About Us
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Md. Ibrahim - (Bhola)
প্রকাশ ৩০/০৪/২০২১ ০৮:৪৪পি এম

সাবধান!!! অনলাইনে ঘুরছে প্রতারক

সাবধান!!!  অনলাইনে ঘুরছে প্রতারক Ad Banner

অনলাইনে কেনাবেচায় ডেলিভারি সার্ভিস এর নামে বেশ সক্রিয় প্রতারক চক্র। উদ্যোক্তারা বলছেন ফেসবুকে শুধু একটা পেইজ খুলে ডেলিভারি ব্যবসায় নামছেন অনেকে। খুব কম সার্ভিস চার্জের বিনিময়ে তাঁরা কাজ শুরু করে। পরে গ্রাহকের দেয়া থাকা নিয়ে হাওয়া হয়ে যায়। গ্রাহকরাও বলছেন কিছু অসাধু ডেলিভারি ম্যান মাঝপথে পরিবর্তন করে দিচ্ছে। ফলে টাকা দিয়ে পাচ্ছেন নিম্নমানের পণ্য।

উদ্যোক্তা ও গ্রাহক দুই পক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।  চুঁইভূনা এক্সপ্রেস নামের ফেসবুক পেজের উদ্যোক্তার কাজী সাজেদুর রহমান। লকডাউন ও রমজানে বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় ডেলিভারি সার্ভিসের। ডেলিভারি ভাই নামে ফেসবুক পেইজকে দায়িত্ব দিলেন তিনি। প্রথম দুদিন নিয়ম মেনে চলেছে সব। কিন্তু এর পরেই নানা অজুহাতে প্রোডাক্ট বিক্রি টাকা উদ্যোক্তার হাত পর্যন্ত পৌঁছাতে শুরু হয় গরিমসি। মোট ২১ হাজার টাকা নিয়ে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। পরে কিছু টাকা ফেরত দিলও এখনো খবর নেই প্রায় ১৩ হাজারের। 

ই-ক্যাব এর ভাইস প্রেসিন্টে শাহাবুদ্দিন শিপন বলেন, এইভাবে প্রতারণার মাধ্যমে অনেক উদ্যোক্তা এই কঠিন সময়ে যারা টিকে থাকার চেষ্টা করছে তাঁরা আরো বেশি সমস্যা সম্মুখীন হচ্ছে। আমি আমার টাকাটা যেটা থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হচ্ছে এই ইসূটা।   একই অভিযোগ এক্সপ্রেস বাংলা নামের আরেকটি ডেলিভারি সার্ভিসের। ডেলিভারি ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় এই কাব্যের কোন লাইসেন্স নেই। 

ডেলিভারি ভাইয়ের প্রতিষ্ঠাতা রানা বলেন, ই-ক্যাবের অনুমোদনের জন্য আমরা চেষ্টা করতেছি। আমরা এইটা সম্বন্ধে জানছি যখন আমরা এটা রাস্তায় নামছে তখনই জানছি।  ই-ক্যাব বলছে, ডেলিভারি সার্ভিস এর জন্য আগেই লাইসেন্স দেখে নিতে হবে।  ই-ক্যাব এর ভাইস প্রেসিন্টে শাহাবুদ্দিন শিপন আরও বলেন, ডেলিভারি কোম্পানি যাদের লাইসেন্স আছে তাদের একটা ফিজিক্যাল অফিস থাকে। তাঁরা একটা সফটওয়্যার এন্ড ট্রাকিং পদ্ধতি মেনটেইন করে। যার কারণে কোন প্রোডাক্ট কোথায় থেকে উঠলো, কোথায় ডেলিভারী হইলো, কে ডেলিভারি দিল, প্রত্যেকটা জিনিস ট্রাকেবল। এমন ফেইসবুক ডেলিভারি সার্ভিস এর অজস্র প্রতারণার অভিযোগ সরাসরি এসেছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী কাছেও। 

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, বড় বড় নামকরা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আমি অভিযোগ পেয়েছি। কেউ যদি কোনো প্রতিশ্রুতি দেয় এবং সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করে তাকে ভোক্তা অধিকার আইনের অধীনে বিচার করা যায়। এটা ডিজিটাল ফ্লাটফর্ম হোক অথবা যেকোনো ফ্লাটফর্ম হোকনা কেন।  করোনা কালে ই-কমার্সের প্রয়োজনীয়তা নতুন করে সামনে এসেছে। কোন প্রতারক চক্র যেনো এই খাতকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে না পারে সে জন্য সচেতন থাকার পরামর্শ টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ

Mehedi Hasan Pial - (Dhaka)
প্রকাশ ১৩/০৫/২০২১ ০৪:৫৪পি এম