Feedback

খেলার খবর

পাঁজরে চোট নিয়ে হাথুরুসিংহের বিপক্ষে লড়েছিলেন মুশফিক!

পাঁজরে চোট নিয়ে হাথুরুসিংহের বিপক্ষে লড়েছিলেন মুশফিক!
May 03
03:08pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
আই নিউজ বিডি ডেস্ক: বাংলাদেশের ক্রিকেটর অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছিল চন্দিকা হাথুরুসিংহের হাত ধরে। এই শ্রীলঙ্কান কোচ হুট করেই ২০১৮ সালে বাংলাদেশের দায়িত্ব ছেড়ে নিজ দেশের জাতীয় দলের দায়িত্ব নেন। তবে শ্রীলঙ্কান বোর্ড তাকে এক অর্থে তাড়িয়ে দিয়ে হাঁফ ছেড়ে বাঁচে। হুট করে বাংলাদেশের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়া ভালোভাবে নেয়নি বিসিবি, ক্রিকেটার এবং সমর্থকেরা। গতকাল তামিম ইকবাল আর মুশফিকুর রহিমের ইনস্টাগ্রাম আলাপচারিতায় উঠে এল সেই সময়ের কথা। শ্রীলঙ্কার কোচ হিসেবে হাথুরু প্রথম অ্যাসাইনমেন্টে আসেন বাংলাদেশে। সেবার ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশকে হারানোর পর টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজও জিতে নেয় হাথুরুর শ্রীলঙ্কা। একই বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপেও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের দেখা হয়েছিল। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে মুশফিকুর রহিমের অবিশ্বাস্য সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কাকে হারায় বাংলাদেশ। মুশফিক সেদিন পাঁজরে চিড় নিয়ে খেলেছিলেন ১৪৪ রানের ইনিংস। আর তামিম ব্যাট করেছিলেন ভাঙা আঙুল নিয়ে। মুশফিক বলেন, ‘আগের দিন অনুশীলনও ঠিক মতো করতে পারিনি। নেটে ৫-১০টা বল খেলেছি। দেখলাম আমি কোনো বড় শট খেলতে পারছি না। শুধু ডিফেন্স করতে পারছি। এখন এটা তো টেস্ট না যে আমি ডিফেন্স করে খেলে যাব। খুবই হতাশ ছিলাম। যখন ফিজিওর সঙ্গে এক্সরে করতে গেলাম, চোখ দিয়ে পানি ঝরছিল। ফিজিও বুঝতে পেরেছিল, স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড যেহেতু করতে পারছি না, নিশ্চয়ই পাঁজরে চিড় আছে। রাতে এক্সরে রিপোর্টে দেখি যে চিড় ধরা পড়েছে। রাতে আমি বিশ্বাসই করতে পারিনি যে খেলতে পারব। ঔষধ দিল, ডিনার করলাম। তারপর কেন জানি মনে হলো এ ম্যাচটা যে করেই হোক খেলতে হবে। প্রথম খেলা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে, এটা তো জেতাই লাগবে।’ এ পর্যায়ে মুশফিককে থামিয়ে মুখে দুষ্টুমির হাসি হেসে তামিম বলেন, ‘এটা ভুল বললি দোস্ত। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলা না। বাংলাদেশ খেলছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। মুশফিক খেলছিল হাথুরুর বিপক্ষে। এটা শুধু তুই না, আমাদের সবারই একটা জেদ ছিল। খারাপভাবে নেওয়ার কিছু নেই। যেভাবে ও চলে গেছে, বা যেভাবে আমরা চাচ্ছিলাম তাকে হারাতে, এমন না যে রাগের মাথায় বলছি, হাথুরু আছে হারাতে হবে। খেলোয়াড়সুলভ মনোভাবেই বলছি, ও আমাদের ভেতর-বাহির সব জানত। সেদিক থেকে ওকে যদি আমরা হারাতে পারতাম, তা আমাদের অনেক তৃপ্তি দিত। সেদিক থেকে সবাই চাচ্ছিলাম যেন শ্রীলঙ্কাকে হারাতে পারি। কোনো সন্দেহ নেই, তিনি খুবই ভালো কোচ ছিলেন।’

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

রাজশাহীতে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় বরখাস্ত ফাদার গ্রেপ্তার

রাজশাহীতে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় বরখাস্ত ফাদার গ্রেপ্তার

বহিরাগত দ্বারা হমলার শিকার ইবি কর্মকর্তা

বহিরাগত দ্বারা হমলার শিকার ইবি কর্মকর্তা

সর্বশেষ

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?

আজমিরীগঞ্জে ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা মেরামতের উদ্যোগ নিলো উপজেলা প্রশাসন

আজমিরীগঞ্জে ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা মেরামতের উদ্যোগ নিলো উপজেলা প্রশাসন

দুর্নীতি ও দুঃশাসন ছাড়া এই সরকারের বড় অর্জন কিছুই নেই : ডা: শাহাদাত

দুর্নীতি ও দুঃশাসন ছাড়া এই সরকারের বড় অর্জন কিছুই নেই : ডা: শাহাদাত

কুমিল্লার নগর উদ্যান থেকে গরীব শিশুরা বঞ্চিত, রাইডে চরলে গুনতে হবে টাকা

কুমিল্লার নগর উদ্যান থেকে গরীব শিশুরা বঞ্চিত, রাইডে চরলে গুনতে হবে টাকা

সাভারে আবারও এক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার

সাভারে আবারও এক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিয়াজ খালাস

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিয়াজ খালাস

রাজশাহী নগরীর ৬৩ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল

রাজশাহী নগরীর ৬৩ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল

খুন হওয়ার ৬ বছর পর ‘মৃত’ ব্যক্তি আদালতে হাজির

খুন হওয়ার ৬ বছর পর ‘মৃত’ ব্যক্তি আদালতে হাজির