About Us
মোঃ ইমরান নাজির - (Dhaka)
প্রকাশ ০৮/০৬/২০২১ ০১:৫০পি এম

কানাডায় গাড়িচাপা দিয়ে মুসলিম পরিবারের ৪ জনকে হত্যা

কানাডায় গাড়িচাপা দিয়ে মুসলিম পরিবারের ৪ জনকে হত্যা Ad Banner

কানাডায় গাড়িচাপা দিয়ে একটি মুসলিম পরিবারের ৪ জনকে হত্যা করেছে এক যুবক। স্থানীয় সময় রোববার দেশটির অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন শহরে এ হামলার ঘটনা ঘটে। মুসলিম বিদ্বেষ বা হেইট ক্রাইম থেকে এই হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছে পুলিশ। নিহতদের মধ্যে দুই জন নারী। যাদের বয়স যথাক্রমে ৭৪ ও ৪৪ বছর। এ ছাড়া ১৫ বছরের এক কিশোরী ও ৪৬ বছরের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। কোনো মতে প্রাণে বেঁচে গেছে ৯ বছর বয়সী এক শিশু। তবে তাদের পরিবারের ইচ্ছাতেই পূর্ণাঙ্গ পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, হামলাকারীর নাম নাথানিয়াল ভেল্টম্যান। ২০ বছর বয়সী এই যুবক পূর্বপরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালিয়েছে। এটাকে হেইট ক্রাইম বা বিদ্বেষমূলক অপরাধ হিসেবে মনে করা হচ্ছে। কানাডীয় পুলিশ হামলার পর প্রায় ৬ কিলোমিটার দূর থেকে তাকে আটক করেছে। অন্টারিও পুলিশ সুপার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, হত্যার ধরন দেখে হেইট ক্রাইম বলা যেতে পারে। তবে ঘটনাটি নিয়ে আরো পর্যবেক্ষণ করবেন তারা। তাছাড়া অন্টারিওর বাসিন্দা ওই যুবক কোনো হেইট গুপের সদস্য কি না- সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো মর্মান্তিক এই ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এবং পরিবারটির পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন। টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, এই ঘটনায় আমি মর্মাহত। ঘৃণ্য এই ঘটনায় প্রিয়জন হারানোদের পাশে আমরা আছি। একই সঙ্গে হাসপাতালে থাকা শিশুটির পাশেও আমরা আছি। অন্টারিও প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ডগ ফোর্ড এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টুইট করেছেন। তিনি লিখেছেন, ঘৃণা ও ইসলাম বিদ্বেষীর কোনো জায়গা অন্টারিওতে নেই। এ ছাড়া এ ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন লন্ডন শহরের মেয়র। উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৭ সালে কানাডায় হেইট ক্রাইমে হত্যার শিকার হয়েছিলেন ৬ মুসলিম ব্যক্তি। কুইবেক শহরের মসজিদে চালানো ওই হামলার পর কানাডার মুসলিমদের ওপর এটাই সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ