Feedback

রাজনীতি

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে সমাবেশ

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে সমাবেশ
February 16
12:55pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
দমননীতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি দমিয়ে রাখা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, সরকার মনে করেছে- এভাবে দমন-নিপীড়ন-বাধা দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে। জনগণের যে প্রাণের দাবি তাকে বাধাগ্রস্ত করবে। কিন্তু তারা ভুলে গেছে এভাবে দমন-পীড়ন চালিয়ে কখনও ক্ষমতায় থাকা যায় না।  জনগণের ন্যায্য দাবিকে কখনও দমন নিপীড়ন করে দমন করা যায় না। গতকাল শনিবার পূর্বঘোষিত বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি পুলিশ করতে না দিয়ে সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিকাল তিনটায় সমাবেশ শুরু হয়। দেড় ঘন্টাব্যাপী সমাবেশে নেতারা ফুটপাতে দাঁড়িয়ে বক্তব্য রাখেন। রিকশার ওপরে দুইটি মাইক লাগিয়ে সমাবেশ হয়। মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার মনে করেছে এইভাবে নির্যাতন করে, নিপীড়ন করে, গ্রেফতার করে, গুম করে জনগণের যে প্রাণের দাবি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি, গণতন্ত্রের মুক্তির দাবিকে তারা দাবিয়ে রাখবে, দমিয়ে রাখবে। কিন্তু ইতিহাস প্রমাণ করে যে, এভাবে দমননীতি নিয়ে, নির্যাতন-নিপীড়ন করে জনগণের যে ন্যায্য দাবি সেই দাবিকে কখনো দমন করা যায় না। বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, দেশনেত্রী অত্যন্ত অসুস্থ, আমরা বার বার তাঁর মুক্তির দবি করেছি, জামিন চেয়েছি এবং মুক্তির মধ্য দিয়ে তাঁর চিকিৎসার দাবি জানিয়েছি। আমরা তাদের কাছ থেকে কোনো রকমের সাড়া পাইনি। আমরা আশা করব, অতি দ্রুত মানবিক কারণে দেশের জনগণের দাবিকে সম্মান করে তারা (সরকার) দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেবেন। দেশনেত্রীর মুক্তির দাবি আমি জানাচ্ছি। বিএনপি মহাসচিব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে নেতা-কর্মীদের সমাবেশে শেষে শান্তিপূর্ণভাবে ঘরে ফিরে যাওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, আমরা কোনো সুযোগ দিতে চাই না। দয়া করে এখান থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ঘরে যাবেন। পরবর্তী কর্মসূচি পরে ঘোষণা করবো। বিএনপি মহাসচিব  বলেন, এই সরকার একটা দখলদারী সরকার, বেআইনি সরকার। জনগণের কোনো ম্যান্ডেট তাদের নেই্, সেই ম্যান্ডেট ছাড়াই তারা জোর করে ক্ষমতায় একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠা করবার জন্য সমস্ত নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে। আমাদের অসংখ্য নেতা-কর্মীকে তারা গুম করেছে, খুন করেছে, নির্যাতন করেছে। আমাদের প্রায় ৩৫ লক্ষ নেতা-কর্মীকে আসামি করেছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এই দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আজীবন সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন। তাঁকে আজকে ২ বছর ৭ দিন ধরে কারাগারে আটক করে রাখা হয়েছে। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী বেলা ২টায় নয়া পল্টনের কার্যালয়ের সামনে থেকে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল হওয়ার কর্মসূচি ছিলো। সকাল ৯টায় পুলিশ দলের কার্যালয়ে ঘিরে রাখে। নেতাকর্মীদের প্রবেশ করতে দেয়নি। প্রধান ফটকের কাছে পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে অবস্থান নেয়। ওই সময়ে ফটকের ভেতরে দাঁড়িয়ে যুগ্ম মহাসচিব হাবিব- উন-নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুসহ ২০/৩০ জন নেতা-কর্মী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মুহুর্মুহু সেøøাগান দিতে থাকে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নয়া পল্টনে আসেন। দলীয় কার্যালয়ে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ অফিসের কর্মকর্তা-কর্মীরা ছিলেন। বিক্ষোভ মিছিল উপলক্ষে সকাল থেকে নয়া পল্টন থেকে বিজয়নগর, তোপখানা সড়কের অলি-গলিতে ব্যাপক পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকতে দেখা যায়। পুলিশের এরকম অবরুদ্ধ অবস্থার মধ্যে বেলা আড়াইটায় হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও কাজী আবুল বাশার নেতা-কর্মীদের নিয়ে কার্যালয় থেকে বেরিয়ে ফুটপাতে সমবেত হন। সোহেল জানান, আমরা এখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করবো। এ সময় কার্যালয়ের প্রধান ফটকের কাছে দাঁড়িয়ে থাকার পুলিশ সদস্যরা সরে পেছনে চলে যায়। মুহূর্তের মধ্যে রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা নেতাকর্মীরা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সমবেত হয়। তিনটায় এই সংক্ষিপ্ত সমাবেশে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী জড়ো হয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ সেøøাগান সেøাগান দিতে থাকে। বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আজকে দেশনেত্রীকে ২ বছর ৭ দিন সরকার কারাগারে আটকিয়ে রাখা হয়েছে। আমরা বলতে চাই, দেশনেত্রী কারাগারে নয়, আজকে সারা বাংলাদেশকে কারাগার করা হয়েছে। আজকে গণতন্ত্রকে হত্যাকে করেছে, অর্থনীতিকে ধ্বংস করা হয়েছে, দেশের মানুষ নিপীড়িত-নির্যাতিত। আজকে দেশ এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এই অবস্থা থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে। গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হলে আগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। আজকে আমরা কর্মীদের যে সাহস দেখেছি এভাবে যদি আপনারা রাস্তায় থাকেন ইনশাল্লাহ অচিরেই দেশনেত্রীকে আমরা মুক্ত করতে পারবো। বিএনপি স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে শত প্রতিকূলতার মাঝেও আমরা এখানে সমবেত হয়েছি। আমাদেরকে খালেদা জিয়ার প্রতি ভালোবাসা নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের জেলে নিক, নির্যাতন করুক, গুম-খুন করুক কোনো কিছুতেই প্রতিবাদ থামবে না। আমাদের আন্দোলন চলতেই থাকবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি যে ভালোবাসা এটাকে বুকে নিয়েই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের লাঠি-পেঠা করুক প্রতিবাদ থামবে না, জেলখানায় ভরুক প্রতিবাদ থামবে না,  আমাদেরকে গুম করুক প্রতিবাদ থামবে না। এই প্রতিবাদ চলতেই থাকবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ইনশাল্লাহ যেকোনো প্রক্রিয়ায় বিএনপির কর্মী নেতৃবৃন্দ অবশ্যই সকলরকম ভূমিকা পালন করবে। সারা বাংলাদেশে মুক্তির দাবি কর্মসূচি হচ্ছে, দেশনেত্রীকে ইনশাল্লাহ আমরা এবার মুক্ত করে ছাড়বো। বিএনপি স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেন, সরকার বিচার বিভাগকে প্রভাবিত করে বেগম খালেদা জিয়াকে জামিন দিচ্ছে না। কারণ সরকার জানে বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত হয়ে রাজপথে নামলে জনগণের স্রোতে সরকার ভেসে যাবে। তাই বেগম খালেদা জিয়ার জামিন বাধাগ্রস্ত করছে। তাঁকে আটকে রাখছে। আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবো। বিএনপি স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমরা মায়ের মুক্তির জন্য সমবেত হয়েছি। মায়ের মুক্তির সংগ্রাম কেউ থামাতে পারে না। কোনোভাবে বাধাগ্রস্ত করতে পারে না। মায়ের মুক্তি জনগণ, গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও স্বাধীনতার মুক্তি। মায়ের মুক্তির আন্দোলনে আমাদের যোগ দিয়ে মাকে মুক্ত করতে হবে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার ও আহসানউল্লাহ হাসানের পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিএনপির  ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব  সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেইন, কৃষক দলের সদস্য সচিব হাসান জাফির তুহিন, মহানগর বিএনপি নেতা বজলুল বাসিত আনজু, যুবদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম মিল্টন, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ। এছাড়াও সমাবেশে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, আন্তজার্তিক বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সুপু, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, শহীদুল ইসলাম বাবুল, খন্দকার মাশুকুর রহমান, হারুনুর রশীদ, সেলিমুজ্জামান সেলিম, যুব বিষয়ক সহ- সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী, নির্বাহী কমিটির সদস্য মেয়র মজিবুর রহমান, আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি দেওয়ান মো. সালাহউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক, জাসাসের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদার, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন রোকন, তাঁতী দলের যুগ্ম আহবায়ক ড. মনিরুজ্জামান মনির, সদ্য সমাপ্ত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন, ছাত্রনেতা রাজিব আহসান পাপ্পুসহ মহানগর অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে ঢাকা ও আশপাশের জেলা থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সমাবেশে অংশ নেন। গতকাল গাজীপুর জেলা বিএনপির আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনকে আটক করার পর ছেড়ে দেয় পুলিশ। পুলিশি হামলায় আহত হন জেলা বিএনপির সদস্য সচিব কাজী সাইয়েদুল আলম বাবুল, সদস্য শাহ রেজাউল হান্নানসহ বেশ কিছু নেতাকর্মী। এদিকে গতকাল দিনভর বিএনপি কার্যালয় ঘেরাও করে রাখে পুলিশ।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

আগামী তিন বছরে ১২ লাখ ৩৩ হাজার অভিবাসী নেবে কানাডা

আগামী তিন বছরে ১২ লাখ ৩৩ হাজার অভিবাসী নেবে কানাডা

কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে যুবককে হত্যার পরে লাশ পুড়িয়ে দিলো জনতা!

কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে যুবককে হত্যার পরে লাশ পুড়িয়ে দিলো জনতা!

মিন্নি কাশিমপুরে বাকিরা  বরিশাল বিভাগীয়  কারাগারে

মিন্নি কাশিমপুরে বাকিরা বরিশাল বিভাগীয় কারাগারে

কাশিমপুর কারাগারে মিন্নি ফাঁসি কার্জকর হবে কি? এ নিয়ে সমালোচনার ঝড়

কাশিমপুর কারাগারে মিন্নি ফাঁসি কার্জকর হবে কি? এ নিয়ে সমালোচনার ঝড়

বাংলাদেশীদের ইতালিতে চাকুরি (সিজনাল ও অন্যান্য) খোজার জন্য কিছু অনলাইন পোর্টালঃ পর্ব-০৬

বাংলাদেশীদের ইতালিতে চাকুরি (সিজনাল ও অন্যান্য) খোজার জন্য কিছু অনলাইন পোর্টালঃ পর্ব-০৬

হযরত মোহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে এক হিন্দু যুবক গ্রেফতার

হযরত মোহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে এক হিন্দু যুবক গ্রেফতার

সেনেগাল উপকূলে ইউরোপগামী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ১৪০ অভিবাসীর মৃত্যু

সেনেগাল উপকূলে ইউরোপগামী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ১৪০ অভিবাসীর মৃত্যু

এবার কয়েদির পোশাকে মিন্নির ছবি ভাইরাল

এবার কয়েদির পোশাকে মিন্নির ছবি ভাইরাল

সৌদি আরবের ক্লিনিং সেক্টরে বড় ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশীরা

সৌদি আরবের ক্লিনিং সেক্টরে বড় ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশীরা

ফ্রান্সেই চাপের মুখে ইমানুয়েল  ম্যাক্রোঁ

ফ্রান্সেই চাপের মুখে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ

রায়হানের পরিবারকে উপহার পাঠালেন সিলেটের পুলিশ কমিশনার

রায়হানের পরিবারকে উপহার পাঠালেন সিলেটের পুলিশ কমিশনার

টয়লেট করতে ঘর থেকে বের হল কিশোরী, ধর্ষণ করতে ঢুকে পড়লো যুবক

টয়লেট করতে ঘর থেকে বের হল কিশোরী, ধর্ষণ করতে ঢুকে পড়লো যুবক

কটিয়াদীতে ট্রিপল মার্ডার: নৈপথ্যে সম্পত্তির দ্বন্দ্ব

কটিয়াদীতে ট্রিপল মার্ডার: নৈপথ্যে সম্পত্তির দ্বন্দ্ব

বিধবাকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ, আটক ফেরিওয়ালা

বিধবাকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ, আটক ফেরিওয়ালা

ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল কিশোরগঞ্জ

ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল কিশোরগঞ্জ

সর্বশেষ

নবীকে অবমাননার প্রতিবাদে ও  ফ্রান্সের পন্য বয়কটের দাবীতে উত্তাল সাতক্ষীরা

নবীকে অবমাননার প্রতিবাদে ও ফ্রান্সের পন্য বয়কটের দাবীতে উত্তাল সাতক্ষীরা

আবু তাহের মিয়া, হবিগঞ্জে শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য নির্বাচিত

আবু তাহের মিয়া, হবিগঞ্জে শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য নির্বাচিত

নোয়াখালীর বিভিন্ন স্থানে শ্লীলতাহানির একাধিক অভিযোগ, আটক ১

নোয়াখালীর বিভিন্ন স্থানে শ্লীলতাহানির একাধিক অভিযোগ, আটক ১

জয়পুরহাটে নানা আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত

জয়পুরহাটে নানা আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত

সত্য ও মানবতার উৎস প্রাণাধিক প্রিয়নবীর শানে ফ্রন্সে ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন

সত্য ও মানবতার উৎস প্রাণাধিক প্রিয়নবীর শানে ফ্রন্সে ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন

মোবাইলে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর ৫ উপায়

মোবাইলে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর ৫ উপায়

কবিতা-“শান্তানা তাকে”

কবিতা-“শান্তানা তাকে”

করোনার ভ্যাকসিন আনতে চার দিনের মধ্যে চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনার ভ্যাকসিন আনতে চার দিনের মধ্যে চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন নির্মানের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠিত

জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন নির্মানের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠিত

ফরাসি  পণ্য বয়কট করলেন নুসরাত ফারিয়া

ফরাসি পণ্য বয়কট করলেন নুসরাত ফারিয়া

চরফ্যাশনে কিশোর-কিশোরীদের সামাজিক ব্যাধি থেকে মুক্ত রাখতে উঠান বৈঠক

চরফ্যাশনে কিশোর-কিশোরীদের সামাজিক ব্যাধি থেকে মুক্ত রাখতে উঠান বৈঠক

দালালের মাধ্যমে কেউ যেন বিদেশে না যায়: প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্

দালালের মাধ্যমে কেউ যেন বিদেশে না যায়: প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্

ঢাকা থেকে সরাসরি বাস যাবে জাফলং ও ভোলাগঞ্জে

ঢাকা থেকে সরাসরি বাস যাবে জাফলং ও ভোলাগঞ্জে

করোনা মাস্ক না পরলে রাস্তা ঝাড়ু দিতে হবে

করোনা মাস্ক না পরলে রাস্তা ঝাড়ু দিতে হবে

বগুড়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে উদযাপিত

বগুড়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে উদযাপিত