MD.KAMRUZZAMAN SOHAG - (Kushtia)
প্রকাশ ০১/০৪/২০২১ ০১:৪৬পি এম

তিন কোটি টাকা জরিমানাসহ সম্পদ বাজেয়াপ্ত

তিন কোটি টাকা জরিমানাসহ সম্পদ বাজেয়াপ্ত Ad Banner

দুর্নীতির দায়ে বরিশাল নগরীর আলোচিত লাচিন ভবনের মালিক ও ঝালকাঠি জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ সহকারি প্রকৌশলী নুরুল আমিন সিকদারকে ৬ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। জরিমানা করা হয়েছে ৩ কোটি টাকা।  একই সাথে অবৈধ আয়ের মাধ্যমে অর্জিত নগরীর আলেকান্দা এলাকায় নির্মিত ৫ তলা বিশিষ্ট লাচিন ভবন (বর্তমানে কর কমিশনারের কার্যালয়), স্ত্রী ইসরাত জাহানের নামে নগরীর আলেকান্দায় ১২ শতাংশ জমি ও পুত্র আদিল আমিন লাচিনের নামে ঢাকার মগবাজারে থাকা ইস্টার্ন টিউলিপ ভবনের ১৬২০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করার আদেশ দেয়া হয়েছে। 

গত বুধবার (৩১ মার্চ) বিকেলে বরিশাল বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. মহসিনুল হক এ রায় ঘোষণা করেন।  দণ্ডপ্রাপ্ত প্রকৌশলী নুরুল আমিন সিকদার নগরীর লাচিন ভবনের মালিক ও উজিরপুর উপজেলার মৃত ইয়াকুব আলী সিকদারের ছেলে। রায় ঘোষণাকালে নুরুল আমিন সিকদার আদালতে অনুপস্থিত ছিলেন।  আদালত আদেশে উল্লেখ করেছেন, অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ বিক্রি করে প্রাপ্ত অর্থ রাষ্ট্রের অনুকুলে বাজেয়াপ্ত করার ক্ষমতা বরিশাল-ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রটকে অর্পণ করা হল।

এছাড়া নুরুল আমিন সিকদারের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ বিক্রি করে অর্থদণ্ডের টাকা আদায় পূর্বক তা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।  আদালতের বেসহকারি রবিউল আলম জানান, ২০০৯ সালের ২৮ অক্টোবর জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ঝালকাঠি জেলার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলী নুরুল আমিন সিকদারের বিরুদ্ধে বরিশাল দুদকের সহকারী পরিচালক এমএইচ রহমতউল্লাহ মামলা দায়ের করেন।  মামলায় অভিযোগ আনা হয়- উপ-সহকারী প্রকৌশলী নুরুল আমিন সিকদার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত অবৈধভাবে এক কোটি ৩৩ লাখ ৩৯ হাজার ৬৪১ টাকা, স্থাবর ও মূল্যবান সম্পদ অর্জন করেছে।

লাচিন ভবন ও ইস্টার্ন টিউলিপ ভবনের ফ্ল্যাটের নির্মাণ ব্যয় ৫১ লাখ ৩২ হাজার ১৮ টাকার তথ্য গোপন এবং উজিরপুর সাব রেজিস্টার অফিসের মাধ্যমে দানপত্র দলিলে নিজ নামে ৬ জন আত্মীয়ের কাছ থেকে ৪.২৫ শতাংশ জমি ক্রয় করার তথ্য গোপন করার অভিযোগ আনা হয় মামলায়।  এসব অভিযোগের ভিত্তিতে উপ সহকারী প্রকৌশলী নজরুল আমিন শিকদারকে অভিযুক্ত করে ২০১০ সালের ৩০ আগস্ট দুদকের সহকারী পরিচালক এমএইচ রহমতউল্লাহ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। বিচারক ১২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে বুধবার দুই ধারায় তিন বছর করে মোট ৬ বছরের কারাদণ্ড ও তিন কোটি টাকা জরিমানার আদেশ দেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ