About Us
MD.KHEZERUL ISLAM FARID
প্রকাশ ৩০/০৪/২০২১ ০৩:২২পি এম

আমতলীতে ফলন কম হলেও দামে খুশি 'মুগডাল' চাষিরা

আমতলীতে ফলন কম হলেও দামে খুশি 'মুগডাল' চাষিরা Ad Banner

বরগুনার আমতলীতে চলতি বছর অনাবৃষ্টির কারণে মুগডালের ফলন ভালো হয়নি। তবে বাজারে দাম ভালো থাকায় খুশি কৃষকরা। তবে ভালো দামে বিক্রি করে লোকসান কাটিয়ে ওঠার আশা করছেন আমতলী উপজেলার মুগডাল চাষিরা। 

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর এ উপজেলায় ১০ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে মুগডাল চাষ করা হয়েছে। বিগত বছরের ন্যায় এ বছরও কৃষকদের আশা ছিল ভালো ফলনের কিন্তু অনাবৃষ্টিতে সেই আশা তাদের নিরাশায় পরিণত হয়। অনাবৃষ্টির কারণে মুগডালের ফলন তেমন ভালো না হওয়ায় লাভ তো দূরের কথা লোকসান কাটিয়ে ওঠার চিন্তায় বিভোর ছিলেন কৃষকরা। কিন্তু বাজারে ডালের দাম ভালো থাকায় লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবেন বলে দাবি করেন একাধিক কৃষক।  বর্তমানে কৃষকরা মুগডাল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে কৃষকরা ক্ষেত থেকে ডাল তোলার কাজ শুরু করেছেন।   

আমতলীর সাপ্তাহিক হাট ও আজ বৃহস্পতিবার গাজীপুর হাট-বাজারসহ উপজেলার বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বর্তমানে বাজারে ৪০ কেজি চিকন মুগডাল ৩২ শ ও মোটা মুগডাল ২২ শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। স্থানীয় ও দূর-দূরান্ত থেকে পাইকার ও মহাজনরা প্রতিটি হাট-বাজারে এসে কৃষকের উৎপাদিত এসব ডাল কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলার চাওড়া চন্দ্রা গ্রামের কৃষক আনিচুর রহমান  ও  গাজীপুর বন্দরের ডালচাষি মনির শরিফ  বলেন, এ বছর অনাবৃষ্টিতে মুগডালের ফলন ভালো না হলেও বাজারে দাম ভালো থাকায় কৃষকদের লোকসান গুনতে হবে না। 

আমতলী পৌর শহরের ডাল ব্যবসায়ী  সবুজ মিয়া  ও শাকিল হোসেন জানান,  চলতি বছরের শুরুতে বাজারে মুগডালের দাম বেশি থাকায় কৃষকরা ভালোই লাভবান হচ্ছেন।  উপজেলা কৃষি অফিসার সি এম রেজাউল করিম বলেন, এ বছর অনাবৃষ্টিতে মুগডালের ফলন অনেক খারাপ। কিন্তু বাজারে দাম ভালো থাকায় কৃষকদের লোকসান গুনতে হবে না।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ