About Us
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
সত্যজিৎ দাস - (Habiganj)
প্রকাশ ২৬/০৪/২০২১ ০৫:৩৩পি এম

মানবিক সাকি

মানবিক সাকি Ad Banner

মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য",   কালজয়ী এই গানের কথা মনে হলেই বিবেক তাড়িত হয়। চেতনা নাড়া দিয়ে ওঠে অসহায় মানুষের জন্য কিছু করার। আর তাই মহামারি করোনার মাঝে অসহায় মানুষের জন্য রমজানে মানবতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন Ghost hunter investigator(GHI) এর কর্ণধার ও টীম লিডার মোহাম্মদ আবু নাঈম সাকি। 

তিনি রাজধানী ঢাকার রায়েরবাগ,কদমতলি'র বাসিন্দা। রাজধানীর রায়েরবাগসহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিদিন শতাধিক পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী (চাল, ডাল, তেল, ছুলা, পেয়াজ, আলু, ডিম) পৌঁছে দিচ্ছেন। এমনকি রান্না করা ইফতার সামগ্রীও রাস্তায় পড়ে থাকা অসহায়, ছিন্নমূল, এতিমদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছেন।     

এখন বিশ্বজুড়ে চলছে মহামারি করোনা ভাইরাসের তাণ্ডব। ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে দেশে সরকার লকডাউন দিয়েছে। এতে রাজিধানীর দরিদ্র, অসহায় ও নিন্মবিত্ত মানুষেরা পড়েছেন চরম বিপাকে। না করতে পারছে কাজ না আছে ঘরে খাদ্য। তার ওপর এখন রমজান মাস। বাজার মূল্যের উর্ধ্বগতির এই সময়ে রাজধানীর দরিদ্র অসহায় রোজাদারদের প্রতিদিন ইফতার করাচ্ছেন আবু নাঈম সাকি।

ইতিমধ্যে প্রায় ২৫০ অসহায় ছিন্নমূলদের মাঝে সাহরির খাবার বিতরণ করেছেন সাকি।  Ghost hunter investigator(GHI) এর দেশ-বিদেশের সকল ভিউয়ার্সরাও এই মহৎ উদ্যোগে উনার পাশে দাঁড়িয়েছেন।  টীম GHI এর আরেক গর্বিত সদস্য সোমা ভট্টাচার্য এর তত্ত্বাবধানে ভারতীয় ভিউয়ার্স ও উনি নিজে মিলিতভাবে মোট ১১ হাজার রূপি অনুদান প্রদান করে মোহাম্মদ আবু নাঈম সাকি সাহেবের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং ভবিষ্যতেও তারা এতে সংযুক্ত থেকে মানবকল্যাণে ব্রত পালন করবেন। 

এই পবিত্র মাহে রমজানে প্রতিদিন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন পরিবেশে ইফতার ও সাহরি এর খাবার রান্না থেকে শুরু করে প্যাকেটং  এর কাজে সহায়তা করছে সাকিবের   পরিবার। এই তৈরী করা ইফতার ও সাহরির খাবার উপহার হিসেবে প্রতিদিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে খেটে খাওয়া দিনমজুর থেকে শুরু করে, রিকসাওয়ালা, ভ্যানচালক, ভিক্ষুক, ছিন্নমূল ও মানসিক বিকারগ্রস্ত অসহায় মানুষদের মাঝে বিলিয়ে দিচ্ছেন।

"Eye news bd" টীম GHI প্রধান আবু নাঈম সাকি'র কাছে এই মহৎ উদ্যোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ' এই চিন্তাভাবনা হুট করে আসেনি, আসলে মানুষের কষ্ট দেখলে কেনো জানি আমার আর রাতে ঘুম হয় না, সারাক্ষণ মনে অশান্তি লেগে থাকে। মন চায় যদি অসহায়দের জন্য কিছু করতে পারি তাহলে শান্তিতে ঘুমাতে পারবো। শুরুতে সাহরি তে প্রায় ২৫০ জনের খাবার আয়োজন করেছিলাম, তারপর ১৫০ পরিবারের আনুমানিক প্রায় ৪০০ মানুষের ৫ দিনের বাজার করে দিয়েছি, আগামীতে ৪০০-৫০০ এতিমের জন্য ইফতারের আয়োজন করবো। এতে আমি একা না, আমার  Ghost hunter investigator (GHI) এর বাংলাদেশ, ভারতসহ অনেক দেশের ভিউয়ার্স ও GHI ফেসবুক গ্রুপ এর সকল মেম্বার আমার সঙ্গে আছেন। মানুষের দোয়া ও ভালোবাসা আছে বলেই এই কার্য পরিচালনা করার সাহস পাচ্ছি এবং ইনশাআল্লাহ এ কার্যক্রম চালিয়ে যাবে পুরো রমজান মাস জুড়ে'।

আবু নাঈম সাকি আরও বলেন,  'আমি শুধু এই করোনা মহামারী ও রমজান মাস না,পুরো বছর অসহায়দের পাশে দাঁড়ায়ি তাদের সেবা করতে চাই, তাই আমি ও আমার সকল সম্মানিত ভিউয়ার্সরা মিলে " নিঃস্বার্থ সংগঠন " নামে একটি ফেসবুক গ্রুপ খুলেছি। যাতে এই গ্রুপের মাধ্যমে দেশ-বিদেশের বিপদগ্রস্ত অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে পারি'।  করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে নবগঠিত নিঃস্বার্থ সংগঠন এর সদস্যরা এ কাজ করে যাচ্ছেন।     

মোহাম্মদ আবু নাঈম সাকি ও তার সংগঠনটি বিশ্বাস করে, দাতা ও দান গ্রহীতা বলে কিছু নেই। মানুষ শুধু পারে ভালোবাসা বিনিময় করতে। উপহার ও মানুষের পাশে দাঁড়ানো এই ভালোবাসা বিনিময়ের উদাহরণমাত্র। দুঃসময় মানুষের জীবনে থাকেই। একটু সাহায্য সহানুভূতির হাত বাড়িয়ে দিলেই জীবনের খারাপ অবস্থা বদলে যেতে পারে ।  কারও ওপর নির্ভর না করে নিজেদের কিছু উদ্যোগেই কিছু করলে পৃথিবীটা বদলে যেতে পারে। সংগঠনটি মনে করে, যাদের হাতে ভালোবাসার উপহার পৌঁছাচ্ছে এটি তাদের প্রাপ্য।     

মানবিকতার উত্তরণে শুধু রাষ্ট্র, সমাজ বা কোনো প্রতিষ্ঠানকে দোষ দিয়ে বসে থাকার সুযোগ নেই। আমরা সবাইকে আহবান জানাই," নিঃস্বার্থ সংগঠন " কার্যক্রমে যুক্ত হতে।।                                               


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ