মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Mrinal Kanti Chowdhury
প্রকাশ ১৯/০২/২০২১ ০৯:৩৭পি এম

টঙ্গীতে চোর সন্দেহে টঙ্গীর ১ মহিলাকে পিটিয়ে হত্যা

টঙ্গীতে চোর সন্দেহে টঙ্গীর ১ মহিলাকে পিটিয়ে হত্যা Ad Banner

শুক্রবার সকালে মহানগরীর গাছা থানাধীন ৩৭ নং ওয়ার্ডে কুনিয়া পাছর এলাকায় মহানগর আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ শহিদুল্লাহর বাড়িতে মোবাইল চোর সন্দেহে এস নাহার (৪০) নামে এক মহিলাকে হাত পা বেধে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ওই মহিলা আওয়ামী নেতা শহিদুল্লাহ'র ৬তলার ভাড়াটিয়া বাসার সিড়িতে সন্দেহজনক ভাবে উঠানামা করছিলো বলে দাবী করে ওই বাড়ির লোকজন।

পরে তাকে ধরে জিজ্ঞেস করলে ওই মহিলা জানায়, সে তার বোনের বাসা খোঁজ করছিল। শহিদুল্লাহর বাড়ির ভাড়াটিয়ারা জানায়, মহিলা সন্দেহজনক ও অসংগতি পূর্ণ কথাবার্তা বলায় মোবাইল চুরি করছে বলে উপস্থিত ভাড়াটিয়ারা এবং বাড়ির মালিক শহিদুল্লাহকে বিষয়টি ফোন করে জানালে শহিদুল্লাহ’র নির্দেশে তার বাড়ি দেখাশুনার দ্বায়িত্বে থাকা নেতা শহিদুল্লাহ’র ছোট ভাই আব্দুল হালিম ও তার ভাতিজা সজল, টুটুল, রবি, শুভ ও ছোট বোন সখিনা আক্তারসহ তাদের বাসার আরো কয়েকজন মিলে মহিলার হাত-পা বেঁধে বেধরক মারপিট করে এবং লোহা গরম করে শরীরে ছেকা দেওয়াসহ নানা ভাবে বেলা ১১ পর্যন্ত শারীরিক নির্যাতন করে বলে স্থানীয় লোকজন জানান।

পরে গুরতর আহত ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মহিলাকে একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে।  এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে গাছা থানা পুলিশ মহিলাকে উদ্ধার করে লোক মারফত প্রাথমিক চিকিৎসা করাতে প্রথমে তায়রুনেছা মেমোরিয়াল হসপিটাল এবং পরে অবস্থার অবনতি হলে তাৎক্ষণিক টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান বলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। 

এদিকে টঙ্গীর নোয়াগাঁও এলাকার বাসিন্দা এস নাহারের স্বামী হোসেন মিয়া জানায়, তার স্ত্রী একজন মানষিক রোগী ছিলো। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার সলিমগঞ্জ থানার লিলিহান গ্রামে। তবে সামছুনাহার ওরফে এস নাহার স্থানীয় একটি জুটের দোকানে মাঝে মাঝে কাজ করতো।

সে তার বোনকে খুঁজতে সকাল সাড়ে ৭টায় কুনিয়া পাছর গ্রামে গেলে আওয়ামীলীগের এক নেতার নির্দেশে আমার স্ত্রীকে চোর আখ্যা দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে।  এরির্পোট লেখা পর্যন্ত স্থানীয় প্রভাবের জোরে মামলা হওয়ার বদলৌতে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে এবং নিহতের পরিবারের সাথে আপোষের চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে। 

এব্যাপারে এস আই শরিফুলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মহিলা ভোর রাতে ওই বাড়িতে ঢুকলে তাকে চোর সন্দেহে গনধোলাই দেয় স্থানীয় লোকজন। এঘটনায় তিনি মারা যান। এবিষয়ে তদন্ত চলছে এবং মামলারও প্রস্তুতি চলছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ