Rakib Monasib
প্রকাশ ২২/০২/২০২১ ০২:১৫পি এম

বিমানের সিটের নিচে মিলল সাড়ে ১৭ কেজি সোনা!

বিমানের সিটের নিচে মিলল সাড়ে ১৭ কেজি সোনা! Ad Banner

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আবুধাবি থেকে আসা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইট থেকে ১৭ কেজি ৫০০ গ্রাম সোনা উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিমানবন্দর কাস্টমস, শুল্ক গোয়েন্দা ও এনএসআই টিম যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় এসব স্বর্ণ উদ্ধার করেন।

বিমানের সিটের নিচ থেকে এবং আরও পাঁচটি স্থান থেকে এসব সোনা উদ্ধার করা হয়।  

শাহ আমানতের ম্যানেজার উইং কমান্ডার মো. ফরহাদ হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আবুধাবি থেকে আসা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইট সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় ল্যান্ড করে। ওই ফ্লাইটে তল্লাশি চালিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় ১৫০টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। যার ওজন ১৭ কেজি ।  

তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। শুল্ক গোয়েন্দার মহাপরিচালক আব্দুর রউফ বলেন, 'গোপন তথ্যের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানতে পারে, আবুধাবি থেকে চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকাগামী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১২৮ ফ্লাইটে স্বর্ণ চোরাচালান হবে।

এমন তথ্যের ভিত্তিতে বিমান অবতরণের পর শুল্ক গোয়েন্দা ও এনএসআই কর্মকর্তারা বিমানের অভ্যন্তরে যৌথ তল্লাশি চালায়।' তিনি বলেন, পরবর্তীতে এয়ারক্রাফটের ১৮ এফ ও ২৬ এ সিটের নিচের জানালার এসি প্যানেল খুলে ১৫০ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। এসব স্বর্ণের বারের ওজন সাড়ে ১৭ কেজি।

যার বাজার মূল্য ৯ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। আ. রউফ বলেন, চলতি বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর প্রায় সাড়ে ৫৫ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার করে জব্দ করে।

স্বর্ণ উদ্ধারের ঘটনায় কাস্টমস আইনে একটি বিভাগীয় মামলা এবং একটি ফৌজদারি মামলা করা হবে বলেও তিনি জানান।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুর রউফ বলেন, আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে হওয়া শুল্ক গোয়েন্দার মামলার তদন্ত খুব দূরত্ব শেষ করা হবে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ