About Us
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Verified আই নিউজ বিডি ডেস্ক
প্রকাশ ২৭/০৪/২০২১ ০৫:৩৪পি এম

ঈদে শপিং যেন মূখ্য না হয়, ভারতে ভয়াবহ অবস্থা!

ঈদে শপিং যেন মূখ্য না হয়, ভারতে ভয়াবহ অবস্থা! Ad Banner

সরকার বিবিধ কারণে লকডাউন কিছুটা শিথিল করেছে। ২৫ এপ্রিল রবিবার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিং মল খোলে দিয়েছেন। লকডাউন যদিও ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত ঘোষণা মোতাবেক রয়েছে। তবে শিথিল হচ্ছে এটা স্পষ্ট। আমাদের আবেকে গাঁ ভাসালে চলবে না। ঈদের শপিং যেন মূখ্য না হয়। জীবন জীবিকার প্রয়োজনে সাধারণ মানুষ, ডে লেবার, রিকসা-ভ্যান চালকসহ  ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বের হবেন। পাশাপাশি বের হবেন অতিউৎসাহি মানুষ। ভয়টা অতিউৎসাহি মানুষগুলোকে নিয়ে। 

স্বাস্থ্য বিধি না মেনে চললে আমাদের কঠিন মূল্য দিতে হবে। করোনার ২য় দফার দাপটে ভারত দিশেহারা। ভারতে গত চব্বিশ ঘন্টা প্রায় ৩ লাখ ১৫ হাজার নতুন কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে। যা একটি নতুন বিশ্বরেকর্ড। মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে দুনিয়ার কোনও দেশে কখনও এক দিনে এত নতুন রোগী পাওয়া যায়নি। একই দিনে ভারতে মারা গেছেন ২ হাজার ১০৪ জন কোভিড রোগী, সেটিও সে দেশে একটি রেকর্ড। এর মাধ্যমে ভারতে এ পর্যন্ত মোট কোভিড রোগীর সংখ্যা গিয়ে ঠেকল ১ কোটি ৬০ লক্ষে, যা আমেরিকার ঠিক পরেই। চরম মূল্য দিচ্ছে ভারত। নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে ,গত ২৪ ঘন্টায় ৩ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৪৯ জন। এ ছাড়া এ পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশন এলাকায় মারা গেছেন ১শ’ ৬জন ও আক্রান্ত ৪ হাজার ৮৯৮ জন।

অন্যদিকে সদর উপজেলায় মারা গেছেন ৪১ জন ও আক্রান্ত ২ হাজার ৬১৭ জন। বন্দর উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭৮৭ ও মারা গেছেন ৮ জন। এছাড়া আড়াইহাজারে আক্রান্ত ৮৬২ ও মারা গেছেন ৪ জন, সোনারগাঁয়ে আক্রান্ত ১ হাজার ১৭২ জন ও মারা গেছেন ৩৬ জন এবং রূপগঞ্জে মারা গেছেন ১৪ জন ও আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৯৭ জন। জেলায় এই পর্যন্ত মোট ১ লাখ ২৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ভারত কে দেখে আমাদের শিক্ষা নেয়া উচিত। 

যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য প্রস্তুতি নেয়া উচিত। যখন বেশি সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হবে ও তাদের জন্য হসপিটাল প্রয়োজন হবে স্বাভাবিকভাবেই স্বাস্থ্যব্যবস্থা ভেংগে পড়বে। 

এমন পরিস্থিতিতে রাষ্ট্র চাইলেও রাতারাতি আপনার জন্য কিছু করতে পারবে না। আপনার নিরাপত্তার বিষয় আপনাকে চিন্তা করতে হবে ,রাষ্ট্র চাইলেও আপনার জন্য কিছু করতে পারবেনা। ভারতের চাইতে আমাদের সার্মথ্য ও আয়োজন বাস্তবিকই অনেক কম। কাজেই আপনি সাবধান, সচেতন আর স্বাস্থবিধি মেনে না চললে পুরো জাতিকে দিতে হবে কঠিন মূল্য। আপনি অসুস্থ বা আক্রান্ত হলে আপনার পরিবার আক্রান্ত হবে এভাবে চিন্তা করুন। প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হই। 

একটি ঈদের শপিং এর আনন্দের চেয়ে জীবন অনেক বড় ও মূল্যবান। আসুন নিজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি এবং অন্যকে মানতে উৎসাহিত করি। 

লেখক-এ্যাড.শাহ আলী মোহাম্মদ পিন্টু খান, সভাপতি-বন্দর প্রেসক্লাব, নারায়ণগঞ্জ


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ