজি, অটোরিক্সা চলাচল করে থাকে। কিছুদিন পূর্বে একটি ট্রাক্টর বালু নিয়ে যাওয়ার সময় আমার বাড়ির দেয়াল ভেঙ্গে ফেলে। পল্লীবিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে বিষয়টি অবগত করেছি। বিদ্যুতের খুঁটিগুলো তাড়াতাড়ি সরানো প্রয়োজন। না হলে যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তারা আজও এর সুরাহ করেনি। বার বার লিখিত এবং মৌখিকভাবে আবেদন করার পরও কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ায় নেয়া হয়নি।

৮নং কাদলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম (লালু) জানান, বাতাবাড়িয়া দক্ষিণ পাড়া মফিজুল ইসলামের বাড়ীর মোড়ে হতে কোয়া চাঁদপুর আড়াই কিলোমিটার এবং বাতাবাড়িয়া হতে কাপিলাবাড়ি ২ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা দুই বছর পূর্বে চলাচলের জন্য রাস্তাটি তৈরি করা হয়েছে। সম্প্রতি রাস্তাটি প্রসস্থ হওয়ায় খুটিটি রাস্তার মাঝে এসে গেছে। বিপজ্জনক স্থানে বৈদ্যুতিক খুঁটি থাকায় রাস্তাটি ব্যবহার করতে না পারায় কৃষকদের ধানসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরবর্তী রাস্তা ঘুরে বাড়ি আসতে হয়। ফলে যানবাহন চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। বৈদ্যুতিক খুঁটি দ্রুত অপসারণ করা প্রয়োজন।

চাঁদপুর-১ কচুয়া পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির এজিএম সিজান আহমেদ জানান, সম্প্রতি রাস্তাটি প্রসস্থ হওয়ায় খুটিটি রাস্তার মাঝে এসে গেছে। খবর পেয়ে ইঞ্জিনিয়ারকে সাথে নিয়ে খুটিটি পরিদর্শণে এসে ঠিকাদারের সাথে কথা বলেছি। দ্রুত সময়ের মধ্যে রাস্তার মাঝ থেকে খুটিটি সরিয়ে ফেলার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ