About Us
Abusayed - (Gazipur)
প্রকাশ ০৭/০৬/২০২১ ০৯:৪৯পি এম

শ্রমিকের বেতনের ১৯ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা নিয়ে দিন ভর নাটক

শ্রমিকের বেতনের ১৯ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা নিয়ে দিন ভর নাটক Ad Banner

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার পল্লীবিদ্যূৎ এলাকা থেকে সোমবার দুপুরে ১৯ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় পুলিশ প্রশাসন দিনভর নাটক করেছে।

এ বিষয়ে পল্লীবিদ্যূৎ এলাকার লির্বাটি ফ্যাশন নামক কারখানা কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ সম্মিলিতভাবে তথ্য গোপন রেখে টাকা ও ছিনতাইকারী গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালান। এখন পর্যন্ত ছিনতাই হওয়া ১৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

নাম প্রকাশে কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ছিনতাই হওয়া টাকা ও ছিনতাইকারীদের গ্রেপ্তাররের জন্য একজন সহকারী পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে কাজ চলছে। 

পুলিশ, প্রত্যেক্ষদর্শী ও ছিনতাইকারীর কবলে পড়া অফিসাররা জানান, ওই কারখানার দুইজন সিনিয়র হিসাব রক্ষক জাহাঙ্গীর আলম ও আব্দুল্লাহ আল মামুন উপজেলার সফিপুরস্থ শাহা জালাল ইসলামী ব্যাংক থেকে শ্রমিকের বেতনের জন্য ১৯লাখ ২৫ হাজার টাকা তুলেন।

পরে টাকাগুলো একটি ব্যাগে ভরে ব্যাংক থেকে বের হয়ে তাদের ব্যবহৃত একটি মোটর সাইকেল নিয়ে কারখানায় যেতে থাকেন। এ সময় তাদের মোটরসাইকেলটি ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের আইমন টে·টাইল নামক কারখানার সামওে পৌছালে দুইটি মোটর সাইকেল যোগে ফিল্মী ষ্টাইলে তাদের মোটর সাইকেলের গতি থামায়। এ সময় ছিনতাইকারীরা ওই দুই কর্মকর্তাকে বেধরক মারধর করে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ সময় আশপাশের লোক ছিনতাইকারীদের ধাওয়া দিলে  ছিনতাইকারীরা টাকা নিয়ে টাঙ্গাইলের দিকে চলে যায়।  খবর পেয়ে শ্রীপুর-কালিয়াকৈর সার্কেল সহকারীকারী পুলিশ সুপার আল মামুন কালিয়াকৈর থানার ওসি মোঃ মনোয়ার হোসেন চৌধুরি ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন।

পরে কয়েকটি ট্রিমে ভাগ হয়ে টাকা উদ্ধার ও ছিনতাইকারী গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাতে থাকেন। সন্ধ্যার দিকে থানার সামনে ছিনতাইয়ের কবলে পড়া দুই কর্মকর্তাও সাথে স্থানীয় কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মী কথা বলার সময় মাহবুব নামের এক পুলিশ কর্মকর্তা বাধার সৃষ্টি করেন।

পরে ওই দুই কর্মকর্তাকে একটি প্রাইভেটকারে তুলে কারাখানায় যাওয়ার জন্য তাগিদ দেন।  ছিনতাইকারীর কবলে পড়া জাহাঙ্গীর আলম ও আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, ছিনতাইকারীরা আমাকে বেধরক মারধর করে হাত ভেঙ্গে ফেলে। পরে আমাদের কাছে থাকা ১৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এসময় তারা আরো জানান, এ বিষয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষ মামলা নাও করতে পারেন।   

রাতের দিকে ওই কারখানার হিসাব রক্ষক এরশাদুল বাদী হয়ে থানার একটি অভিযোগ দিতে গেলেও এরিপোর্ট  লেখা পর্যন্ত অভিযোগটি থানায় জমা দেননি।  কালিয়াকৈর থানার ওসি মোঃ মনোয়ার হোসেন চৌধুরি জানান, এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেওয়ার জন্য কারখানার সংশিষ্ট কর্মকর্তাদের ডাকা হয়েছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ