About Us
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
MD.KAMRUZZAMAN SOHAG - (Kushtia)
প্রকাশ ২৫/০৪/২০২১ ১২:২২পি এম

আরমানিটোলার আগুনে দগ্ধ নবদম্পতি জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে

আরমানিটোলার আগুনে দগ্ধ নবদম্পতি জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে Ad Banner

পুরান ঢাকার আরমানিটোলায় রাসায়নিক গুদামে অগ্নিকাণ্ডে গুরুতর আহত নবদম্পতি মুনা সরকার ও আশিকুজ্জামান খানের জ্ঞান ফেরেনি। জীবন শঙ্কা দেখা দেওয়ায় শনিবার তাদের হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) থেকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছে। 

গত শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) ভোরে পুরান ঢাকার আরমানিটোলার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় জ্ঞান হারিয়েছিলেন তারা। দুজনের শরীরেই ধোঁয়া প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের শ্বাসনালি।  দুজনই এখন রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন। আইসিইউতে থাকা দুজনের জ্ঞান থাকলেও অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। 

মুনা সরকার ও তার স্বামী আশিকুজ্জামান খানের বিয়ে হয়েছে মাত্র মাস খানেক আগে। মুনা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আর আশিকুজ্জামান বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র।  আশিকুজ্জামানের ছোট ভাই সালমান ফারসি জানান, চিকিৎসকেরা বলেছেন, ৭২ ঘণ্টার ভেতর জ্ঞান না ফিরলে কিছু করার নেই। তিনি আরও বলেন, ভাই ও ভাবিকে আমাদের দেখতে দেয় নাই। শুধু ছবি দেখিয়েছে। দেখলাম অক্সিজেন দিয়ে রাখছে।  ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক চিকিৎসক সামন্ত লাল সেন জানান, এখন আমাদের হাতে করণীয় তেমন কিছুই নেই। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি। 

আশিকুজ্জামানের বাবা আবুল কাশেম খান জানান, এক মাস আগে তাদের বিয়ে হয়েছে। খালার বাসায় থেকে লেখাপড়া করে আশিকুজ্জামান। শ্বশুরের বাসায় এসেছিল বুধবার রাতে। নিচে রাসায়নিক গুদামে আগুন লেগেছে। আগুনে আহত হয় তারা।  আরমানিটোলায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মোট ২১ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছিল। এই আগুনে মোট চারজনের মৃত্যু হয়েছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ