About Us
Md.Rakibul Hang - (Chattogram)
প্রকাশ ২১/০৭/২০২১ ১০:১৬পি এম

সড়কে বাড়ছে চামড়ার স্তূপ কাঙ্ক্ষিত মূল্য পাচ্ছে না বিক্রেতা

সড়কে বাড়ছে চামড়ার স্তূপ কাঙ্ক্ষিত মূল্য পাচ্ছে না বিক্রেতা Ad Banner
সড়কে বাড়ছে চামড়ার স্তূপ। ক্রেতা না থাকায় বিপাকে চামড়া বিক্রেতারা। বুধবার (২১ জুলাই) আগ্রাবাদ চৌমুহনী এলাকায় সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গড়ে ২৪০ থেকে ২৫০ টাকায় গরুর চামড়া কিনেছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা । কিন্তু ক্রেতার অভাবে বিক্রি করতে পারছে না চামড়া।

ট্যানারি মালিকদের জন্য চামড়ার ক্রয় মূল্য নির্ধারণ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী এ বছর প্রতি বর্গফুট গরু বা মহিষের চামড়া ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, ঢাকার বাইরে লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরু বা মহিষের চামড়ার দাম হবে ৩৩ টাকা থেকে ৩৭ টাকা, লবণযুক্ত খাসির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১৫ থেকে ১৭ টাকা, আর বকরির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১২ থেকে ১৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু এই নিদের্শনা ট্যানারি মালিকরা মানছে না এমন অভিযোগ করে ছিদ্দিক আহমেদ নামের এক প্রবীন ব্যবসায়ী বলেন, গত তিন বছর ধরে হুমকির মুখে চামড়া শিল্প । মৌসুমী ব্যবসায়ীরা এভাবে ঘটতে থাকলে সামনের বছর থেকে চামড়া সংগ্রহ করবে না। তাতে গ্রামে গঞ্জে চামড়া মাটিতে পুতেঁ ফেলতে হবে।

চট্টগ্রামে চামড়া সংরক্ষণের জন্য দুই আড়ত আতুরার ডিপু ও আগ্রাবাদ চৌমুহনী এলাকায় এই মুহূর্তে চামড়া বিক্রেতাদের হাহাকার। আগ্রাবাদ চৌমুহনী এলাকা থেকে আসা শফিক নামের এক চামড়া বিক্রেতা জানান, প্রতিটি চামড়া কিনেছি গড়ে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা । কিন্তু এই চামড়া ট্যানারি মালিকরা ২০০ টাকা মূলাচ্ছে। একবার ভেবে দেখুন এই চামড়া পরিবহন ব্যয়সহ কত পড়েছে। তিনি বলেন , এই পরিস্থিতি যদি রাতের মধ্যে পরিবর্তন না হয় তবে গত বছরের মতো সড়কে পড়ে থাকবে লাখ লাখ চামড়া।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ