About Us
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Md. Rajibul Islam - (Gazipur)
প্রকাশ ১১/০৬/২০২১ ০৬:৫১পি এম

ডালিম এর ঔষধিগুণ

ডালিম এর ঔষধিগুণ Ad Banner

“আতা গাছে তোতাপাখি ডালিম গাছে মৌ..”  ডালিম গাছে মৌ.. ছড়াটা ছোটবেলা কে না পড়েছে!    এই মৌ বসা ডালিম গাছের ডালিম তো আমরা সবাই চিনি, সবাই খেয়েছি তাই না?     

চীনারা একে বলে থাকেন ‘লাকি ফ্রুট।’ আমাদের কাছে এটি ডালিম নামেই পরিচিত। এটিকে আরও কয়েকটি নামে অভিহিত করা হয়।  পাঞ্জাব ও কাশ্মীরে এটি বেদনা নামে পরিচিত। কেউ কেউ বলে থাকেন আনার৷ ডালিম, বেদানা, আনার যেটাই হোক না কেন ফল তো একই৷     

ডালিমের বৈজ্ঞানিক নাম  ‘Punica granatum’। স্বাস্থ্য ও ত্বকের জন্য ডালিম খুবই উপকারী একটি ফল৷   সব ফলই তো স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

কিন্তু ডালিমে আছে এন্টিঅক্সিডেন্ট যা শরীরে থাকা  জীবাণু অপসারণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি থেকে ত্বককে সুরক্ষিত রাখতেও ডালিমের সুখ্যাতি আছে। 

 অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, ডালিম ফল, ডালিম গাছের পাতা, ছাল, মূল, মূলের ছাল সবই ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা যায়।  

চলুন জেনে নেয়া যাক টুকটুকে এক লাল ফল ডালিমের গুণাগুণ— 

 •ডালিমে প্রচুর পরিমাণে লৌহ আছে যা রক্তবৃদ্ধি করে৷     

•ডালিমের রস মেধা শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।     

•ডালিম মুখের রুচি বৃদ্ধি করে। আমরা প্রায় সময়ই মুখের রুচি হারিয়ে ফেলি৷ ভালো খাবারও তখন স্বাদ লাগে না।  যারা এ সমস্যায় ভুগছেন তারা ডালিম খেতে পারেন৷     

• ডালিম ক্ষুধা বাড়াতে সাহায্য করে। অনেকেই ক্ষুধামন্দায় ভুগেন৷ তারা নিয়মিত ডালিম খেলে উপকার পাবেন।     

•শরীর স্নিগ্ধ করে এবং মেদ ও বল বৃদ্ধি করে৷     

•কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে     

•কাশি ও বাত ব্যথা কমায়   

•ডালিমের শরবত খেলে মাথা ঠান্ডা থাকে ও চোখ জ্বালা কমে   

•যারা বহুদিন ধরে আমাশায় ভুগছেন তাদেরকে ডালিমের খোসা ও লবঙ্গ ফুটিয়ে খাওয়ালে সুফল পাওয়া যায়।       

•ডালিম গাছের মূলের ক্বাথ কৃমিনাশ করে।     

•ডালিম মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ও চুলপড়া কমায়৷ এটি চুলের উজ্জ্বলতাও বৃদ্ধি করে।       

•ডালিম হজম প্রক্রিয়াকে সক্রিয় রাখে বিধায় পেট পরিস্কার থাকে এবং ত্বকে ব্রন দেখা দেয় না৷ ডালিমে রয়েছে ভিটামিন সি, যা তেল গ্রন্থিকে নিয়ন্ত্রণ করে৷     

 •ডালিম রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনে এবং রক্তে এইচডিএল নামক এক প্রকার কোলেস্টেরল সরবরাহ করে। যা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়।       

•ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ডালিম গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ডালিমে আছে ডায়েট্রি ফাইবার৷ যা রক্তের শর্করা কমিয়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে৷       

•ডালিমের রস ক্যান্সার কোষ তৈরি হতে দেয় না। বিশেষ করে মূত্রনালির ক্যান্সার দমনে এটি বিশেষ ভূমিকা রাখে৷     

•ডালিমে আছে এন্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা ত্বকের জন্য আরামদায়ক। আরও আছে ট্রিকোসেনিক এসিড এবং  ওমেগা-৫ ফ্যাটি এসিড যা শুষ্ক ও রুক্ষ ত্বককে আর্দ্র রাখে৷     

•ডালিমের রস ত্বকে বলিরেখা পড়তে দেয় না এবং ত্বকের কোষকে দীর্ঘায়ু করে৷ এটি কোলাজেন ও অ্যালাস্টিন উৎপাদনেও সহায়তা করে। এই দুটি উপাদানই ত্বককে সুরক্ষিত ও সজীব রাখে৷       

•প্রতিদিন একটি ডালিম খেলে ১৭ শতাংশ ভিটামিন সি শরীরে প্রবেশ করে।     

•মিষ্টি ডালিম মেধা বৃদ্ধি করে, হার্ট ও লিভার সবল রাখে৷       

•ডালিমের ফুল ও ডালিমের খোসা জৈত্রী দারুচিনি, ধনে ও গোলমরিচের গুঁড়ো মিশিয়ে খাওয়ালে বাচ্চাদের পুরনো  পোটের অসুখ ও পায়খানার সাথে রক্ত পড়া বন্ধ হয়।   

 •ডালিমের রস খেলে জন্ডিস ভালো হয় ও বুক ধড়ফড়ানি কমে।     

ডালিম খান।  সুস্থ থাকুন৷ সুস্থ জীবন সুন্দর জীবন।     

“আতা গাছে তোতাপাখি ডালিম গাছে মৌ..”     

ডালিম গাছে মৌ.. ছড়াটা ছোটবেলা কে না পড়েছে!   



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ