About Us
Md. Razib Hossain - (Kushtia)
প্রকাশ ২০/০৭/২০২১ ০২:৩৬পি এম

পুলিশি পাহারায় ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত

পুলিশি পাহারায় ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত Ad Banner
সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের উত্তর কামারপাড়া জামে মসজিদে পুলিশ পাহারায় ৪ পরিবারের ৭ জন ঈদের জামাত আদায় করেছেন।

মঙ্গলবার (২০ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে ওই ঈদের জামাতের নামাজ আদায় করেন তারা।

স্থানীয়রা জানান, কামারপাড়া গ্রামের ৪টি পরিবার এবং জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে প্রায় ৫০ জন নারী পুরুষ একদিন আগে ঈদের জামাত আদায় করার প্রস্তুতি নেয়। এ সময় ওই গ্রামের ৬৮টি পরিবারের লোকজন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম এবং সহ-সভাপতি আব্দুল কাদেরের নেতৃত্বে মসজিদের সামনে জড়ো হয়।

প্রথমে মসজিদের উত্তর পার্শে মহিলাদের সামিয়ানা প্যান্ডেল ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। পরে প্রায় শতাধিক মুসল্লি জড়ো হয়ে নামাজ আদায় না করতে মসজিদের সামনে পাহারা দেয়। এ সময় ওই ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ আব্দুর রহিম সেখানে যায়।

এ সময় উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হলে গ্রাম পুলিশ স্থানীয় ইউপি সদস্য মাহাবুব হোসেনকে খবর দেন। এরপর ওই ইউপি সদস্য মাহাবুব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করে। পরে হাফিজাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এ সময় পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।

এদিকে খবর পেয়ে পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল্ লতিফ মিয়াসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করেন। পরে পুলিশের পাহারায় তারা ঈদের জামাত আদায় করেন। মঙ্গলবার (২০ জুলাই) সকাল ১০টায় এ জামাত পড়ান ইমাম মনির হোসেন।

পঞ্চগড় সদর থানার ওসি আব্দুল লতিফ মিঞা আরটিভি নিউজকে বলেন, উত্তেজনাকর পরিস্থিতির খবর পেয়ে আমি সেখানে গিয়েছি। এ সময় উভয় পক্ষকে শান্ত করে ৪ পরিবারের ৭ জনকে নামাজ আদায়ের জন্য ব্যবস্থা করে দিয়েছি। সেই সঙ্গে দুই পক্ষকে বিষয়টি সমাধানের জন্য বৈঠক করার কথা বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ওই মসজিদের অধীনে ৭২ পরিবার বসবাস করেন। এরমধ্যে ৬৮ পরিবার একদিন আগে ঈদের জামাত আদায়ের বিষয়ে বিরোধিতা করে আসছেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ