About Us
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
MD. EMRAN HOSSAIN - (Shariatpur)
প্রকাশ ১৮/০৬/২০২১ ০৩:৪২পি এম

শরীয়তপুরের জাজিরায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জোড়পূর্বক জমি দখলের অভিযোগ

শরীয়তপুরের জাজিরায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জোড়পূর্বক জমি দখলের অভিযোগ Ad Banner

শরীয়তপুরেরর জাজিরা উপজেলার সেনেরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইসমাইল মোল্লার বিরুদ্ধে স্থানীয় আব্দুল খালেক মোল্লার জমি জোড়পূর্বক দখল করার অভিযেfগ উঠেছে।

জানা যায় স্থানীয় আঃ খালেক মোল্লার বাড়ি সংলগ্ন একটি জমি স্থানীয় চেয়ারম্যান জোড়পূর্বকভাবে দখল করে নিয়ে গিয়ে সেই জমিতে নিজের নামে স্কুল করে।

এ বিষয়ে আঃ খালেক মোল্লার ছেলে কালাম মোল্লা জানান, চেয়ারম্যান তার প্রশাসনিক ক্ষমতার অপব্যবহার করে আমাদের উক্ত জমি জোরপূর্বক দখল করে স্কুলটির মাঠ ভরাট করছেন। আমরা গরীব কৃষক, আমাদের সম্বল ঐটুকু জমিই, যা চাষ করে আমাদের সংসার চলত কিন্তু চেয়ারম্যান ইসমাইল মোল্লা জোড়পূর্বকভাবে আমাদের জমি দখল করে স্কুলকে দিয়ে দিছে। ইসমাইল মোল্লা ও স্কুল কর্তৃপক্ষ বর্তমানে জমিটি ভরাট করে স্কুলের মাঠ তৈরী করছে। জমিটি নিয়ে কোর্টে মামলা চলমা রয়েছে করোনার কারণে কোর্ট বন্ধ, এই সুযোগ নিয়ে চেয়ারম্যান জমি দখল করছে। আমরা জাজিরা থানা এবং ইউনোর কাছে অভিযোগ নিয়ে গেলে তারা বিশেষ কোনো সহযোগিতা করেনি।



এছাড়া আরও জানা যায়, প্রাথমিক বিদ্যালয়টির নামকরণও করা হয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল মোল্লার নামে এবং বিদ্যালয়টির ম্যানিজিং কমিটির সভাপতিও তিনি নিজেই। চরধুপুরিয়া মৌজার উক্ত জমি সমন্ধে এ্যাড. রাজীব আকন বলেন, স্কুলের নামে ২২২নম্বর দাগের জমি নেই। ২২২ নম্বর দাগের জমি হালান মোল্লা ও পুনাই মোল্লার নামে রেকর্ড ও দলিল মূলে আব্দুল খালেক মোল্লা মালিক।

এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল মোল্লা বলেন, আমি অভিযোগকারীদের সাথে বসতে আগ্রহী। যদি তারা জমি পায় তাহলে তাদের সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণ আমি দিতে প্রস্তুত আছি। তবে আপাতত আমি কোন কাজ বন্ধ করবো না। আমি আমার মত করে সেখানে কাজ চালিয়ে যাব।


এ বিষয়ে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গতকাল সন্ধায় চেয়ারম্যানকে উক্ত ড্রেজিং বন্ধ রাখতে বললেও চেয়ারম্যান অল্প সময়ের জন্য বন্ধ করে এবং সেখান থেকে পুলিশ চলে আসলে পূণরায় ড্রেজিং চালু করেন। তবে পরে জাজিরা থানা আর কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি বলে জানা যায়।


এবিষয়টি নিয়ে জাজিরা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আশরাফুজ্জামান ভূঁইয়া জানান, যেহেতু বিষয়টি নিয়ে কোর্টে মামলা চলমান রয়েছে, সেহেতু আমরা কিছুই করতে পারি না। কোর্ট থেকে নিষেধাজ্ঞার কাগজপত্র বের করে নিয়ে আসলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ