About Us
মোঃ ইমরান নাজির - (Dhaka)
প্রকাশ ০৮/০৪/২০২১ ০৬:৪২পি এম

একই পরিবারের ৬ বাংলাদেশির দাফন আজ

একই পরিবারের ৬ বাংলাদেশির দাফন আজ Ad Banner

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের অ্যালেন শহরে বাংলাদেশি পরিবারের ছয় সদস্যের লাশ বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) স্থানীয় সময় সকালে দাফন করার কথা রয়েছে। মর্মান্তিক এই ঘটনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান প্রধান মিডিয়াগুলো এরই মধ্যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

বিভিন্ন মহল থেকে যুব-তরুণদের প্রতি পরিবারের অধিক নজর দেওয়ার কথাও বলা হচ্ছে।

গত রবিবার স্থানীয় সময় রাতে অ্যালেন শহরে বসবাসরত বাংলাদেশি একটি পরিবারের ছয় সদস্যের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- যমজ ভাই-বোন ফারহান তৌহিদ ও ফারবিন তৌহিদ (১৯), বড় ভাই তানভীর তৌহিদ (২২), মা আইরিন ইসলাম (৫৬), বাবা তৌহিদুল ইসলাম (৫৪), তানভীর তৌহিদের নানি আলতাফুন্নেসা (৭৭)। মা, বাবা, বোন ও নানিকে হত্যার পর দুই ভাই আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। এ নিয়ে বিস্তারিত তদন্ত এখনো অব্যাহত রয়েছে।

নিহত ছয়জনের মধ্যে দুজনের মরদেহ গত মঙ্গলবার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে অ্যালেন নগরীর পুলিশ। বাকি চারজনের মরদেহ সব প্রক্রিয়া শেষ করে আজ বুধবার হস্তান্তর করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন অব নর্থ টেক্সাস ছয়জনের লাশ দাফনের ব্যবস্থা করছে। অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট হাশমত মোবীন জানিয়েছেন, নিহত তৌহিদুল ইসলামের ভাই ও আইরিন ইসলামের ভাই টেক্সাসে এসেছেন। পরিস্থিতি বিবেচনায় জানাজা ও দাফনের সময়ে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

পরিবর্তিত সময়সূচি অনুযায়ী, অ্যালেন শহরের যে মসজিদে পরিবারটির সদস্যরা যেতেন, সেখানেই তাদের জানাজা হবে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার জোহরের নামাজের পর ছয়জনের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। জানাজা শেষে পার্শ্ববর্তী ডেন্টন শহরের মুসলিম কবরস্থানে তাদের দাফন করা হবে।

হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে নিউইয়র্কে বসবাসরত অধ্যাপক মনোবিদ ড. রাজুব ভৌমিক অধিকার নিউজকে জানান এই জাতীয় হত্যাকাণ্ডের ক্ষেত্রে সুইসাইড বা মার্ডারের কারণ হলো- ঘরোয়া সহিংসতা, নির্যাতন, হতাশা, ভীষণ একাকীত্ববোধ, আত্ম-নিয়ন্ত্রণে দুর্বলতা সাধারণত খুন বা আত্মহত্যা করার ইচ্ছা প্রথমে তাদের পরিবারের সদস্য, নিকট বন্ধুদের বিষয় গুলো জানায়, তখন তাদের এই বিষয় বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া উচিত বলে মনে করেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ