কেয়ন ইমরান
প্রকাশ ২৪/০২/২০২১ ১২:১১এ এম

আবার আসিতে চায় ফিরে

আবার আসিতে চায় ফিরে Ad Banner

আবার আসিতে চায় ফিরে

-কেয়ন ইমরান



আবার আসিতে চায় ফিরে

অবুঝ শিশুটির স্বপন ভূবনে,

পঙ্খীরাজের পিঠে চড়ে

রুপকথার সবুজ তরু বনে।


ছায়া ঘেরা, গুল্ম ভরা সরু পথে,

ফলাদি ভরা দীর্ঘ বৃক্ষের নিচে,

অনামিকা আঙ্গুল ধরিয়া বাবার সাথে

হাঁটিয়া যাইতাম ফেলিয়া অরণ্য পিছে।


কৌমুদিনীর নিশিতে মাদুর পাতিয়া বসে

দেখিতাম শশীর ফোকলা দাঁতের হাসি,

শুনিতাম কত রুপকথা দাদুর সাথে  মিশে।

কেমন করিয়া রাখাল ছেলে বাজায় যাদুর বাঁশি!


ছোটবেলার কানামাছি আর গোল্লাছুটের কথা

আজও মনে পড়ে ফসল বিহীন মাঠে,

সেথায় রহিয়াছে পূর্ণ স্মৃতিতে গাঁথা,

দল বাঁধিয়া যাইতাম তরমুজ ক্ষেতের খাটে।


গ্রীষ্মের রৌদ্রেও ঘুম ছিল না চোখে,

সারাক্ষণ হৈ চৈ রবে থাকিতাম মেতে।

কাটিত সারা বৈকাল আম্র কানন দেখে,

চুরি করিবার তরে থাকিতাম ওত পেতে।


শরৎ আসিলে শিউলী ফুটিত চন্দ্রিমা রজনীতে,

আমি আর কেয়া পাশাপাশি থাকিতাম বসে।

আধহেলা দুজন মাতিতাম গল্পে, দুষ্টামিতে

মৃদু পবনে পুষ্পের মিষ্টি গন্ধ আসিত ভেসে।


পৌষের পবনে শীতের আবেশ পাইয়া

জড়সড় হইতাম লেপ-কাঁথার ভিতর।

গ্লাসে করিয়া খেজুর রস খাইতে গিয়া

বৃদ্ধ দাদুর মত কাঁপিয়াছি কত থর থর।


সরিষা ফুলের মালা গাঁথিয়া আমি

পরিয়ে দিলেম সখি কেয়ার গলায়।

বলেছিল কেয়া, “এটা অনেক দামি।

যতন করিয়া রাখিয়া দিব তাই।”


বসন্ত আসিলে কলকণ্ঠ হইয়া যাইতাম আমি,

গানে গানে মূখর হইত সারা বাড়ি।

নানা পুষ্প দিয়া আপণ বসাইতাম আমি,

এমনি করিয়া কত না আনন্দ দিতাম পাড়ি।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ

Luck Mia - (Netrokona)
প্রকাশ ০৫/০৩/২০২১ ১২:২২পি এম
কেয়ন ইমরান - (Jashore)
প্রকাশ ০৫/০৩/২০২১ ১১:২৫এ এম
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম - (Sirajganj)
প্রকাশ ০৫/০৩/২০২১ ১১:১৬এ এম
MD HABIBUR RAHMAN - (Dhaka)
প্রকাশ ০৪/০৩/২০২১ ১১:০৬পি এম
ZOHIRUL ISLAM - (Comilla)
প্রকাশ ০৪/০৩/২০২১ ০২:৪২পি এম
মো.আমিনুল ইসলাম - (Nilphamari)
প্রকাশ ০৩/০৩/২০২১ ০৭:০৭পি এম