About Us
শনিবার, ১৫ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
sachchida nanda dey
প্রকাশ ০১/০৫/২০২১ ১২:৪৫এ এম

আশাশুনিতে ভাসুর-জা'র মারধর করে ৩৫ হাজার টাকা ছিনতাই

আশাশুনিতে ভাসুর-জা'র মারধর করে ৩৫ হাজার  টাকা ছিনতাই Ad Banner

আশাশুনিতে ভাসুর ও জা’র আক্রমণে নূর নাহার খাতুন আহত হয়েছেন। আক্রমণকারীরা নগদ ৩৫ হাজার ৭৫০ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।

এব্যাপারে নূর নাহার বাদী হয়ে থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করা হয়েছে। লিখিত এজাহার ও আহত নূর নাহার জানান, উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের কলিমাখালী গ্রামে স্বামী সাইফুল আলমের সাথে একই বিল্ডিং-এ পৃথক পৃথক রুমে ভাসুর নূরুল আমিন ও তার স্ত্রী নাজমা আমীন বসবাস করেন।

ভাসুর ও জা’রা অধিকাংশ সময় সাতক্ষীরায় থাকেন। মাঝে মধ্যে বাড়িতে এসে পাশের জনৈক ইলিয়াস হোসেনের বাড়িতে রাত্রি যাপন করেন। তাদের সাথে জমিজমা সংক্রান্ত গোলযোগ থাকায় তাঁরা তাদেরকে খুন জখম করাসহ নানা হুমকি ধামকী দিয়ে আসছিলেন।

এনিয়ে ২৭/১০/১৯ তাং থানায় সাধারণ ডায়েরী (নং ১১৮০) করা হয়। ২৬/১০/১৯ তাং এফআইআর নং ২৫/৩৪৪ রুজু করা হলে আসামী নুরুল আমিন জেল খেটে জামিনে আছেন। মামলা চলমান রয়েছে। তাদের নির্যাতনে বাদীরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। গত ২৯ এপ্রিল সকালে বাড়ির পাশে অনুমান ১০০ গজ দূরে অবস্থিত তাদের মুদি দোকান বন্ধ করে তাঁর স্বামী মৎস্য সেটে মাছ বিক্রয় করতে যায়। ৭.৩০ টার দিকে নূর নাহার দোকান খুলে ডিম আনতে যায়। ফিরে এসে দেখে জা নাজমা আমীন তাদের ঘরে ঢুকে আলমারী খুলে ভাজ করা কাপড় চোপড় উল্টাপাল্টা করছিল। ভাসুর তখন রুমের পিছনে দাড়িয়ে ছিলেন। ঘরে ঢুকে কারণ জিজ্ঞাসা করলে উত্তেজিত হয়ে চুলের মুঠো ধরে মেঝেতে ফেলে তাকে মারপিট করা হয়।

এ সময় ভাসুর সেখানে ঢুকে রড দিয়ে আঘাত করে। ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস আটকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এক পর্যায়ে আলমারীতে থাকা পুকুরের ডিড বাবদ নেওয়া ১৫ হাজার ৭৫০ টাকা ও দোকানের মালামাল বিক্রীর ২০ হাজার টাকা নিয়ে নুরুল আমিনের কাছে দিলে তিনি দ্রুত কেটে পড়েন।

স্বামী সাইফুল সেট থেকে ফিরে এসে দেখে তখনো তাঁর স্ত্রীকে মারপিট করছে নাজমা। চিৎকারে স্বাক্ষীরা এগিয়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে আশাশুনি হাসপাতালে জরুরী বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এব্যাপারে নূর নাহার বাদী হয়ে থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করেছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ