About Us
MD AL-AMIN HOSSAIN - (Dhaka)
প্রকাশ ০২/০৪/২০২১ ১২:৫৪পি এম

নারীকে পিটিয়ে আহত

নারীকে পিটিয়ে আহত Ad Banner

ঢাকার দোহার উপজেলায় জমি সংক্রান্ত জেরে এক নারীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে শরীয়ত উল্লাহ বেপারী, রবিউল্লাহ বেপারী ও বাতেন নামের তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গতকাল বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সকালে উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের গোড়াবন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত নারী শিরোতাজ বেগম (৫৮) মুকসুদপুরের গোড়াবন এলাকার মো. হুকুম আলীর স্ত্রী। 

আহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে মো. শরীয়ত উল্লাহ বেপারী ও মো. রবিউল্লাহ বেপারী বিরোধকৃত ফসলি জমিতে লোকজন নিয়ে হাল চাষ করতে যায়। এসময়ে শিরোতাজ বেগম তাদের বাঁধা দিলে শরীয়ত উল্লাহ বেপারী, রবিউল্লাহ বেপারী ও বাতেন মিলে শিরোতাজ বেগমকে পিটিয়ে আহত করে এবং বিরোধকৃত জমিতে হাল চাষের কাজ চালিয়ে যায়। বর্তমানে আহত নারী শিরোতাজ বেগম দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে।

  এ বিষয়ে দোহার থানায় মো. শরীয়ত উল্লাহ বেপারী, মো. রবিউল্লাহ বেপারী, বাতেন, রুবেল ও প্রদীপের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে আহত নারীর মেয়ে কুলসুম বেগম।  আহত শিরোতাজ বেগম জানায়, দির্ঘদীন যাবৎ ঐ জমি নিয়ে মোহাম্মদ আলী ও আমাদের সাথে কোর্টে মামলা চলছে। কয়েক বছর আগে মোহাম্মদ আলী মারা যায়। বর্তমানে ঐ জমি শরীয়ত উল্লাহ গংয়েরা ক্রয় করে নেয় মোহাম্মদ আলীর ওয়ারিসদের কাছ থেকে। জমি কিনে নেওয়ার পর থেকে শরীয়ত উল্লাহ গংয়েরা আমাদের উপর নানা রকম নিপীড়ন চালাচ্ছে। এ নিয়ে থানা পুলিশের কাছে কয়েকবার অভিযোগ করেছি এবং বিচারও হয়েছে।

গত দুই দিন আগে দোহার-নবাবগঞ্জ সার্কেল এসপি উভয় পক্ষকে অফিসে ডেকে নিয়ে জমির কাগজ ও মামলার কাগজপত্র দেখে আমাদেরকে জমিতে চাষাবাদ করার অনুমতি দেওয়া হয় এবং মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত শরীয়ত উল্লাহ গংদের ঐ জমিতে যেতে নিষেধ করা হয়। কিন্তু আজ সকাল ১০টার দিকে ঐ জমিতে শরীয়ত উল্লাহ গংয়েরা পুলিশ নিয়ে গিয়ে জমি চাষ শুরু করে। আমি বাঁধা দিলে আমাকে ওরা পিটিয়ে আহত করে।  আহত শিরোতাজ বেগমের ছেলে মো. হযরত আলী জানায়, শরীয়ত উল্লাহ বেপারী, রবিউল্লাহ বেপারী ও বাতেন মিলে আমার মা’কে পিটিয়ে আহত করেছে। এসময়ে আমি তাদের সঙ্গে আসা সাইনপুকুর তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ সুলতানের কাছে বিচার দিলে সে আমাকে চর-থাপ্পর মারে এবং আমার গায়ের শার্ট ছিড়ে ফেলে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করি। 

 এ বিষয়ে মো. রবিউল্লাহ বেপারীর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, সকালে আমি খবর পাই ঐ মহিলা আমার জমিতে চাষের কাজ শুরু করে। পরে আমি সাইনপুকুর তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ সুলতানকে নিয়ে আমার জমিতে যাই এবং ঐ মহিলাকে কাজ বন্ধ করতে বলি। আমরা ঐ মহিলার গায়ে হাত তুলি নি। উল্টো ঐ মহিলা আমাদেরকে কলার ধরে ধাক্কা দিয়েছে এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেছে। গত দুই দিন আগে দোহার-নবাবগঞ্জ সার্কেল এসপি উভয় পক্ষকে অফিসে ডেকে নিয়ে ঐ মহিলাকে দুই মাসের সময় দেন জমির সকল কাগজপত্র দেখানোর জন্য। জমি সংক্রান্ত জেরে ঐ মহিলা দির্ঘদীন যাবৎ নানাভাবে আমাদেরকে হয়রানি করে আসছে। 

এ বিষয়ে শাইনপুকুর তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, দির্ঘদীন যাবৎ শরীয়ত উল্লাহ গং ও মো. হুকুম আলী গংদের সাথে জমি নিয়ে দ- চলছে। নারীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনার অভিযোগ পেয়েছি। এসআই সুলতান ঘটনার তদন্ত করছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ