About Us
শনিবার, ১৫ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Md. Akhter Ali - (Chuadanga)
প্রকাশ ২৭/০৪/২০২১ ০৭:৫৩পি এম

চুয়াডাঙ্গায় গরম বাতাসে ক্ষতিগ্রস্ত বোরো আবাদ

চুয়াডাঙ্গায় গরম বাতাসে ক্ষতিগ্রস্ত বোরো আবাদ Ad Banner

চলতি বোরো মৌসুমে ধানের ফলন নিয়ে চিন্তিত চুয়াডাঙ্গার চাষীরা। ধানক্ষেতের অনেকটাই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ধানের গোছা সাদা হয়ে পরিণত হয়েছে চিটায়। ধারণা করা হচ্ছে  এপ্রিলের শুরুতে বয়ে যাওয়া গরম বাতাসে এ অবস্থা হয়েছে।

কৃষি বিভাগ বলছে, ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের তালিকা করা হচ্ছে। দেয়া হবে প্রণোদনা।  চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার ইব্রাহিমপুর গ্রামের চাষী আব্দুল মান্নানের ছয় বিঘা জমিতে রয়েছে ব্রি-২৮ জাতের ধান। ইতিমধ্যেই শুরু করেছেন ধান কাটা। কিন্তু আব্দুল মান্নানের মুখে হাসি নেই। কারণ সাম্প্রতিক বয়ে যাওয়া গরম বাতাসে নষ্ট হয়ে গেছে ক্ষেতের ধান।

চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা সুফি মো. রফিকুজ্জামান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, চলতি বছর চুয়াডাঙ্গা জেলায় ৩৫ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৪০০ হেক্টর জমির ধান গরম বাতাসে আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্ত জমির ২০ ভাগ ফলন কম হবে বলে তাদের ধারণা।

কৃষক মান্নানের দাবী প্রায় অর্ধেক ফলন কম হবে তার।  কৃষক আব্দুল মান্নান বলেন, জেলার ধানচাষীদের মধ্যে অনেকের অবস্থাই তার মতো। বিশেষ করে যারা ব্রি-২৮ ও ব্রি-৫৮ জাতের ধানের আবাদ করেছেন, তাদের প্রায় সকলের ধানক্ষেতেই এ অবস্থা।  ধানচাষী বাবু  জানান, কিছু কিছু ক্ষেত্রে ধানের অবস্থা এমন হয়েছে যে ধান কাটার লেবার খরচও উঠবে। তারা শুরুমাত্র বিচালী পাওয়ার জন্য ধান কেটে নিচ্ছেন। 

চুয়াডাঙ্গা কৃষি বিভাগ বলছে, চলতি মাসের ৪ তারিখ দমকা হাওয়ায় গরম বাতার প্রবাহিত হয়। ঐ সময় অনেকে ক্ষেতের ধান গাছে ফুল ছিলো। গরম বাতাসে ধানের পরাগায়নজনিত সমস্যায় চিটা হয়েছে ধানে। তাদের মতে, ক্ষতিগ্রস্থ ধানক্ষেতের অন্তত ২০ ভাগ ফলন কম হবে। এসব ক্ষেতের শীষে ধরেছে চিটা। যা থেকে জেলায় প্রায় চারশো মেট্রিকটন ধানের উৎপাদন কম হবে। 



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ