About Us
ANIS MIA - (Mymensingh)
প্রকাশ ০৪/০৪/২০২১ ০৯:৫৪এ এম

দ্রুততম মানব ও মানবীর খেতাব বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ঘরে

দ্রুততম মানব ও মানবীর খেতাব বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ঘরে Ad Banner

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর দুই অ্যাথলেট জিতে নিয়েছেন দ্রুততম মানব ও মানবীর খেতাব। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১০ দশমিক ৫০ সেকেন্ড টাইমিংয়ে দ্রুততম মানবের খেতাব জিতে নেন নৌবাহিনীর ইসমাইল। ১০ দশমিক ৬০ সেকেন্ডে রৌপ্য জেতেন আবদুল রউফ আর ব্রোঞ্জপদক জিতেছেন বিমান বাহিনীর নাইম ইসলাম। তার টাইমিং ১০.৭০ সেকেন্ড।  ইসমাইল বলেন, বাংলাদেশে গেমসে এটা আমার প্রথম স্বর্ণ। সবমিলিয়ে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে চতুর্থ স্বর্ণ।

২০১৩ সালে লং জাম্পে রৌপ্য জিতেছিলাম। তিনি আরও বলেন, করোনা মহামারির মধ্যেও এই পারফরম্যান্সে আমি খুশি। অনুশীলন কম হলেও দ্রুততম মানব হতে পেরেছি এটাতে আমি তৃপ্তি।  টাইমিং ভাল না করার কারণ ঠিকমতো অনুশীলন করতে পারিনি। এখন যেটা হচ্ছে করোনার কারণে একবেলা অনুশীলন করতে পারছি।করোনা শেষ হলে আশা করি টাইমিংটা ভাল দেখতে পাবেন।’  এদিকে মেয়েদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১১.৬০ সেকেন্ড টাইমিংয়ে দ্রুততম মানবীর খেতাব অর্জন করেছেন শিরিন আক্তার।

২০১৩ সালের অষ্টম বাংলাদেশ গেমসে তৎকালীন ট্র্যাকে রানী নাজমুন নাহার বিউটির কাছে হেরে রৌপ্য পদক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল শিরিনকে। যে স্বর্ণপদকটি এবার নিজের করে নিলেন শিরিন। এই ইভেন্টে ১১.৭০ সেকেন্ডে সেনাবাহিনীর শরীফা খাতুন রৌপ্য ও ১২.১০ সেকেন্ডে ব্রোঞ্জপদক জেতেন বিকেএসপির সোনিয়া আক্তার।  এই অর্জনের পর শিরিন বলেন, বাংলাদেশ গেমসে এটা আমার প্রথম স্বর্ণ জয়। এর আগে অষ্টম বাংলাদেশ গেমসে বিউটি আপার কাছে হেরে দ্বিতীয় হয়েছিলাম।

আমার স্বর্ণ জয়ের পেছনে অবদান বাংলাদেশ নৌবাহিনী, ফেডারেশন এবং বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ)। সর্বোপরি আমি বিকেএসপি থেকে ট্রেনিং করি। যত রকম সুযোগ সুবিধা সব তারা আমাকে করছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ