About Us
MD Raju Hasan - (Gazipur)
প্রকাশ ১৯/০৭/২০২১ ০৩:৫১এ এম

গাজীপুরে দুই মহাসড়কে থেমে থেমে চলছে গাড়ি

গাজীপুরে দুই মহাসড়কে থেমে থেমে চলছে গাড়ি Ad Banner
ঈদুল আযহা উপলক্ষে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে মানুষ। গাজীপুরে সকাল থেকে ব্যস্ততম এলাকাগুলোতে রাস্তায় থেমে থেমে চলছে গাড়ি। যানজট নিরসনে কাজ করছে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

রোববার (১৮ জুলাই) সকাল থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা মোড়, গাজীপুর চৌরাস্তা, মাওনা চৌরাস্তা, রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা, টঙ্গী স্টেশন রোড, ভোগড়া বাইপাস মোড়সহ বিভিন্ন ব্যস্ততম স্থানগুলোতে যাত্রীদের ভিড় দেখা গেছে। এ ভিড় দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত ছিল।

এছাড়া দুপুরের পর থেকে পর্যায়ক্রমে শিল্পকারখানাগুলোতে ছুটির ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। এতে দুপুরের পর যানবাহন ও ঘরমুখী মানুষের চাপ আরও কয়েকগুণ বেড়ে গেছে।

এদিকে দূরপাল্লার যানবাহনগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করলেও ছোট যানবাহনগুলোয় স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যাত্রী, যানবাহনের চালক ও সহযোগীসহ কেউই স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা করছেন না।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ভোগড়া বাইপাস মোড়ে সকাল থেকেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকার মানুষ ভিড় করছেন। যাদের আগে থেকে টিকিট কাটা রয়েছে, তারা নির্ধারিত কাউন্টার থেকে বাসে উঠে যাচ্ছেন। কিন্তু যাদের টিকিট কাটা নেই, তারা বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষায় রয়েছেন বাসের।

রংপুরগামী যাত্রী রিপা আক্তার জানান, রোববার দুপুরে কারখানা ছুটি হয়ে যাওয়ায় ভিড় এড়াতে আজই গ্রামের বাড়ি চলে যাচ্ছেন।

কোনাবাড়ী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর গোলাম ফারুক বলেন, চন্দ্রার ত্রিমোড় এলাকায় কোনো যানজট নেই। তবে গাড়ির চাপ রয়েছে। দুপুরের পর অনেক শিল্পকারখানা ছুটি হওয়ায় যানবাহন ও যাত্রীর চাপ বেড়েছে। সোমবার (১৯ জুলাই) নাগাদ যানবাহন ও মানুষের চাপ আরও কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে।

অপরদিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের আবদুল্লাহপুর থেকে চেরাগ আলী মার্কেট পর্যন্ত বিআরটি প্রকল্পের কাজের জন্য সড়ক ভাঙা থাকায় যানবাহন ধীরগতিতে চলছে। এতে ওই চার কিলোমিটার অংশে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

এছাড়া গাজীপুর মহানগরীর কুনিয়া বড়বাড়ি, ছয়দানা মালেকের বাড়ি, বোর্ডবাজার, বাসন সড়ক ও চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় যানবাহনের প্রচুর চাপ রয়েছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক বিভাগ) মো. মেহেদী হাসান বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অন্যান্য দিনের মতোই যানবাহনের চাপ রয়েছে। তবে ঘরমুখী মানুষের ভিড় বাড়ছে। কারখানা ছুটি হলে যানবাহনের চাপ আরও বেড়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছে। যাত্রীদের নির্বিঘ্নে গন্তব্যে পৌঁছে দেয়ার জন্য চেষ্টা করছি আমরা।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ