About Us
Md Jahidul Islam Sumon
প্রকাশ ১৬/০৬/২০২১ ১২:১৮পি এম

আফগানিস্তানে নিশানায় টিকাকর্মী, গুলিতে নিহত পাঁচ

আফগানিস্তানে নিশানায় টিকাকর্মী, গুলিতে নিহত পাঁচ Ad Banner

বন্দুকবাজের আক্রমণে মঙ্গলবার পূর্ব আফগানিস্তানের নানগরহর প্রদেশে নিহত হলেন পাঁচ পোলিও টিকাকরণ কর্মী। পুলিশ সূত্রে খবর, মাত্র দু'ঘণ্টার মধ্যে তিনটি জায়গায় বন্দুক হামলার মুখে পড়েন টিকাকর্মীরা। তিন মাস আগেও এই অঞ্চলে এই ধরনের আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছিলেন তিন মহিলা টিকাকর্মী। পুলিশের দাবি, এই হামলার পিছনে তালিবানের চক্রান্ত রয়েছে। সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্য-ব্যবস্থা থেকে বঞ্চিত করার জন্যই এই ধরনের আক্রমণ বারবার চালায় তালিবান। আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থারও বিরোধী তারা। যদিও, জঙ্গি সংগঠনটির তরফে হামলার দায় অস্বীকার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রের খবর, আফগানিস্তানের খোয়ানিতে আজ গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দুজন টিকাকর্মী, আহত হয়েছেন এক জন। অন্য দিকে, সুরখরোদ এলাকায় মৃত্যু হয়েছে দুজনের। এ ছাড়া জালালাবাদে টিকাকরণের সময় প্রাণ হারিয়েছেন ও আহত হয়েছেন আরও দুজন। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে দুই টিকাকর্মীকে। অর্থাৎ, আক্রমণে মোট আহত হয়েছেন চার জন। তাঁদের মধ্যে দুজনের অবস্থা অত্যন্ত গুরুতর।

গত মার্চে, জালালাবাদে গুলি করে হত্যা করা হয় তিন মহিলা টিকাকর্মীকে। পরে, আইএস জঙ্গি সংগঠন সেই আক্রমণের দায় স্বীকার করেছিল। বর্তমানে বিশ্বে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান— এই দুটি দেশে শুধু পোলিও সংক্রমণের হার অত্যন্ত বেশি। ২০২০ সালে আফগানিস্তানে অন্তত ৫৪ জন পোলিয়ো আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। তার পরেই রাষ্ট্রপুঞ্জের সঙ্গে মিলে টিকাকরণ অভিযান শুরু করে এই দেশ। এ দিকে, করোনা অতিমারির তৃতীয় ঢেউয়ে এই দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৩৬০০ জনেরও বেশি। তার মধ্যেই এই হামলার ঘটনায় করোনার টিকাকরণ নিয়েও চিন্তায় পড়েছে প্রশাসন। ক্রমাগত চলতে থাকা এই আক্রমণের কারণে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে টিকাকরণ এখন কার্যত বন্ধ। পোলিয়ো টিকাকরণের অভিযানের প্রধান জান মহম্মদ জানিয়েছেন, মঙ্গলবার তাঁদের টিকাকরণের দ্বিতীয় দিন ছিল। তিন মাস আগের আক্রমণের পরে আবার নতুন করে টিকাকরণ শুরু হয়েছিল, কিন্তু ফের আক্রমণ করে তা বন্ধ করে দেওয়া হল। আপাতত, টিকাকরণ অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিত বলেই জানিয়েছেন তিনি। গত বছর দোহাতে আফগান সরকার ও তালিবানদের শান্তি চুক্তির সম্ভাবনা নিয়ে আলাপ-আলোচনা শুরু হওয়ার পর পরই সে দেশে এই ধরনের হামলার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। আক্রমণের মূল লক্ষ্য সাধারণত চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকমী, সাংবাদিক ও আইনজীবীরা। স্বাস্থ্য মন্ত্রীর মুখপাত্র ওসমান তেহরি মঙ্গলবার একটি বিবৃতিতে এই আক্রমণের কথা জানিয়ে কড়া সমালোচনা করেছেন। 




শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ