About Us
Md. Suruj - (Gopalganj)
প্রকাশ ২০/০৬/২০২১ ১১:৪৯এ এম

মানবতার জীবনযাপন করছে কুয়াকাটার ব্যবসায়ীরা

মানবতার জীবনযাপন করছে কুয়াকাটার ব্যবসায়ীরা Ad Banner

বাংলাদেশর অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র পটুয়াখালী কুয়াকাটা (সাগরকন্যা)। ২০২০ সালের ১৭ মার্চ করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের লকডাউন ঘোষণা করা হয়। সাথে সাথে সমস্ত শিল্প-কারখানা রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে যায়। যদিও তারপরে আবারো রাস্তা-ঘাট শিল্প-কারখানা সচল রাখা হয় এবং ৩১ জুন ২০২০ সালে পর্যটন নগরী কুয়াকাটা খুলে দেওয়া হয় কিন্তু দ্বিতীয় ধাপ শুরু হ‍ওয়ার সাথে সাথে অধিকাংশ শিল্পকারখানা পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ হয়ে যায়। শিল্প কারখানা খুলে দেওয়া হলেও পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ রাখা হয়।

পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকার কারণে মানবতার জীবনযাপন করছে হাজার হাজার কুয়াকাটার ব্যবসায়ীরা।। দীর্ঘদিন যাবৎ পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। হাজার হাজার ব্যবসায়ী এবং অর্থনৈতিক অবস্থা দিনে দিনে অবনতির দিকে যাচ্ছে।
দ্বিতীয় ধাপের আক্রমণের শুরুতে কুয়াকাটা পর্যটন এরিয়া বন্ধ হয়ে যায়। দুই শতাধিক আবাসিক হোটেল আছে, সমস্ত হোটেল এবং দোকানপাট বন্ধ।

কুয়াকাটা হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান কিন্তু পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকার কারণে তাদের মানবতার জীবন-যাপন করতে হয়েছে। ২৯ মে ২০২১ স্থানীয় ব্যবসায়ারা পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়ার জন্য মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছে।
ব্যবসায়ীদের দাবি যত দ্রুত সম্ভব "কুয়াকাটা" পর্যটন শিল্প স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়া হোক।

বর্তমানে হোটেল ব্যবসায়ীসহ ক্যামেরাম্যান, ভ্রাম্যমাণ দোকান পাট,ফাস্টফুড দোকান, সীফুড দোকান, ঝিনুকের দোকান রাখাইন পল্লী শুঁটকি মার্কেট, রাখাইন মার্কেট ইত্যাদি দোকানপাট বন্ধ থাকার কারণে মানবতার জীবন যাপন করতে হয়েছে। তাদের দাবি যে কোন বিনিময় কুয়াকাটা পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়া হোক।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ