Md.Helal Uddin Sarker
প্রকাশ ২২/০২/২০২১ ০৫:১২পি এম

বগুড়ার ধুনটে ৫ বছরের শিশুকে গলা কেটে হত্যা

বগুড়ার ধুনটে ৫ বছরের শিশুকে গলা কেটে হত্যা Ad Banner

বগুড়ার ধুনট  উপজেলার এলাঙ্গী  ইউনিয়নের এলাঙ্গী ফকির পাড়া গ্রামের প্রবাসী আব্দুল গফুর সরকারের ছেলে তৌহিদ সরকারকে (৫) বটি দিয়ে (১৯ ফেব্রুয়ারি) তারিখে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে - সে বিষয়ে  তারিখ (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকালে এসপি, বগুড়া আলি আসরাফ ভুইয়া এক প্রেস ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের ঘটনার মুল রহস্য তুলে ধরেন।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, নিহত শিশুটি তার তিন বছরের বড় ভাই সজিব এর সাথে গরু জবাই জবাই খেলা করতে ছিলো।

খেলার এক পর্যায়ে বড় ভাই বাসায় কাজ করা বটি, ছোট ভাইয়ের গলায় ধরলে ছোট ভাই আচমকা ঘাড় সরাতে গেলে মাছ কাটার বাঁকানো বটিতে তার গলার বাম পাশে গলার রগ সহ বেশ খানিকটা কেটে যায় ও প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়ে মারা যায়।বটিটাও ছিলো পাতলা ও খুব ধারালো।

তিনি সাংবাদিকদের আরো জানান, ঘটনাটি বেশ ভালোভাবে তদন্ত করে, ঘটনার মোটিভ ও ক্লু ধরে ব্যাপক অনুসন্ধান করে - হত্যার মুল রহস্য উদঘাটন করেন। যেহেতু হত্যাকারী শিশু ও একই মায়ের সন্তান, সেহেতু শিশুবাচ্চার বিরুদ্ধে কোনো মামলা করা সম্ভব নয়। তিনি সবার অবগতির জন্য আরো বলেন, সবার বাসায় শিশু সন্তানের প্রতি বিশেষ খেয়াল ও লক্ষ রাখার জন্য।

যাদের বাসায় ছোট ছেলেমেয়ে আছে তাদের খুব সাবধানে বাচ্চাদের লালনপালন করতে অনুরোধ করেন। থানা পুলিশ সুত্রে জানাযায় যে,এলাঙ্গী ফকির পাড়া গ্রামের প্রবাসী আব্দুল গফুর সরকার দির্ঘদিন যাবৎ মালয়েশিয়া থাকেন। বাড়ীতে বাবা- মা, ভাই ও ছেলে মেয়েকে নিয়ে স্ত্রী দুলালী বেগম থাকেন।

কাজের সন্ধানে বাড়ীর সবাই মাঠে কাজ করতে যায় , তৌহিদ সরকারের মা দুলালী বেগম ছেলেদেরকে ঘরের ভিতর রেখে বাড়ীর আশে পাশেই কাজ করতে ছিলেন , তখন সময় অনুমান সকাল ১০ টার দিকে।

পরে সকাল অনুমান সাড়ে ১১ টার দিকে ঘরের ভিতরে  তৌহিদের বটি দিয়ে গলার অর্থেক কাটা মৃত অবস্থায় লাশ পাওয়া যায়। পরে তৌহিদকে নিয়ে তৌহিদের চাচা সোলেমান ধুনট  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন, এবং হাসপালের কর্তব্যরত ডাক্তারতৌহিদকে দেখে মৃত বলে ঘোষনা করেন।

থানা পুলিশ খবর পেয়ে  ঘটনার স্থল পরিদর্শন করেন এবং লাশ উদ্ধার করে বগুড়া মেডিকেলকলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত করার জন্য প্রেরণ করেন।

ধুনট  থানার অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিন্ধু বালা বলেন তদন্ত অব্যাহত আছে , আজ সেই ঘটনার মুল রহস্য জানানো হলো। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেরপুর সার্কেল গাজিউর রহমান, ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিন্ধু বালা ও আগত বিভিন্ন পত্রিকার সাংবাদিকবৃন্দ।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ