Feedback

জাতীয়

ভোটের জন্য প্রস্তুত ঢাকা

ভোটের জন্য প্রস্তুত ঢাকা
January 31
11:41am
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
আসন্ন ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতেই শেষ হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আইন অনুযায়ী ভোটগ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে সব ধরনের প্রচার বন্ধ করার বিধান রয়েছে। ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন ভোটগ্রহণ শুরু হবে ১ ফেব্রুয়ারি। সে অনুযায়ী গতকাল রাতেই প্রচারণার সময় শেষ হয়েছে। এই প্রচার বন্ধ থাকবে নির্বাচনের ফল গেজেট আকারে প্রকাশ করা পর্যন্ত। ভোটকে ঘিরে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকাল বিভিন্ন কেন্দ্রে মক ভোটিংও সম্পন্ন করা হয়েছে। দেশের বড় দুই দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও মাঠের বিরোধী দল বিএনপি প্রচারণার শেষদিন গতকালও ইসিতে একে অপর পক্ষের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে। যে কারণে ভোটের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ার শঙ্কায় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করছে ইসি। ভোটের মাঠে থাকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি প্রয়োজনে অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সশস্ত্র বাহিনীকে সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণের অধিকার দেয়া হয়েছে। গতকাল দুই দলের পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পরই এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করেছে নির্বাচন আয়োজনকারী সংস্থাটি। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত থেকে মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। আজ মধ্যরাত থেকে বন্ধ হয়ে যাবে সব ধরনের যান চলাচল। শুধু নির্বাচন কমিশনের স্টিকারযুক্ত মোটরসাইকেল ও গাড়ি রাজধানীতে চলাচল করতে পারবে। এ ছাড়া অ্যাম্বুলেন্স, জরুরি পণ্যবাহী গাড়ি যাতায়াতেও কোনো বাধা থাকবে না। দুই সিটি নির্বাচনে ১৩ মেয়র প্রার্থীসহ কাউন্সিলর পদে প্রায় সাড়ে ৭শ’ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৫৪টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৮টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড নিয়ে ঢাকা-উত্তর সিটি গঠিত। ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে রয়েছে ৭৫টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ২৫টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড। দুই সিটিতে মোট ভোটার ৫৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪৬৭ জন। এর মধ্যে ঢাকা-উত্তর সিটিতে মোট ভোটার রয়েছেন ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। আর ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ভোটার রয়েছেন ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। ইসি সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আধালাখ সদস্য মোতায়েন করেছে ইসি। এদের মধ্যে পুলিশ ও আনসার নিয়োজিত থাকছে ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তায়। আর বিজিবি, র‌্যাব ও নৌ-পুলিশ নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে ভোটের এলাকায়। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী বিভিন্ন বাহিনী গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ভোটের দায়িত্বে নিজ নিজ সদস্যদের নির্দিষ্ট জায়গায় মোতায়েন করেছে। জানা গেছে, কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য প্রতিটি সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৬ জন ও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮ জন করে বিভিন্ন বাহিনীর ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। ভোটের পরদিন (৩ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন। সাধারণ কেন্দ্রে একজন এসআই অথবা এএসআইর নেতৃত্বে চারজন পুলিশ সদস্য, অস্ত্রসহ আনসার দু’জন ও ১০ জন অঙ্গীভূত আনসার মোতায়েন থাকছে। আর ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে পুলিশের সংখ্যা দুজন বেশি রয়েছে। এবারের নির্বাচন ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে হচ্ছে। যেখানে নিয়োজিত থাকবেন সশস্ত্র বাহিনীর ৫ হাজারের বেশি নিরস্ত্র সদস্য। তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নির্দেশনা দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন। এ ছাড়া ভোটার এলাকায় যে ধরনের মহড়া, বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি মোকবিলা, ভোটারদের নির্বিঘ্নে যাতায়াত নিশ্চিত করবে ভ্রাম্যমাণ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স। অন্যদিকে নিরস্ত্র সেনারা অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা প্রতিরোধে যে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবেন। নির্বাচন কমিশন বলছে, ভোটের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন থাকবে না। কিন্তু ইভিএম পরিচালনায় দায়িত্বরত নিরস্ত্র সেনা সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে সশস্ত্র বাহিনী সব পদক্ষেপ নিতে পারবে। এক্ষেত্রে সেনাক্যাম্প স্থাপন অথবা প্রশাসনিক সুবিধাদানকারী ডিভিশনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে। ইসির উপ-সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত পরিপত্রের ১৭ ধারায় বলা হয়েছে, ‘ভোট গ্রহণের দিন কেন্দ্রে অবস্থানরত কারিগরি সহায়তা দেয়া সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা নিরস্ত্র থাকবেন। রিটার্নিং অফিসার/সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও ক্ষেত্রমতে প্রিজাইডিং অফিসার, ভোটকেন্দ্রে অবস্থানকারী আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও টহল কাজে নিয়োজিত পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবির সহায়তায় ওই সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সদস্যদের যাবতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সদস্যরা মোবাইল ফোন বহন করতে পারবেন। উল্লিখিত ব্যবস্থা ছাড়াও যে কোনো প্রকার অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা প্রতিরোধ এবং তাদের নিরাপত্তা বিধানকল্পে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা সবশেষ পন্থা হিসেবে সেনাক্যাম্প স্থাপন করে অথবা প্রশাসনিক সুবিধাদানকারী ডিভিশনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিতে পারবেন।’ পরিপত্রটি গতকালই দুই সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রচারণার শেষদিনে পাল্টাপাল্টি অবস্থানে আওয়ামী-বিএনপি: গতকাল নির্বাচনী প্রচারণার শেষদিনে নির্বাচন কমিশনে গিয়ে একে-অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে আওয়ামী ও বিএনপি। বিএনপির অভিযোগ, ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে নিয়ন্ত্রিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে জয় পাওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে আওয়ামী লীগ। অপরদিকে ক্ষমতাসীন দলটি অভিযোগ করেছে অগ্নিসন্ত্রাসের হোতারা ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে। ইসিকে তাদের প্রতি কড়া নজর রাখতে হবে, প্রয়োজনে তাদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে। যাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি না ঘটে। গতকাল ইসির সাথে বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী অভিযোগ করেন, আসন্ন ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে নিয়ন্ত্রিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে জয় পেতে চায় আওয়ামী লীগ। বৈঠক থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, সোহরাওয়ার্দীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ হচ্ছে। এটা নির্বাচনের বিধির সরাসরি লঙ্ঘন। নির্বাচনের দুই দিন আগে এটা করা যায় না। নির্বাচন কমিশন বলছে তারা কিছু জানেন না, আমরা মনে করি তারা ওয়াচডগ হিসেবে সব পর্যবেক্ষণ করেন। কিন্তু সমাবেশ করছে এটা তারা জানেনই না, এটা আমাদের তাদের কাছে বলতে হয়। সমাবেশে দক্ষিণের প্রার্থীর ব্যানার পোস্টার সিম্বল নিয়ে লোকজন যাচ্ছে। এটা ক্লিয়ারলি ভায়োলেশন। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচটি ইমাম বলেন, ঢাকা-উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রগুলোতে পাহারা বসানোর কথা বলেছেন বিএনপি নেতারা। কিন্তু কেন্দ্রে পাহারা বসানোর অধিকার তাদের কে দিয়েছে। যে কোনো সময়ের চেয়ে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ আছে -দাবি ইসির : ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পরিবেশ যে কোনো সময়ের চেয়ে সুষ্ঠু আছে বলে দাবি করেছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সাথে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা বলেন, প্রার্থীরা তাদের প্রচার চালাচ্ছেন। কোনো বাধা দেখি না। আমাদের কাছে ধরপাকড়ের তথ্য নেই। কোনো ক্রিমিনাল, সন্ত্রাসী, বোমাবাজ যদি এখানে আসে তাদের পুলিশ নজরদারিতে রাখবে এবং ধরবে। কোনো বাসাবাড়িতে তল্লাশি বা রেইড করা হচ্ছে না। অন্যান্য জায়গায় যদি বাইরে থেকে এসে অপরাধীরা থাকে সে বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে বলেছি। প্রয়োজন ছাড়া কেউ যেন ঢাকায় না আসে। মাত্র দু’দিন আগে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) না জানিয়ে আওয়ামী লীগের মুজিববর্ষের সভা করা উচিত হয়নি বলে জানিয়ে সিইসি বলেন, সভার বিষয়ে আ’লীগ আমাদের কিছু জানায়নি। বিএনপির নেতারা জানালেন, জনসভা হচ্ছে। পরে চেক করে দেখলাম যে, সভা হচ্ছে। তবে নির্বাচন সংক্রান্ত জনসভা নয়, মুজিববর্ষের প্রস্তুতি নিয়ে সভা হচ্ছে। যাই হোক, আমি মনে করি, নির্বাচনকে সামনে রেখে এই সভাটা তাদের না করাই উচিত ছিল। আর করার দরকার হলে আমাদের অনুমতি বা পরামর্শ নেয়া উচিত ছিল। কিন্তু তারা সেটি করেনি, আমরা জানিই না। নির্বাচনে পর্যবেক্ষক প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, বিদেশি পর্যবেক্ষকদের জন্য বিধিতে আছে, তারা যেতে পারবে, তাদের নিবন্ধন প্রয়োজন হবে না। স্থানীয় পর্যবেক্ষকরা তো বাইরে থেকে আসেনি, তারা এখানকার, বিভিন্ন দূতাবাসে যারা আছেন তারাও এখানকার। তারা তালিকা দিলে আমরা পরীক্ষা করে তাদের অনুমতি দিতে পারি। সে অনুমতি আছে, গাজীপুরসহ বিভিন্ন সিটি নির্বাচনেও তারা পর্যবেক্ষণ করেছে। তাদের ওপর আমাদের নিয়ন্ত্রণ অবশ্যই থাকবে। তারা যেন বিধির বাইরে কোনো রকম আচরণ করতে না পারে সে ব্যাপারে আমাদের সতর্কতা থাকবে। নিয়ন্ত্রিত নির্বাচনের জন্য ইসি সহায়ক শক্তি, বিএনপির এমন অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে সিইসি বলেন, এ অভিযোগ মোটেই সত্য না। আমরা নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গিতে যে দায়িত্ব, আইনকানুন মেনে তা পালন করে যাচ্ছি। আমরা কারো সহায়ক না, কারো পক্ষে বা বিপক্ষে না।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

আজ মিন্নিকে বরগুনা থেকে কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হল

আজ মিন্নিকে বরগুনা থেকে কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হল

সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা নিতে আবেদন জানিয়েছেন হাবিপ্রবির ছাত্র উপদেষ্টা পরিচালক

সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা নিতে আবেদন জানিয়েছেন হাবিপ্রবির ছাত্র উপদেষ্টা পরিচালক

কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে যুবককে হত্যার পরে লাশ পুড়িয়ে দিলো জনতা!

কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে যুবককে হত্যার পরে লাশ পুড়িয়ে দিলো জনতা!

মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অবৈধ ইলিশ মাছ বিক্রির অভিযোগ

মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অবৈধ ইলিশ মাছ বিক্রির অভিযোগ

মিন্নি কাশিমপুরে বাকিরা  বরিশাল বিভাগীয়  কারাগারে

মিন্নি কাশিমপুরে বাকিরা বরিশাল বিভাগীয় কারাগারে

যার ভরসায় রেখে গেলেন বাবা, সেই দাদাই করলেন শিশুটিকে ধর্ষণ

যার ভরসায় রেখে গেলেন বাবা, সেই দাদাই করলেন শিশুটিকে ধর্ষণ

ম্যাক্রোঁকে ডিম নিক্ষেপ?

ম্যাক্রোঁকে ডিম নিক্ষেপ?

ঠাকুরগাঁওয়ে বন্ধুকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ

ঠাকুরগাঁওয়ে বন্ধুকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ

রায়হানকে পুলিশ ফাঁড়িতে ধরে নিয়ে যাওয়া সেই এসআই গ্রেপ্তার

রায়হানকে পুলিশ ফাঁড়িতে ধরে নিয়ে যাওয়া সেই এসআই গ্রেপ্তার

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি  বাড়ল১৪ নভেম্বর পর্যন্ত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল১৪ নভেম্বর পর্যন্ত

ছাত্রজীবনে মাসিক আয় ১ লাখ!

ছাত্রজীবনে মাসিক আয় ১ লাখ!

কাতারে ফেরার অপেক্ষায় বাংলাদেশিদের জন্য ‘বিকল্প অনুমতিপত্র’ দেওয়া হবে

কাতারে ফেরার অপেক্ষায় বাংলাদেশিদের জন্য ‘বিকল্প অনুমতিপত্র’ দেওয়া হবে

শিশু গৃহকর্মীর মরদেহ রেখে পালানোর সময় স্বামী-স্ত্রী আটক

শিশু গৃহকর্মীর মরদেহ রেখে পালানোর সময় স্বামী-স্ত্রী আটক

অফিস নিচ্ছে গণ অধিকার পরিষদ

অফিস নিচ্ছে গণ অধিকার পরিষদ

ফুঁসলিয়ে ঝোপে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ করে, ধর্ষক আটক

ফুঁসলিয়ে ঝোপে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ করে, ধর্ষক আটক

সর্বশেষ

মামলা নিতে ১৭ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণ: ওসি ও কনস্টেবল প্রত্যাহার

মামলা নিতে ১৭ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণ: ওসি ও কনস্টেবল প্রত্যাহার

যেসব খাবার শীতকালে লিভারকে সুস্থ রাখবে

যেসব খাবার শীতকালে লিভারকে সুস্থ রাখবে

ফ্রান্সে মহানবীকে কটাক্ষ করার প্রতিবাদে রাজশাহীতে হেফাজতে ইসলামের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

ফ্রান্সে মহানবীকে কটাক্ষ করার প্রতিবাদে রাজশাহীতে হেফাজতে ইসলামের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

সরিষাবাড়ীতে তুচ্ছ ঘটনায় ভ্যান চালককে পিটিয়ে হত্যা

সরিষাবাড়ীতে তুচ্ছ ঘটনায় ভ্যান চালককে পিটিয়ে হত্যা

ঢাবির উন্নয়ন ফি কমলো ৫০ শতাংশ

ঢাবির উন্নয়ন ফি কমলো ৫০ শতাংশ

বগুড়া ধুনটে ইয়াবা সহ মাদক ব্যাবসায়ী আটক

বগুড়া ধুনটে ইয়াবা সহ মাদক ব্যাবসায়ী আটক

সৌদি আরবের ক্লিনিং সেক্টরে বড় ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশীরা

সৌদি আরবের ক্লিনিং সেক্টরে বড় ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশীরা

সেনেগাল উপকূলে ইউরোপগামী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ১৪০ অভিবাসীর মৃত্যু

সেনেগাল উপকূলে ইউরোপগামী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ১৪০ অভিবাসীর মৃত্যু

এ সড়ক কার?

এ সড়ক কার?

হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর কার্টুন তৈরী ও প্রদর্শনের প্রতিবাদে বালিয়াডাঙ্গীতে মিছিল ও প্রতিবাদসভা

হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর কার্টুন তৈরী ও প্রদর্শনের প্রতিবাদে বালিয়াডাঙ্গীতে মিছিল ও প্রতিবাদসভা

ভুয়া মোবাইল কোর্টে জরিমানা: বদরগঞ্জ থানার ওসিকে স্ট্যান্ড রিলিজ

ভুয়া মোবাইল কোর্টে জরিমানা: বদরগঞ্জ থানার ওসিকে স্ট্যান্ড রিলিজ

বাংলা চলচ্চিত্রের দুই কিংবদন্তি : এটিএম শামসুজ্জামান ও প্রবীর মিত্রর শেষ ইচ্ছা

বাংলা চলচ্চিত্রের দুই কিংবদন্তি : এটিএম শামসুজ্জামান ও প্রবীর মিত্রর শেষ ইচ্ছা

রায়হানের পরিবারকে উপহার পাঠালেন সিলেটের পুলিশ কমিশনার

রায়হানের পরিবারকে উপহার পাঠালেন সিলেটের পুলিশ কমিশনার

সিলেটে শনাক্ত অর্ধশতাধিক, সুস্থ ৩৮

সিলেটে শনাক্ত অর্ধশতাধিক, সুস্থ ৩৮

পন্য বয়কট এর শাস্তি যথেষ্ট নয়-মাহাথির মুহাম্মদ

পন্য বয়কট এর শাস্তি যথেষ্ট নয়-মাহাথির মুহাম্মদ