About Us
Md. Nasir Uddin - (Dhaka)
প্রকাশ ০৯/০৬/২০২১ ০২:২৮এ এম

প্রজেক্ট তেলাপিয়া : রেষ্টুরেন্ট নাকি অন্যকিছু?

প্রজেক্ট তেলাপিয়া : রেষ্টুরেন্ট নাকি অন্যকিছু? Ad Banner

''প্রজেক্ট হিলশা'' সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের সোশ্যাল মিডিয়ায় হাইপ তোলা রেস্টুরেন্ট। পদ্মাপাড়ের রেস্টুরেন্টটিকে বলা হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রেস্টুরেন্টও।  ইলিশ মাছের আকৃতিতে নির্মিতি রেস্টুরেন্টটি নান্দনিক নির্মাণ শৈলী আর ব্যাতিক্রমী সব ইলিশের পদের জন্য খুব দ্রুতই মানুষের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসে। 

সেই সাথে রেস্টুরেন্টটি খাবারের অতিরিক্ত  দাম, ১৫% ভ্যাটের সাথে অতিরিক্ত ১০% সার্ভিস চার্জ সহ নানা কারণে সমালোচনার জন্মদেয় । তারপরই  প্রজেক্ট হিলশার সাথে তুলনা করে তেলাপিয়া আকৃতির ভবনটির ছবি  ''প্রজেক্ট তেলাপিয়া'' নমে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে।  অনেক বলছেন সেটির খাবার নাকি আবার মানে ভালো দামে কম। 

প্রজেক্ট তেলাপিয়া হিসেবে পরিচিতি পেলেও ভবনটি মূলত ফিশারিজ ভবন। যা মূলত ভারতের হায়দরাবাদে অবস্থিত একটি ভবন।  মাছ আকৃতির এ ভবনটি মূলত দেশটির জাতীয় মৎস্য উন্নয়ন বোর্ডের (এনএফডিএ) প্রধান কার্যালয়। সংস্থাটির ওয়েবসাইটে বলা হচ্ছে, দেশটির মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীনে স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে ২০০৬ সালে জাতীয় মৎস্য উন্নয়ন বোর্ড গঠন করা হয়। মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে ও বিলুপ্তপ্রায় মাছ সংরক্ষণে পুরো ভারতজুড়ে কাজ করে সংস্থাটি।

এ ছাড়াও সংস্থাটির ওয়েবসাইট ঘেটে আরো জানা যায় যাচ্ছে হায়দরাবাদ শহরে ২০০৬ সালের ১১ সেপ্টেম্বর মৎস্য উন্নয়ন বোর্ডের ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপর ২০১২ সালের এপ্রিলে এই মাছ আকৃতির ভবনে অফিস শুরু করে ভারতীয় মৎস্য উন্নয়নবোর্ড। এক কথায় যা মূলত একটি প্রশাসনিক ভবন কোন রেস্টুরেন্টে নয়।  ১০তলা ভবনটি মাটির সঙ্গে সংযুক্ত শুধু কিছু পিলার দিয়ে, সামনে আছে সিঁড়ি। এছাড়া দুটি টানেলে নিচ থেকে ভবনে ওঠার জন্য রয়েছে লিফটের ব্যবস্থাও। দৃষ্টিনন্দন হলেও ভবনটিতে দাপ্তরিক কাজ ছাড়া কোনো দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারেন না। এমনকি ভবনটির পাশ দিয়ে যাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতেও দাঁড়াতে দেওয়া হয় না কোনো যানবাহন। খাবার বেঁচা বিক্রি তো দূরের কথা।  


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ