About Us
Md. Jamil Hossan - (Narayanganj)
প্রকাশ ২০/০৭/২০২১ ০২:৫৬পি এম

ধাক্কা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে পিলারটি ফেলে দিয়েছে - ইউএনও

ধাক্কা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে পিলারটি ফেলে দিয়েছে  - ইউএনও Ad Banner
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লাউদিয়া গ্রামে আশ্রয়ণ প্রকল্পের একটি ঘরের পিলার গতকাল শুক্রবার রাতে ভেঙে পড়ে। পিলার পড়ে যাওয়ার বিষয় জানাজানি হলে দুপুরে মেরামত করে নতুন পিলার দেওয়া হয়ে। আর এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বলেন, কে বা কারা ধাক্কা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে পিলারটি ফেলে দিয়েছে। এ ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা হয়েছে।

শনিবার সকালে লাউদিয়া গ্রামের আশ্রয়ণ প্রকল্পে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে মুজিব বর্ষে গৃহহীনদের জন্য ২১টি নতুন ঘর তৈরি করা হয়েছে। আবাসনের ১ নম্বর ঘরের ডান পাশের ইট-সিমেন্টের পিলার ভেঙে পড়ে আছে। মাটিতে পড়ে কয়েক টুকরো হয়ে গেছে। ঘর ঠেকাতে সেখানে বাঁশের খুঁটি দেওয়া হয়েছে।

এ খবর জানাজানি হলে ঝিনাইদহ সদর ইউএনও এসএম শাহীন আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পরিদর্শন করেন। এরপর দুপুরে সেখানে ইট-সিমেন্ট দিয়ে নতুন পিলার তৈরি করে দেওয়া হয়।
ঘরের বাসিন্দা ফাতেমা খাতুন জানান, শুক্রবার রাতে স্বামী-সন্তান নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ রাত ১০ টার পর ঘরের সামনে জোরে কিছু ভেঙে পড়ার শব্দ শুনতে পান। বাইরে বেরিয়ে দেখতে পান ঘরের সামনের ডান পাশের খুঁটিটি ভেঙে পড়ে আছে। তিনি বলেন, খুঁটি ভেঙে পড়ার পর থেকে খুব ভয়ে আছি। কখন জানি ঘর ভেঙে মাথায় পড়ে এই ভয়ে রাত কাটিয়েছি।

আরেক ঘরের বাসিন্দা তারা খাতুন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাগের ঘর দিয়েছে। আমার এতে খুব খুশি। কিন্তুক সেই ঘরে যুদি থাকতি না পারি তাহলে নিয়ে কি করব? সরকার তো কম দিইনি। এই ঘর যারা বানাইছে তারা টাকা মারে খাইছে। এই জন্যি আজ এই দশা।’ লাউদিয়া গ্রামের বাসিন্দা সাহেব আলী অভিযোগ করেন, ‘যে খুটি ভেঙে পড়েছে সেখানে ২ ফিট রড দিয়ে খুটি বানাইছে। ঠিকমত সিমেন্টও দিইনি। তাহলে খুঁটি থাকবে কি করে?’ সুরাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির হোসেন জানান, ইউএনওর ফোন পেয়ে সকালে সেখানে গিয়েছিলাম।

আমরা আশেপাশের কয়েকটি পিলার ধাক্কা দিয়েছি কিন্তু ভাঙেনি। ধারণা করা হচ্ছে কেউ যড়যন্ত্র করে ফেলে দিয়েছে। ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম শাহীন বলেন, সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য রাতের আঁধারে কে বা কারা ধাক্কা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে ঘরের একটি পিলার ফেলে দিয়েছে। তদন্ত চলছে। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেছেন সুরাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির হোসেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ