About Us
Ananda - (Pirojpur)
প্রকাশ ০২/০৪/২০২১ ১২:২৪পি এম

বিখ্যাত অজেয় স্প্যানিশ আর্মাডা

বিখ্যাত  অজেয় স্প্যানিশ আর্মাডা Ad Banner

 আমরা ইউরোপের নৌ শক্তিতে  সর্বোচ্চ শক্তিধর দেশ হিসেবে ব্রিটেনকেই জানি। কিন্তু একসময় ইউরোপের সবথেকে শক্তিধর নৌশক্তি ছিল স্পেনের দখলে  স্পেনীয়রা তাদের এই  অজেয়  নৌশক্তি দ্বারা  বিশ্বের অন্যতম  শক্তিশালী দেশ হিসেবে পরিচিত ছিল। এবং এই শক্তির কেন্দ্র ছিল স্প্যানিশ আর্মাডা যাকে বলা হত সবচেযে বড় ও সৌভাগ্যের নৌজাহাজ বহর ।

এই বহরে ২২ টি যুদ্ধ জাহাজ, অস্ত্রসজ্জিত ১০৮টি বাণিজ্যিক জাহাজ ছিল। এই বহরে স্পেন ছাড়াও পর্তুগালের সমর জাহাজ ছিল স্পেনীয়রা এর মাধ্যমে  বহু উপনিবেশ স্থাপনে সক্ষম হয়েছিল তাই তারা একে সৌভাগ্যের  নৌবহর নামে ডাকত। এবং তাদের ধারণা ছিল কারো পক্ষেই এটি ধ্বংস করা সম্ভব নয় !   কিন্তু আমরা দেখি ১৫৮৫ সাল থেকে ১৬০৪ সাল পর্যন্ত চলমান অ্যাংলো-স্প্যানিশ যুদ্ধে ১৫৮৮ সালের তৎকালিন নেদারল্যান্ডস উপকূলের গ্রেভলাইন রণক্ষেত্রে ইহা ধ্বংস হয়।  এখন প্রশ্ন হচ্ছে কেনই বা ইংল্যান্ড স্পেনের বিরুদ্ধে গেল এবং  কিভাবে এই বিখ্যাত আর্মাডার পতন ঘটল ?   

এর জন্য অনেকটা দায়ী ছিল তৎকালীন স্পেনীয় গোরা ক্যাথলিক রাজা দ্বিতীয় ফিলিপের হটকারি সিদ্ধান্ত। ধর্মীয় এবং রাজনৈতিক কারণে ফিলিপ সবসময়ই চাইতেন ইংল্যান্ডে তার প্রভাবে আনতে। তাছাড়া স্পেনের উপনিবেশ নেদারল্যান্ডকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে অবশ্যই ইংল্যান্ডকে স্পেনের অনুকূলে রাখা দরকার ছিল। এই উদ্দেশ্যে তিনি তৎকালীন ইংল্যান্ডের রানী মেরি টিউটরকে বিবাহ করেছিলেন। এর মাধ্যমে তিনি ইংল্যান্ডের সাথে  মৈত্রী স্থাপন করেন। ফিলিপের কথা অনুসারে মেরি ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জড়ায় এবং তার ক্যালে বান্দর হারায়। এর পরের  মেরি টিউডরের মৃত্যু ঘটলে স্পেনের সাথে ইংল্যান্ডের সম্পর্কের পুনরায় অবনতি ঘটে ।এরপরে  স্পেনের রাজা দ্বিতীয় ফিলিপ এলিজাবেথ এর নিকট বিয়ের প্রস্তাব দেন এবং প্রত্যাখ্যাত হন।

যেহেতু এলিজাবেথ প্রোটেস্ট্যান্ট অনুসারী ছিলেন  এবং আরো বিভিন্ন কারণে  এলিজাবেথের সাথে ফিলিপ এর দ্বন্দ্ব বাঁধে।  দ্বিতীয়  ফিলিপ  ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তার অজেয় আর্মাডা প্রেরণ করেন। এদিকে এলিজাবেথের নৌ বাহিনী আগে থেকেই স্পেনীয় নৌবহর গুলোতে হামলা লুণ্ঠন চালিয়ে এগুলোকে প্রায় ধ্বংস করে দিয়েছিল। এবং যখন তিনি নৌ-বাহিনী ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রেরণ করেন তখন তারা ইংল্যান্ডের শক্তিশালী নৌবাহিনী কাছে পরাজিত হয়। এবং এভাবেই ইতিহাসের সবচেয়ে বিখ্যাত নৌবাহিনীর পরাজয় ঘটে ইংল্যান্ডের নৌ বাহিনীর হাতে এবং ইংল্যান্ড বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী নৌ শক্তিতে পরিণত হয়। 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ