About Us
Ali Sohel
প্রকাশ ২০/০৬/২০২১ ০৯:২৪পি এম

কুলিয়ারচরে ২য় ধাপে ১০টি ঘর পেল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

কুলিয়ারচরে ২য় ধাপে ১০টি ঘর পেল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার Ad Banner
কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে দ্বিতীয় ধাপে ঘর পেয়েছে আরও ১০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দ্বিতীয় ধাপে কুলিয়ারচর উপজেলায় গৃহহীনদের জন্য ১০টি ঘর প্রস্তুত করা হয়।

রবিবার (২০ জুন) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে একযোগে ৫৩ হাজার গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘর বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। পরে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী'র সভাপতিত্বে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ অসহায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ১০ টি পরিবারের মাঝে গৃহের চাবি তুলে দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ নূরে আলম, উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদা খানম মুক্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম আবিরাজ মাস্টার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোসাঃ খাদিজা আক্তার, সরকারি বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী, ইউনিয়ন থেকে আগত ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, সাংবাদিক ও ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের সদস্যবৃন্দ।

এতে উপকার ভোগীরা তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা'র দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করে দোয়া কামনা করেন।

জানা যায়, গণভবন হতে ভিডিও কনফারে‌ন্সিং এর মাধ্যমে সারাদেশে একযোগে ৫৩,৩৪০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ গৃহের কবুলিয়ত দলিল, নামজারি, গৃহ প্রদানের সনদ, ডিসিআর কপি ও ঘরের চাবি হস্তান্তরের অংশ হিসেবে কুলিয়ারচর উপজেলায় ২০ শতক খাস জমির উপর গোবরিয়া আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের দশকাহুনিয়া আশ্রয়ন প্রকল্পে ১০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। এতে প্রতিটি ঘরের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী বলেন, এর আগে কুলিয়ারচর উপজেলায় সালুয়া ও রামদী ইউনিয়নে ২০ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে এ জমি ও গৃহ প্রদান করা হয়েছিলো। এ নিয়ে মোট ৩০ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে এ জমি ও গৃহ প্রদান করা হয়। তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে বাকী ইউনিয়ন গুলোতেও ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে গৃহ প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে উপকারভোগীদের মাঝে প্রতি ৩ কেজি চাউল, ১ কেজি ডাউল, ১ কেজি তেল ও ১ কেজি লবণ প্যাকেজ হিসেবে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ